দুই ট্রেনে সংঘর্ষ, খুলনার সঙ্গে রেল যোগাযোগ বন্ধ

Img

ঝিনাইদহের কোটচাঁদপুরে দুই ট্রেনের মুখোমুখি সংঘর্ষ হয়েছে। এতে খুলনার সঙ্গে সারা দেশের ট্রেন যোগাযোগ বন্ধ হয়ে গেছে।

সোমবার (২৬ অক্টোবর) রাত আড়াইটার দিকে সাবদারপুর রেল স্টেশনে মালবাহী ও তেলবাহী ট্রেনের মুখোমুখি সংঘর্ষ হয়।

ঝিনাইদহের কোটচাঁদপুর রেল লাইনের স্টেশন মাস্টার গোলাম মোস্তফা জানান, দর্শনা থেকে নোয়াপাড়াগামী মালবাহী একটি ট্রেন সিগন্যাল না দিয়ে ভুলক্রমে স্টেশনে প্রবেশ করলে অপরদিক থেকে আসা তেলবাহী ট্রেনের সঙ্গে সংঘর্ষ হয়। এতে চারটি বগি লাইনচ্যুত হয়। রাত থেকেই খুলনার সঙ্গে সারা দেশের ট্রেন যোগাযোগ বন্ধ হয়ে গেছে।

স্টেশন মাস্টার জানান, আজ সকাল সাড়ে ৮টার দিকে উদ্ধারকারী ট্রেন জেটিকল ঘটনাস্থলে পৌঁছেছে। উদ্ধার কাজ চলছে। ৩-৪ ঘণ্টার মধ‌্যে ট্রেন যোগাযোগ স্বাভাবিক হয়ে যাবে।

পূর্ববর্তী সংবাদ

সিরিয়ায় রাশিয়ার বিমান হামলা, নিহত ৫০

সিরিয়ার উত্তরাঞ্চলে বিদ্রোহী নিয়ন্ত্রিত ইদলিব প্রদেশে বিমান হামলা চালিয়েছে রাশিয়া। ওই হামলায় তুরস্ক সমর্থিত ৫০ জনেরও বেশি মিলিশিয়া যোদ্ধা নিহত হয়েছে। হামলায় আরো অনেকে আহত হয়েছে। রাশিয়ার ওই হামলার কারণে ওই অঞ্চলে সহিংসতা আরো বাড়তে পারে বলে আশঙ্কা করা হচ্ছে।

ফায়লাক আল-শাম নামের একটি ইসলামিস্ট গ্রুপের প্রশিক্ষণ ঘাঁটি লক্ষ্য করে ওই হামলা চালিয়েছে রাশিয়া। এই হামলা ইদলিবের যুদ্ধবিরতিকে ঝুঁকিপূর্ণ করে তুলেছে। রাশিয়া ও তুরস্কের মধ্যস্থতা ও পর্যবেক্ষণে যুদ্ধবিরতি চলছিলো ইদলিবে। এই হামলার কারণে সেটি লঙ্ঘন করা হলো।

ব্রিটেনভিত্তিক পর্যবেক্ষক সংস্থা সিরিয়ান অবজারভেটরি ফর হিউম্যান রাইটস জানিয়েছে, ওই হামলায় অন্তত ৭৮ জন নিহত হয়েছে। হামলায় আহতদের মধ্যে কয়েকজনের অবস্থা গুরুতর বলেও জানিয়েছে সংস্থাটি। এছাড়া হামলায় মৃতের সংখ্যা আরো বাড়তে পারে বলেও আশঙ্কা প্রকাশ করা হয়েছে।

হিউম্যান রাইটস আরো জানিয়েছে, গত মার্চ মাসে ইদলিবে যুদ্ধবিরতি কার্যকর হওয়ার পর থেকে উত্তর-পশ্চিমের হারেম অঞ্চলে এখন পর্যন্ত হওয়া সবচেয়ে মারাত্মক হামলা এটি।

ওই যুদ্ধবিরতির পর ইদলিবে হামলা বন্ধ রাখে সিরিয়ার সরকারি বাহিনী। ফলে ওই অঞ্চলের নিয়ন্ত্রণ ছিলো তুরস্ক সমর্থিত মিলিশিয়াদের হাতে। ওই অঞ্চলে যুদ্ধ ও সংঘাতের কারণে ১০ লাখের বেশি মানুষ বাস্তুহারা হয়ে পড়েছে।

প্রতিক্রিয়া মন্তব্য শেয়ার