দুর্গা পূজাকে ছোট করায় সালমান খানের বিরুদ্ধে মামলা!

Img

ধর্মানুভূতিতে আঘাত দেয়ার অভিযোগে বলিউড তারকা সালমান খানের বিরুদ্ধে মামলা করা হয়েছে। বিষয়টি নিয়ে এখনো কোনও মন্তব্য করেনি সালমান। ভারতীয় সংবাদ মাধ্যমের খবরে জানা গেছে, সালমানের নতুন একটি সিনেমাকে কেন্দ্র করে এই মামলা করেছে বিহারের বিশ্ব হিন্দু পরিষদ।

সিনেমার নাম ‘লাভরাত্রি’। আর এই সিনেমার প্রযোজক সালমান। দুর্গা পূজার মতো ধর্মীয় মহোৎসবকে ছোটো করার অভিপ্রায় নিয়েই এই সিনেমার নামকরণ করা হয়েছে। ভারতে দূর্গা পূজার রাতকে ‘নবরাত্রি’ বলা হয়। এমন অভিযোগে মামলা করা হয়। অভিযোগপত্রে বলা হয়েছে, হিন্দু সম্প্রদায়ের এই উৎসবকে ছোট করে দেখানোর জন্যই সিনেমার নাম ‘লাভরাত্রি’ দেয়া হয়েছে। এই সিনেমাটির মুক্তি যে কোনও মূল্যে ঠেকাবেন বলে হুঁশিয়ারিও দিয়েছেন অভিযোগকারীরা।

ভারতের বিহারের মোজাফফরপুরের সাবডিভিশনাল জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট (পূর্ব) শৈলেন্দ্র রাই মিঠানপুর পুলিশ স্টেশনকে বাদির আরজি মামলা হিসেবে নেয়ার নির্দেশ দিয়েছেন। আদালতে সালমান ও ‘লাভরাত্রি’ সিনেমার অভিনেতাদের বিরুদ্ধে অভিযোগ দায়ের করেন আইনজীবী সুধীর কুমার ওঝা। আগামি ৫ অক্টোবর ‘লাভরাত্রি’ সিনেমাটি মুক্তি পাবার কথা রয়েছে। এতে অভিনয় করেছেন সালমানের ভগ্নিপতি অভিনেতা আয়ুশ শর্মা ও অভিনেত্রী ওয়ারিনা হুসেন।

পূর্ববর্তী সংবাদ

বাংলাদেশ হয়ে বুলেট ট্রেন ছুটবে কলকাতা-চীনে!

ভারতের কলকাতা থেকে চীনের কুনমিং। আকাশপথে যেতে সময় লাগে সোয় দুই ঘণ্টা। আর রেলপথে? বড়জোর ঘণ্টা পাঁচেক। এবার কলকাতা থেকে বুলেট ট্রেনে পৌঁছনো যাবে কুনমিং। বাংলাদেশ ও মিয়ানমার হয়ে এই বুলেট ট্রেন চলাচল করবে। এ রেলপথ তৈরি করতে আগ্রহ দেখিয়েছে চীন সরকার।

বুধবার কলকাতায় একটি অনুষ্ঠানে চীনের কনস্যুল জেনারেল মা ঝানোউ জানান, বিশেষজ্ঞদের কাছ থেকেই এই প্রস্তাবটি প্রথমে আসে। ‘অত্যন্ত আকর্ষণীয়’ এই প্রস্তাবটি বাস্তবায়িত করতে আগ্রহী চীন সরকার। এই রুটে বুলেট ট্রেন চালু করা গেলে কলকাতাসহ পূর্ব ভারত ও উত্তর-পূর্ব ভারতের সঙ্গে সহজেই জোড়া যাবে বাংলাদেশ, মায়ানমার ও চীনকে। চার দেশের মধ্যে পণ্য ও মানুষের যাতায়াত সুবিধাজনক হবে।

ট্রেনটি কলকাতা থেকে রওনা দিয়ে ঢাকা হয়ে যাবে মিয়ানমার। ঘণ্টায় গড়ে ৪০০ কিলোমিটার বেগে মিয়ানমারের সীমান্ত পেরিয়ে চীনের কুনমিংয়ে গিয়ে থামবে বুলেট ট্রেন। স্টেশনগুলোতে দাঁড়াতে যত কম সময় নেবে, তত তাড়াতাড়ি ট্রেন পৌঁছবে কলকাতা থেকে চীন।

চীন সরকার চায়, বিশেষজ্ঞরা আরও বেশি করে এই বিষয়টি নিয়ে পর্যালোচনা করুন। এর পর বিষয়টি নিয়ে ভারত, বাংলাদেশ ও মায়ানমার সরকারের সঙ্গে আলোচনা শুরু হবে। বুলেট ট্রেনের জন্য আলাদা লাইন তৈরি করতে হবে। সেক্ষেত্রে কিছুটা সমস্যা হতে পারে। চীনের কনস্যুল জেনারেলের দাবি, সবুজ সংকেত পেলে মাত্র দশ বছরেই বুলেট ট্রেন চালু করা হয়ে যাবে।

প্রতিক্রিয়া মন্তব্য শেয়ার