নওগাঁয় অর্ধলক্ষাধিক মানুষ পানিবন্দী, ৩০ গ্রাম প্লাবিত

Img

যতো দুর দৃষ্টি যায় ততদুর শুধু পানি আর পানি। কয়েক দিনের টানাবর্ষণ ও উজান থেকে নেমে আসা পাহাড়ী ঢলে নওগাঁর মান্দায় আত্রাই নদীর বন্যা নিয়ন্ত্রণ বাঁধ ভেঙ্গে কসব ও বিষ্ণুপুর ইউনিয়নের ২০টি গ্রাম এবং নতুন করে আত্রাই উপজেলার হাটকালুপাড়া ইউনিয়নের ১০টি গ্রাম প্লাবিত হয়েছে।

আত্রাই নদীর বাঁধ ভেঙ্গে কসব, বিষ্ণুপুর ও হাটকালুপাড়া ইউনিয়নের ৩০টি গ্রামের অর্ধলক্ষাধিক মানুষ পানিবন্দি হয়ে পড়েছে। সেই সঙ্গে জোতবাজার, বানডুবি, বাগাতিপাড়া, গোয়ালমান্দা, কালিকাপুর, দ্বারিয়াপুর বেড়িবাঁধ, খুদিয়াডাঙ্গা পূর্বপারসহ অন্তত ৩০টি পয়েন্ট ঝুঁকিপূর্ণ হয়ে পড়েছে। ভাঙন ঠেকাতে স্থানীয়রা স্বেচ্ছাশ্রমের ভিত্তিত্বে দিন-রাত পাহারা দিচ্ছেন। উপজেলার ওই তিন ইউনিয়নের অধিকাংশ ফসলি জমির ধান, সবজির মাঠ ও পুকুরের মাছ পানির নিচে তলিয়ে গেছে।

নওগাঁ পানি উন্নয়ন বোর্ড সূত্র জানিয়েছে, বৃহস্পতিবার আত্রাই নদীর পানি বিপদসীমার ৯০ সেন্টিমিটার ওপর দিয়ে প্রবাহিত হয়েছে। এদিকে সব হারিয়ে দিশেহারা হয়ে পড়েছে মানুষ। আর প্রশাসনের পক্ষ থেকে সকল প্রকার সহযোগীতা করার আশ্বাস প্রদান করা হয়েছে।

মান্দা উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা খন্দকার মুশফিকুর রহমান জানান, সকল টিম কাজ করছে আর সব জায়গায় খোঁজখবর রাখা হচ্ছে। দূর্যোগ মোকাবেলায় প্রস্তুত রয়েছি। বন্যাকবলিত মানুষের মাঝে শুকনো খাবার বিতরন শুরু করা হয়েছে। একই সঙ্গে মোমবাতি, খাবার স্যালাইনসহ অন্যান্য সামগ্রী সরবরাহ করা হচ্ছে। আশা করা হচ্ছে শুক্রবার থেকে আত্রাই নদীর পানি কমার সম্ভবনা রয়েছে।

উল্লেখ্য, বুধবার ভোর রাতে মান্দা উপজেলার চকবালু এলাকায় আত্রাই নদীর বন্যা নিয়ন্ত্রণ বাঁধ প্রায় ২০০ ফুট ভেঙ্গে যাওয়ায় দূর্ভোগে পড়ে মানুষ।

প্রতিক্রিয়া মন্তব্য শেয়ার