পাইকগাছায় আলেয়া হত্যার ক্লু উদ্ধার : আটক ৩

Img

পাইকগাছায় আলেয়া হত্যাকান্ডের মূল সন্দেহভাজন মিজান মোড়ল আটক করেছে পুলিশ। ইন্সপেক্টর (তদন্ত) আশরাফুল আলম রোববার গভীর রাতে যশোর ঝিকরগাছার লাউদানী গ্রামের একটি ইটভাটা থেকে মিজানকে আটক করেন।

সে রাড়ুলীর আজিজ মোড়লের ছেলে এবং নিহত আলেয়ার দ্বিতীয় স্বামী। মিজানের জিজ্ঞাসাবাদে শ্রীকন্ঠপুরের ময়জুদ্দীন গাজীর ছেলে অজিয়ার গাজী ও নিছার সরদারের ছেলে আসানুরকে থানা হেফাজতে নিয়ে পুলিশ জিজ্ঞাসাবাদ করছেন।

এদিকে গতকাল মিজান পাইকগাছার সিনিয়র জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে জবানবন্দিতে হত্যাকান্ডে জড়িত থাকার কথা স্বীকার করেছেন বলে পুলিশ জানান। ঘটনার রাতে প্রথমে উভয়ের ইচ্ছায় মিজান ও পরে দ্বিতীয় দফায় অজিয়ার, আসানুর ও মিঠু জোরপুর্বক আলেয়াকে ধর্ষন করেন।

আলেয়া এর প্রতিবাদ করলে সবাই মিলে তাকে শ্বাসরোধ করে হত্যা করে। উল্লেখ্য, গত ১৯ জানুয়ারী গভীর রাতে উপজেলার রাড়ুলীর কলমিবুনিয়া গুচ্ছ গ্রামের বাসিন্দা আলেয়া (৪৫) কে ঘরে ফেলে আটককৃতরা ধর্ষন করে শ্বাসরোধ করে হত্যা করে পালিয়ে যায়।

এ ঘটনায় নিহতের ছেলে আলমগীর স্থানীয় আ’লীগ নেতা আরশাদ আলী বিশ্বাস ও তার নিকটাত্মীয় ৩ জনকে এজাহারে সন্দেহজনক উল্লেখ করে থানায় অজ্ঞাত নামাদের বিরুদ্ধে মামলা করেন। এ নিয়ে মানববন্ধন ও সংবাদ সম্মেলনও অনুষ্ঠিত হয়।

হত্যার কু উদ্ধারের কথা বলে ওসি এমদাদুল হক শেখ জানিয়েছেন, আটক মিজান প্রাথমিক ভাবে আলেয়া হত্যাকান্ডে জড়িত থাকার কথা বলেছেন। তার জিজ্ঞাসাবাদে আরও দু’জনকে থানা হেফাজতে আনা হয়েছে। তবে তদন্তের স্বার্থে তিনি বিস্তারিত জানাতে চাননি।

প্রতিক্রিয়া মন্তব্য শেয়ার