নওগাঁয় গৃহবধূকে পিটিয়ে হত্যার অভিযোগ

Img

নওগাঁর নিয়ামতপুরে পারিবারিক দ্বন্দ্বের জেরে নারগিস বেগম(৪০) নামের এক গৃহবধূকে পিটিয়ে মেরে ফেলার অভিযোগ পাওয়া গেছে। ঘটনাটি ঘটেছে নিয়ামতপুর উপজেলার সন্তোষপুর গ্রামে। এই ঘটনায় স্ত্রীর পক্ষ নেওয়ায় নিহতের স্বামী আলীম উদ্দিন (৪৫)কে ও পিটিয়ে হাত ভেঙ্গে গুরুত্বর আহত করেছে। আহত স্বামী নিয়ামতপুর স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে চিকিৎসাধীন রয়েছেন।

মঙ্গলবার (৪ফেব্রুয়ারী) সকালে  এঘটনায় নিহতের ভাই শহিদুল ইসলাম বাদী হয়ে ৬জনকে আসামি করে নিয়ামতপুর থানায় একটি মামলা দায়ের করেছে।

নিয়ামতপুর থানার অফিসার ইনচার্জ আবুল কালাম আজাদ বলেন, নারগিসের শাশুড়ীকে চাল দেয়াকে কেন্দ্র করে বউ শাশুড়ীর মধ্যে সামান্য ঝগড়াকে কেন্দ্র করে গত শনিবার দিবাগত রাতে শাশুড়ীর মেয়ে জামাই এবং অন্য ছেলেরা শাশুড়ীর পক্ষ নিয়ে তাকে ও তার স্বামীকে তারা  বেদম মারপিট করে। এতে নারগিস গুরুত্বর আহত এবং  স্বামীর ডান হাত ভেঙ্গে গুরুত্বর জখম হলে প্রথমে মান্দা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে এরপর রাজশাহী মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে নেওয়া হলে সেখানে চিকিৎসাধীন অবস্থায় নারগিস গতকাল সোমবার বিকেলে মারা যান। 

তিনি বলেন, নিহতের লাশ নিহতের বাবার বাড়ি মান্দা উপজেলার গনেশপুর গ্রামে রয়েছে। পুলিশ সেখানে গিয়ে দেখে এসেছে। ময়নাতদন্তের জন্য আজ (৪ফেব্রুয়ারী) বিকেলে নওগাঁ মর্গে পাঠানো হবে।

পূর্ববর্তী সংবাদ

সাভারে এসএসসি পরীক্ষার্থী নিয়ে বাস খাদে, আহত ৩

ঢাকার ধামরাইয়ে এসএসসি পরীক্ষার্থীদের বহনকারী একটি বাস নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে খাদে পড়ে অন্তত ৩ শিক্ষার্থী আহত হয়েছে। 

মঙ্গলবার (৪ ফেব্রুয়ারি) সকাল ৯টার দিকে ধামরাইয়ের কালামপুর-বাটুলিয়া সড়কের বাটুলিয়া লুকাস মোড়ে এ দুর্ঘটনা ঘটে।

বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন ধামরাই থানার ওসি দীপক চন্দ্র সাহা।

তিনি জানান, সকাল ৯টার দিকে এসএসসির ৩৩ জন পরীক্ষার্থীকে বহনকারী বাসটি খাদ পড়ে যায়। এ সময় তিন শিক্ষার্থী গুরুতর আহত হয়েছে। তারা চিকিৎসাধীন রয়েছে। বাকি শিক্ষার্থীরা পরীক্ষায় অংশগ্রহণ করেছে।

পরীক্ষার্থীরা সবাই ধামরাইয়ের কুশুরা আব্বাস আলী উচ্চ বিদ্যালয় কেন্দ্রের পরীক্ষার্থী।

প্রতিক্রিয়া মন্তব্য শেয়ার