নভেম্বরে বাংলাদেশকে করোনার ভ্যাকসিন দিতে চায় রাশিয়া

Img

বিশ্বের প্রথম দেশ হিসেবে গত আগস্টে করোনাভাইরাসের ভ্যাকসিনের অনুমোদন দিয়েছিল রাশিয়া। এবার তারা বাজারজাতেও নেমেছে। যার প্রেক্ষিতে রাশিয়ান ডিরেক্ট ইনভেস্টমেন্ট ফান্ড (আরডিআইএফ) নভেম্বরে অন্যান্য দেশের সঙ্গে বাংলাদেশের কাছেও করোনার ভ্যাকসিন স্পুটনিক-৫ বিক্রি করতে চেয়েছে।  

স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের পরামর্শক কমিটির চেয়ারম্যান মো. শহিদুল্লাহ গণমাধ্যমে এ তথ্য জানান। 

বুধবার রাশিয়ার প্রতিনিধিদের সঙ্গে স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের এক অনলাইন সভায় আরডিআইএফ এর ভাইস প্রেসিডেন্ট আলেক্সান্দার জাভারভ এ প্রস্তাব দেন বলে শহিদুল্লাহ জানান।  

সভায় জাভারভ জানান যে, স্পুটনিক-৫ ইতিমধ্যে ছয় দেশে ক্লিনিক্যাল ট্রায়াল চালিয়েছে এবং ৪০ হাজার নাগরিক এ ভ্যাকসিন নিয়েছেন। 

মো. শহিদুল্লাহ বলেন, আমরা বাংলাদেশে তাদের ভ্যাকসিন বাজারজাত করার আহে ট্রায়াল চালানোর প্রস্তাব দিয়েছি। তারা এ প্রস্তাব বিষয়ে আগ্রহ দেখিয়েছে এবং পরবর্তী যোগযোগ অব্যাহত রাখবে বলেও জানিয়েছে। 

সভায় স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের পক্ষে স্বাস্থ্যমন্ত্রী জাহিদ মালেক নেতৃত্ব দেন। স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের কর্মকর্তারাও সভায় উপস্থিত ছিলেন। 

তাদের পক্ষ থেকে বাংলাদেশের কোনো ওষুধ প্রস্তুতকারী প্রতিষ্ঠানে রাশিয়ার ভ্যাকসিন উৎপাদনের প্রস্তাব দেওয়া হয়। এ বিষয়েও রাশিয়া ইতিবাচক সাড়া দিয়েছে বলে মন্ত্রণালয়ের পক্ষ থেকে বলা হয়।  

এর আগে চলতি মাসের শুরুতে স্বাস্থ্যমন্ত্রী জাহিদ মালেক বাংলাদেেশ তাদের টিকার ট্রায়াল পরিচালনার জন্য রাশিয়াকে অনুরোধ করেন। 

প্রাণঘাতী করোনাভাইরাসের টিকা আবিষ্কারের পথে চূড়ান্ত পর্যায়ের পরীক্ষায় থাকা বিশ্বের নয়টি প্রতিষ্ঠানের মধ্যে পাঁচটির সঙ্গে সরকারের সার্বক্ষণিক যোগাযোগ রয়েছে বলে বুধবার জানান স্বাস্থ্যমন্ত্রী জাহিদ মালেক। 

তিনি বলেন, এই টিকাগুলো থেকে সঠিক টিকা, সঠিক সময়ে পেতে চাই আমরা।

প্রতিক্রিয়া মন্তব্য শেয়ার