নিজ দেশে ফিরে যাচ্ছেন রাসেল ডমিঙ্গো !

Img

সিরিজ শেষে ছুটি কাটাতে নিউজিল্যান্ড থেকেই দেশে ফিরে যাচ্ছেন দলের প্রধান কোচ রাসেল ডমিঙ্গো ও ব্যাটিং কোচ অ্যাশওয়েল প্রিন্স। চুক্তির মেয়াদ শেষে চলে যাচ্ছেন পেস বোলিং কোচ ওটিস গিবসনও। এই তিনজনের মধ্যে প্রথম দুজনের ভবিষ্যৎ ঝুলে আছে। মেয়াদোত্তীর্ণ নির্বাচক প্যানেলের অবস্থাটাও প্রায় একই। সব উত্তর মিলবে বিসিবির সভাপতি নাজমুল হাসান পাপন দেশে ফিরলে।

আপাতত বাংলাদেশ ক্রিকেট দলের ব্যস্ততা নেই। আগামী মাসে আফগানিস্তান সিরিজ দিয়েই ফিরবে দল। মাঝের এই সময়ে বিপিএল খেলবেন ক্রিকেটাররা। এরপর আবার ঠাসা আন্তর্জাতিক সূচি। ঘরের মাঠে আফগানিস্তান সিরিজের পরই মার্চে দক্ষিণ আফ্রিকায় উড়াল দেবে দল। দুটি সিরিজে প্রধান কোচ ডমিঙ্গোর থাকা না-থাকা নিয়ে প্রশ্ন থেকেই যাচ্ছে।

তবে জাতীয় দলে যে প্রিন্স-অধ্যায় শেষ হয়ে গেছে, এটা নিশ্চিত হওয়া গেছে। তাঁর শূন্যস্থান পূরণে ব্যাটিং পরামর্শক হিসেবে বাংলাদেশ দলে প্রত্যাবর্তন হবে সাকিব-মাহমুদউল্লাহদের সাবেক কোচ জেমি সিডন্সের।

প্রিন্সকে একাডেমি বা অন্য কোথাও কাজে লাগানোর পরিকল্পনা আছে ক্রিকেট বোর্ডের। বিসিবি ক্রিকেট পরিচালনা বিভাগের প্রধান জালাল ইউনুসের কথায় তেমনই ইঙ্গিত মিলল।

এ প্রসঙ্গে গতকাল এক জাতীয় দৈনিকে তিনি বলেছেন, ব্যাটিং কোচের নাম তো ইতিমধ্যে জানিয়ে দেওয়া হয়েছে। প্রিন্সের ব্যাপারে আমরা এখনো সিদ্ধান্ত নিইনি। তাঁকে যদি একাডেমি বা অন্য কোথাও কাজে লাগাই, সেটা আলাপ করে দেখা যাবে।

তবে প্রিন্সের স্বদেশি ডমিঙ্গোর ভবিষ্যৎ নিয়ে নিশ্চিত কিছু জানাতে পারেননি জালাল। বিসিবির সভাপতি দেশে ফিরলে পরবর্তী বোর্ডসভায় নাকি চূড়ান্ত হতে পারে বাংলাদেশ দলের প্রোটিয়া কোচের ভবিষ্যৎ।

পরিচালনা বিভাগের প্রধান বলছেন, এখন পর্যন্ত কোনো সিদ্ধান্ত হয়নি। আমাদের যিনি প্রধান কোচ আছেন, তিনি এখনো আছেন। এখন যেহেতু (বিসিবি) সভাপতি দেশে নেই, বোর্ডসভায় সিদ্ধান্ত না হওয়া পর্যন্ত তিনি থাকবেন।

কোচদের বিষয়টা ঝুলে থাকলেও টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপে বাংলাদেশ দলে ভরাডুবির কারণ খুঁজতে গঠিত দুই সদস্যের তদন্ত কমিটির প্রতিবেদন জমা দেওয়া হয়েছে বোর্ডে। ওই কমিটিতে আছেন জালালও।

তিনি বলেছেন, ওটা (তদন্ত প্রতিবেদন) হয়ে গেছে। আমরা দিয়েও দিয়েছি। সেটা এখন সভাপতির কাছে। তিনি এলে এটা বোর্ডসভায় তোলা হবে।

 

 

প্রতিক্রিয়া মন্তব্য শেয়ার