নুসরাত জাহান রাফির জন্মদিনে ছোট ভাইয়ের আবেগঘন স্ট্যাটাস

Img
নুসরাত জাহান রাফির ছোট ভাই রাশেদুল হাসান রায়হান

বাংলাদেশে আলোচিত ঘটনাগুলোর মধ্যে অন্যতম ফেনী জেলার সোনাগাজীর মাদ্রাসা ছাত্রী নুসরাত জাহান রাফিকে আগুনে পুড়িয়ে হত্যার ঘটনা। আজ সেই ফেনীর মাদ্রাসাছাত্রী নুসরাত জাহান রাফির জন্মদিনে তার ছোট ভাই রাসেদুল হাসান রায়হানের আবেগঘন স্ট্যাটাস প্রবাসীর দিগন্ত এর পাঠকদের জন্য হুবহু তুলে ধরা হলো:-

আপু আপনাকে ভুলিনি আমি, 
আমার অনুভূতিতে এক নিবিড় স্বপ্ন হয়ে আপনি আছেন, অদৃশ্য ভালোবাসায় ভর্তি আমার অনুভূতিগুলো, আপুনি শুনতে পাচ্ছেন কি আমার শব্দহীন চিৎকার? আপনাকে হারিয়ে এখনো এক মানসিক বিপর্যয়ে নিমজ্জিত আমি।

এই হাসিটাই আমাদের ভালো থাকার কারন ছিল তাইনা আপু? কিন্তু কিছু মানুষরূপী জানোয়ার ইতি টেনে দিল আমাদের সম্পর্ককে
♥ শুভ জন্মদিন আপুনি ♥

স্মৃতিচারণা ছাড়া নিজের মনকে স্বান্তনা দিতে পারছিনা। মহান আল্লাহ আপনাকে জান্নাতবাসী করুন।

উল্লেখ্য, ফেনীর সোনাগাজী মাদ্রাসা ছাত্রী নুসরাত জাহান রাফি ২০১৯ সালের ৬ এপ্রিল পরীক্ষা দিতে গেলে হল থেকে ডেকে পাশের ভবনের ছাদে নিয়ে অধ্যক্ষের বিরুদ্ধে দায়েরকৃত মামলা তুলে নিতে রাজি না হওয়ায় তাকে গায়ে কেরোসিন ঢেলে হত্যার চেষ্টা চালায়। ১০ এপ্রিল ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যায় সে।

গত বছরের ২৪ অক্টোবর রায়ে ১৬ আসামিকে মৃত্যুদণ্ড দেন ফেনীর নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনালের বিচারক মামুনুর রশিদ। পাশাপাশি প্রত্যেক আসামিকে এক লাখ টাকা করে জরিমানা করা হয়। ২৯ অক্টোবর আসামিদের মৃত্যুদণ্ডাদেশ অনুমোদনের জন্য (ডেথ রেফারেন্স) মামলার যাবতীয় কার্যক্রম হাইকোর্টে পৌঁছে। ফৌজদারি কার্যবিধি অনুসারে বিচারিক আদালতে মৃত্যুদণ্ডাদেশ হলে মৃত্যুদণ্ডাদেশ অনুমোদনের জন্য মামলার যাবতীয় কার্যক্রম উচ্চ আদালতে পাঠাতে হয়। সে অনুসারে ডেথ রেফারেন্স হাইকোর্টে আসে। অগ্রাধিকার ভিত্তিতে পেপারবুক (মামলার যাবতীয় নথি) ছাপানো শেষ করা হয়েছিলো। পরে প্রয়োজনীয় কাজ শেষে শুনানির জন্য মামলাটি প্রধান বিচারপতি বরাবর উপস্থাপন করা হয়।

প্রতিক্রিয়া মন্তব্য শেয়ার