দুদকে শাহেদ, তৃতীয় দিনের জিজ্ঞাসাবাদ চলছে

Img

 

ফারমার্স ব্যাংকের (বর্তমানে পদ্মা ব্যাংক) অর্থ আত্মসাৎ মামলায় রিজেন্ট গ্রুপের চেয়ারম্যান মোহাম্মদ শাহেদকে ৭ দিনের রিমান্ডে নিয়ে তৃতীয় দিনের মতো জিজ্ঞাসাবাদ শুরু করেছেন দুর্নীতি দমন কমিশনের (দুদক) কর্মকর্তারা।

বুধবার (১৯ আগস্ট) সকালে রাজধানীর সেগুনবাগিচায় দুদক কার্যালয়ে শাহেদকে জিজ্ঞাসাবাদ শুরু করেন দুদক উপপরিচালক শাহজাহান মিরাজের নেতৃত্বে একটি দল।

দুর্নীতি দমন কমিশনের জনসংযোগ কর্মকর্তা প্রণব কুমার ভট্টাচার্য এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

তিনি জানান, ৭ দিনের রিমান্ডের প্রথম দিন গত সোমবার দুদক কার্যালয়ে শাহেদকে জিজ্ঞাসাবাদ শুরু হয়। সোমবার রাতে শাহেদ হঠাৎ অসুস্থ হয়ে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয় (বিএসএমএমইউ) হাসপাতালে ভর্তি হওয়ায় মঙ্গলবার দ্বিতীয় দিনের মতো জিজ্ঞাসাবাদের কথা থাকলেও তা করতে পারেননি কমিশন কর্মকর্তারা। সোমবার রাতেই শাহেদকে যাবতীয় পরীক্ষা-নিরীক্ষা করিয়ে ও প্রাথমিক চিকিৎসা শেষে মঙ্গলবার দুপুর ২টার দিকে তাকে দুদক কার্যালয়ে আনা হয়। তবে ওইদিন আর তাকে জিজ্ঞাসাবাদ করা সম্ভব হয়নি।

গত ১০ আগস্ট দুর্নীতির মামলায় রিজেন্ট গ্রুপের চেয়ারম্যান মোহাম্মদ শাহেদকে ৭ দিন রিমান্ডে নিয়ে জিজ্ঞাসাবাদ করার অনুমতি দেন আদালত। দুদকের আবেদনের পরিপ্রেক্ষিতে ঢাকার জ্যেষ্ঠ বিশেষ জজ কে এম ইমরুল কায়েশ এ আদেশ দিয়েছিলেন।

মামলার এজাহার থেকে জানা গেছে, রিজেন্ট হাসপাতালের জন্য পদ্মা ব্যাংক বা সাবেক ফারমার্স ব্যাংকের গুলশান করপোরেট শাখা থেকে ২০১৫ সালের জানুয়ারিতে এমআরআই মেশিন কিনতে ২ কোটি টাকা ঋণের জন্য আবেদন করে শাহেদ।

এর আগে গত ২৭ জুলাই দুদকের সমন্বিত জেলা কার্যালয়-১ এ মোহাম্মদ শাহজাহান মিরাজ বাদী হয়ে শাহেদ, ফারমার্স ব্যাংকের পরিচালনা পর্ষদের নির্বাহী কমিটির সভাপতি মো. মাহবুবুল হক চিশতীসহ ৪ জনের বিরুদ্ধে মামলা করেন। মামলার অন্য আসামিরা হলেন- রিজেন্ট হাসপাতালের এমডি, মাহবুবুল হক চিশতীর ছেলে ও বকশীগঞ্জ জুট স্পিনার্স লিমিটেডের এমডি রাশেদুল হক চিশতী।

প্রতিক্রিয়া মন্তব্য শেয়ার