স্মার্টফোনে সেলফি তুলতে গিয়ে দুর্ঘটনার শিকার হয়ে প্রাণ হারাচ্ছেন অসংখ্য মানুষ। ২০১৮ থেকে চলতি বছরের মে পর্যন্ত দেড়বছরে সারাবিশ্বে সেলফি তুলতে গিয়ে মারা গেছে ১২০৩ জন।

পিপল টিভির এক প্রতিবেদনে এ তথ্য জানানো হয়।

ইলিনয় স্টেট বিশ্ববিদ্যালয়ের গবেষক মার্টিন ক্যভন বলেন, যেখানে সেখানে সেলফি তোলার ওপর নিষেধাজ্ঞা না আনলে দিনদিন সেলফিই মানুষের মৃত্যুর একটি বড়ো কারণ হয়ে দাঁড়াতে পারে।

ডেইলি মেইলের প্রতিবেদনে বলা হয়, ২০১১ সালের অক্টোবর থেকে ২০১৭ সালের নভেম্বর পর্যন্ত বিশ্বে অন্তত ২৫৯ জন সেলফি তুলতে গিয়ে প্রাণ হারিয়েছেন। সেখানে হাঙরের মুখে পড়ে মৃতের সংখ্যা ৫০।

ভারতের জার্নাল অব ফ্যামিলি মেডিসিন অ্যান্ড প্রাইমারি কেয়ারের রিপোর্টে বলা হয়, পুরুষদের তুলনায় নারীদের মধ্যে সেলফি আসক্তি বেশি। পানিতে ডুবে, রাস্তায় দুর্ঘটনায় কিংবা খাদে পড়ে মৃত্যুর ঘটনা ঘটেছে একাধিকবার।

সেলফিতে মৃত্যু সবচেয়ে বেশি ভারতে। এখন পর্যন্ত সেই সংখ্যা ১৫৯। দুর্ঘটনা রুখতে দেশটির বিভিন্ন জায়গাকে ‘নো সেলফি জোন’ ঘোষণা করা হয়েছে।

তবু থামছে না সেলফি তোলাজনিত দুর্ঘটনা। শুধু মুম্বাইয়েই এ রকম ১৬টি স্থান চিহ্নিত করা হয়েছে। তবে ভারতের বাইরে ব্রাজিল, ভিয়েতনাম, জার্মানি, তাইওয়ান, রাশিয়ার মতো দেশেও সেলফির কারণে মানুষ দুর্ঘটনার শিকার হয়েছেন।

বাংলাদেশেও সেলফি তুলতে গিয়ে মারা গেছেন অনেকেই।