ধর্ষণের একমাত্র শাস্তি হওয়া উচিত মৃত্যুদণ্ড: মোহাম্মদ নাসিম

Img

আওয়ামী লীগের প্রেসিডিয়াম সদস্য ও ১৪ দলের মুখপাত্র মোহাম্মদ নাসিম বলেছেন, মৃত্যুদণ্ডই ধর্ষণের একমাত্র শাস্তি হওয়া উচিত। বিশেষ ট্রাইব্যুনাল করে শিশু ও নারী নির্যাতনকারীদের বিচারের মাধ্যমে ফাঁসি দিতে হবে। তবেই এদেশে নারী ও শিশু নির্যাতন এবং ধর্ষণ বন্ধ হবে। বর্তমান সরকার জঙ্গি দমন করেছে, মাদকের বিরুদ্ধে যুদ্ধ ঘোষণা করেছে। তাই এদেশে নারী নির্যাতন ও শিশু ধর্ষণ চলতে পারে না।

সিরাজগঞ্জের বঙ্গবন্ধু সেতুর মুলিবাড়ীতে নির্মাণাধীন ট্রমা হাসপাতালের নির্মাণকাজ পরিদর্শন শেষে মঙ্গলবার সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে তিনি এসব কথা বলেন। তিনি বলেন, এ হাসপাতালের নাম ‘শেখ হাসিনা ট্রমা হাসপাতাল’ নামকরণের প্রস্তাব করা হয়েছে।

তাড়াশের কলেজছাত্রী রুপা ধর্ষণ ও হত্যাকাণ্ডের ঘটনার উদ্ধৃতি টেনে নাসিম বলেন, যারা ধর্ষণের মতো ঘৃণ্যতম ঘটনা ঘটাবে, দ্রুত বিচার নিশ্চিত করে তাদের ফাঁসি দিতে হবে। তা ছাড়া এ ধরনের অপরাধ কমানো সম্ভব নয়।

পূর্ববর্তী সংবাদ

গভীর রাতে মেয়েকে ঘর থেকে বারান্দায় এনে ধর্ষণের চেষ্টার সময় বাবা আটক!

ফরিদপুরের ভাঙ্গায় নিজের কিশোরী মেয়েকে (১৫) ধর্ষণ চেষ্টার অভিযোগে শহীদুল ফকির (৪৫) নামে এক ব্যক্তিকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ।

সোমবার (২০ মে) রাতে ভাঙ্গা উপজেলার নূরুল্যাগঞ্জ ইউনিয়নের একটি গ্রামে এ ঘটনা ঘটে। এ ঘটনায় মঙ্গলবার স্বামীকে একমাত্র আসামি করে শহীদুলের বিরুদ্ধে নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনে ধর্ষণ চেষ্টার অভিযোগে মামলা করেন ওই কিশোরীর মা।

মামলার এজাহার, এলাকাবাসী ও পুলিশ সূত্রে জানা যায়, শহীদুল ফকির মাছ ধরে জীবিকা নির্বাহ করেন। তার দুই ছেলে-মেয়ের মধ্যে মেয়ে বড়। স্বামীর কুমতলব টের পেয়ে মেয়েকে সম্প্রতি বিয়ে দিয়ে দেন মা। কিন্তু মেয়ের স্বামী বিদেশে চলে যাওয়ায় সে কয়েক দিনের জন্য বাবার বাড়িতে আসে। বাবার কুদৃষ্টির কারণে সে নিজের বাড়িতে না ঘুমিয়ে বাড়ির পাশে চাচার বাড়িতে ঘুমায়।

সোমবার রাতে তার ভাই অন্যত্র বেড়াতে যাওয়ায় রাতে সে মায়ের সাথে ঘুমাতে যায়। ওই সুযোগে তার বাবা তাকে ঘরের বারান্দায় নিয়ে ধর্ষণের চেষ্টা করেন। মেয়ের চিৎকারে তার মা জেগে ওঠেন। তিনি চিৎকার দিলে এলাকাবাসী এগিয়ে এসে শহীদুলকে ধরে বেধে রেখে থানায় খবর দেন।

ভাঙ্গা থানার পরিদর্শক (তদন্ত) নিখিল অধিকারী জানায়, খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে শহীদুলকে মঙ্গলবার আটক করে। শহীদুলের স্ত্রী তার স্বামীকে একমাত্র আসামি করে ধর্ষণ চেষ্টার অভিযোগে একটি মামলা করেন। মঙ্গলবার শহীদুলকে ওই মামলায় গ্রেফতার দেখিয়ে জেলার মূখ্য বিচারিক হাকিমের আদালতের মাধ্যমে জেল হাজতে পাঠানো হয়েছে।

প্রতিক্রিয়া মন্তব্য শেয়ার