ধামরাইয়ে শিক্ষার্থী ধর্ষণ মামলার আসামি গ্রেপ্তার

Img

ঢাকার ধামরাইয়ে এক স্কুল শিক্ষার্থীকে (১৪) ধর্ষণ ও হত্যাচেষ্টা মামলার আসামিকে অভিযান চালিয়ে ময়নমনসিংহ থেকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ।

বুধবার (২১ অক্টোবর) বিকেলে ময়মনসিংহের ভালুকায় এনভয় টেক্সইলস লিমিটেড কারখানা থেকে তাকে গ্রেপ্তার করে পুলিশ।

এর আগে গত ১৯ অক্টোবর ধামরাই থানায় ওই স্কুলছাত্রীর বাবা বাদী হয়ে ধর্ষণ ও হত্যাচেষ্টার মামলা দায়ের করেন।

গ্রেপ্তার জাহিদুল ইসলাম ধামরাই উপজেলার চৌহাট ইউনিয়নের বাঙ্গলা গ্রামের ফজল হকের ছেলে। 

মামলার এজাহার সূত্রে জানা যায়, ভুক্তভোগী শিক্ষার্থী চৌহাট ইউনিয়নের বাঙলা গ্রামের একটি স্কুলের অষ্টম শ্রেণীর শিক্ষার্থী। স্কুলে যাওয়ার সময় পথে ওই শিক্ষার্থীকে উত্যেক্ত করতো প্রতিবেশী জাহিদুল। পরে বিয়ের প্রস্তাবেও সাড়া না দেয়ায় ক্ষিপ্ত হয় ওঠে সে। গত ২৫ মে বিকেলে নিজ বাড়ি থেকে পাইকপাড়া দাদির বাড়িতে যাচ্ছিলো ওই শিক্ষার্থী। বাঙলা এলাকার নির্জন স্থানে পৌছলে জাহিদুল পেছন থেকে গামছা দিয়ে ওই শিক্ষার্থীর মুখ বেধে ফেলে। পরে টেনে-হিঁচড়ে রাস্তার পাশে একটি বাঁশঝাড়ে নিয়ে তাকে ধর্ষণ করে। এঘটনার পর ৭ জুলাই ভুক্তভোগীকে নিজ বাড়িতে ডেকে নেয় প্রতিবেশী জাহিদুলের মা জহুরা বেগম। পরে নেশা জাতীয় দ্রব্য খাইয়ে ওই শিক্ষার্থীকে হত্যাচেষ্টা করা হয়। অসুস্থ্য অবস্থায় ওই শিক্ষার্থীকে মির্জাপুর কুমুদিনী হাসপাতালে ভর্তি করেন স্বজনরা।

মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা কাওয়ালীপাড়া বাজার তদন্ত কেন্দ্রের উপ-পরিদর্শক (এসআই) আবু সাঈদ জানান, গত ১৯ অক্টোবর ভুক্তভোগীর বাবা বাদী হয়ে ধামরাই থানায় ধর্ষণ ও হত্যাচেষ্টার মামলা দায়ের করেন। মামলায় জাহিদুল, তার মা জোহরা বেগম ও বাবা ফজল হককে আসামি করা হয়। পরে ভুক্তভোগীর স্বাস্থ্য পরীক্ষার জন্য ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়। এঘটনায় অভিযান চালিয়ে আজ বিকেলে ময়মনসিংহের ভালুকা থেকে জাহিদুলকে গ্রেপ্তার করা হয়। আগামিকাল বৃহস্পতিবার দুপুরে তাকে আদালতে প্রেরণ করা হবে।

প্রতিক্রিয়া মন্তব্য শেয়ার