সাবেক সেনাপ্রধান প্রায়ুথ চান-ওচাকে প্রধানমন্ত্রী হিসেবে বেছে নিয়েছে থাইল্যান্ডের নতুন পার্লামেন্ট। তিনি সাবেক প্রধানমন্ত্রী থাকসিন সিনাওয়াত্রার বোন ইংলাক সিনাওয়াত্রাকে ক্ষমতা থেকে উৎখাত করে ২০১৪ সালে ক্ষমতায় বসেন।

বুধবার (৫ জুন) উভয় কক্ষের যৌথ অধিবেশনে ৫ বছর ধরে দেশ শাসন করা প্রায়ুথ প্রধানমন্ত্রী হতে প্রয়োজনীয় ৩৭৫ ভোট নিশ্চিত করেন বলে জানিয়েছে বার্তা সংস্থা রয়টার্স।

সামরিক জান্তার আমলে হওয়া থাইল্যান্ডের নতুন সংবিধান অনুযায়ী উচ্চকক্ষের ২৫০ আসনে কারা সাংসদ হবেন তা সেনাবাহিনীরই ঠিক করার কথা।

নিম্নকক্ষে প্রায়ু্থের দল সংখ্যাগরিষ্ঠতা না পেলেও উচ্চকক্ষের প্রতিনিধিদের সমর্থনে তিনিই প্রধানমন্ত্রী হতে যাচ্ছেন বলে আগেই ধারণা করা হচ্ছিল।

প্রায়ুথ চান-ওচার অধীনে থাইল্যান্ডে এ বছরের ২৪ মার্চ অনুষ্ঠিত সাধারণ নির্বাচনের প্রায় ১০ সপ্তাহ পর পার্লামেন্টে নতুন প্রধানমন্ত্রী নির্বাচিত হলেন তিনি।

বিরোধীরা অবশ্য শুরু থেকেই থাইল্যান্ডের নতুন সংবিধান নিয়ে তাদের অসন্তোষের কথা বলে আসছিলেন। সামরিক জান্তার শাসন দীর্ঘায়িত করার লক্ষ্যেই এ সংবিধান ও নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়েছে বলেও দাবি তাদের।

নতুন প্রধানমন্ত্রীকে থাইল্যান্ডে কয়েক দশক ধরে চলে আসা রাজনৈতিক অস্থিরতা মোকাবেলার পাশাপাশি অর্থনৈতিক মন্দা কাটাতেও ভূমিকা রাখতে হবে।