আজ ঐতিহাসিক আন্তর্জাতিক অভিবাসী দিবস। অভিবাসী কর্মীদের মর্যাদা ও অধিকার সমুন্নত রাখার প্রয়াসে প্রতিবছর ১৮ ডিসেম্বর আন্তর্জাতিক অভিবাসী দিবস পালিত হয়।

‘দক্ষ হয়ে বিদেশ গেলে, অর্থ সম্মান দুই-ই মেলে’- প্রতিপাদ্যকে সামনে রেখে প্রতি বছরের মতো বাংলাদেশেও বিভিন্ন আয়োজনে দিবসটি পালন করা হচ্ছে। প্রবাসী কল্যাণ ও বৈদেশিক কর্মসংস্থান মন্ত্রণালয়ের উদ্যোগে দিবসটি পালন করা হচ্ছে।

দিবসটি উপলক্ষে রাষ্ট্রপতি মো. আবদুল হামিদ ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা, প্রবাসী কল্যাণ ও বৈদেশিক কর্মসংস্থান বিষয়ক মন্ত্রী ইমরান আহমদ পৃথক বাণী দিয়েছেন।

বাংলাদেশের প্রবাসী আয়ের ক্রমবর্ধমান ধারাকে অব্যাহত রাখতে এবং সুষ্ঠু, নিরাপদ ও নিয়মিত অভিবাসন নিশ্চিত করার জন্য সরকার দক্ষতা উন্নয়নের উপর সর্বাধিক গুরুত্ব আরোপের প্রেক্ষিতে এ বছরের প্রতিপাদ্য নির্বাচন করা হয়েছে।

আন্তর্জাতিক অভিবাসী দিবস প্রতি বছর ১৮ই ডিসেম্বর জাতিসংঘের সকল সদস্যভূক্ত দেশে পালিত হয়ে আসছে। জাতিসংঘের সাধারণ পরিষদ ৪ ডিসেম্বর, ২০০০ সালে দিনটি বিশ্বব্যাপী উদযাপনের সিদ্ধান্ত নেয়। বিশ্বের বিভিন্ন প্রান্তে ছড়িয়ে-ছিটিয়ে থাকা ব্যাপক হারে অভিবাসন ও বিপুলসংখ্যক অভিবাসীদের স্বার্থ-সংশ্লিষ্ট বিষয়াদিকে ঘিরেই এ দিবসের উৎপত্তি।

এদিকে এই দিনটি উপলক্ষে সরকারী বেসরকারী সংগঠন সংস্থার পাশাপাশি পৃথক পৃথক বানী দিয়েছে বিভিন্ন কমিউনিটি সংগঠন, শুভেচ্ছা জানিয়েছে জালালাবাদ এসোসিয়েশন মালয়েশিয়া, সিলেট ডিভিশনাল এসোসিয়েশন, সিলেট ডায়নামিক ফেডারেশন, সিলেট ওয়েলফেয়ার এসোসিয়েশন অব মালদ্বীপ, সহ বিশ্বের বিভিন্ন দেশে অবস্থানরত বাংলাদেশের বিভিন্ন সামাজিক সংগঠনের নেতৃবৃন্দ অপর বার্তায় বিশ্বের সকল প্রবাসীদের অভিনন্দন ও শুভেচ্ছা জানিয়েছেন গোয়াইনঘাট প্রবাসী পরিষদের সভাপতি ও ব্রিটিশ কনজার্ভেটিভ পার্টি’র নেতা আলহাজ্ব হাফেজ আব্দুল মুবিন।