আগরতলা ঢাকা সড়কে যাত্রীবাহী বাস বেশ কয়েকবছর আগে থেকে চলাচল শুরু হয়েছে, এবার ত্রিপুরা চট্টগ্রামের মধ্যে যাত্রীবাহী বাস চলাচলের উদ্যোগ নিচ্ছে ত্রিপুরা সরকার।

দক্ষিণ ত্রিপুরার প্রান্তিক মহকুমা সাব্রুমে ফেনি নদীর উপর মৈত্রীসেতু নির্মাণের কাজ চলছে, বাংলাদেশের প্রধান বানিজ্যবন্দর চট্টগ্রামের বন্দর কে ব্যবহার করে গোটা দক্ষিণপূর্ব এশিয়ার প্রধান বানিজ্য দুয়ার হতে চলছে সাব্রুম। এই বানিজ্যদুয়ারের পাশাপাশি ভারত বাংলাদেশের মধ্যে পারস্পরিক সম্পর্কর নিবিড়তা আরো গাঢ় করার লক্ষে এই সাব্রুম দিয়েই বাংলাদেশের চট্টগ্রামের সাথে যাত্রীবাহী বাস সার্ভিস শুরু করার চিন্তাভাবনা শুরু করেছে ত্রিপুরা সরকার।

ত্রিপুরা ও বাংলাদেশের মধ্যে রয়েছে নাড়িরটান আত্মিক সম্পর্ক, ফলে সাব্রুম দিয়ে যদি এই বাস চলাচল শুরু করা যায় তাহলে তাহলে দু-দেশের মধ্যে সম্পর্কের নিবিড়তা আরো বৃদ্ধি পাবে। সাব্রুমের ফেনি নদী থেকে চট্টগ্রামের দুরত্ন ৭০কিলোমিটারের মত। আর চট্টগ্রাম বন্দরের দুরত্ন ৭৮কিলোমিটারের মত। ইতিমধ্যে সরকার আন্তর্জাতিক চেকপোস্ট করার চুড়ান্ত সিদ্ধান্ত নিয়েছে।

সাব্রুমে তাছাড়া আন্তর্জাতিক ট্রাক টার্মিনাল করার জন্য ১০একর জায়গা অধীগ্রহনের পাশাপাশি আন্তর্জাতিক বাস টার্মিনাল করার জন্যও ৫একর জায়গা নির্বাচন করেছে। বর্তমানে ফেনী নদীর উপর মৈত্রীসেতু নির্মাণের কাজ বেশ জোরকদমে চলছে, আশা করা যায় চলিত বৎসের শেষ সময়ের সেতু নির্মাণের কাজ শেষ হয়ে যাবে,তারপরই বানিজ্যবন্দরের সাথে একই সড়ক ধরে  ছুটবে যাত্রীবাহী বাস সেই প্রতিক্ষার সোনালী প্রহর গুনছে রাজ্যবাসী।