ডুমুরিয়ার আটলিয়ায় বিষ মুক্ত সবজি চাষে নবদিগন্তের সূচনায় সেক্সফেরোমন ফাঁদ

Img

ডুমুরিয়ার আটলিয়ায় বিষ মুক্ত সবজি উৎপাদনে নব দিগন্তের সূচনায় ব্যাবহার করা হচ্ছে সেক্স ফেরোমন ফাঁদ।

এ পদ্ধিতি ব্যাবহার করে সবজির বালাই দমনে সফল পাচ্ছেন সবজি চাষীরা। অপরদিকে সবজিতে রাসায়ানি বিষ প্রয়োগের মাত্রা হ্রাস পাবে । মানুষের দৈন্দিন খাদ্যের মধ্যে সবজি একটি আবশিক উপাদান। মানব দেহের স্বাস্থ্য সু রক্ষায় বিষ মুক্ত সবজি উৎপাদন যথেষ্ঠ গুরত্ব পূর্ণ।

জানাগেছে, বিষ মুক্ত সবজি উৎপাদনের লক্ষে ডুমুরিয়া উপজেলা কৃষি অধিদপ্তর সদা সচেষ্ট কৃষকদের পরামর্শ দিতে। এ পদ্ধিতি ব্যাবহার করে সফল হচ্ছেন,কৃষক সুরেশ্বর সহ সবজি চাষীরা। ডুমুরিয়া উপজেলার আটলিয়া ইউনিয়নের বরাতিয়া ব্লকের গোবিন্দকাটি গ্রামের বর্গাচাষী কৃষক সুরেশ্বর মল্লিক ৫০ শতাংশ জমিতে দেশীয় মাকড়া উন্নত জাতের বেগুনের আবাদ করেছেন।

কৃষক ও সংশ্লিষ্ট সুত্র জানায়, রাসায়ানি সার কীটনাশক ব্যাতিরেকে জৈব সার এবং বালাই দমনে সেক্সফেরোমন ফাঁদ ব্যাবহার করে বিষ মুক্ত সবজি চাষে এক নবদিগন্তের সূচনা করেছেন।

জানাযায়, সেক্সফেরোমন ফাঁদের সাদা টপের উপরের অংশে স্ত্রী পোকার হরমন গন্ধি যুক্ত পাউডার ঝুলিয়ে দেয়া এবং নিচের অংশে ডিটারজেন্ট মিশ্রিত পানি থাকে সে আর্কষনে পুরুষ পোকা গুলো ফাঁদের মধ্যে পড়ে মারা য়ায়। ফলে বালাইয়ের বংশ বিস্তার করতে পারে না। এতে রাসায়ানি বিষ প্রয়োগমাত্রা কম প্রয়োজন হয়।

উপজেলা কৃষি অফিসার মোঃ মোসাদ্দেক হোসেন বলেন, বিষ মুক্ত সবজি চাষে সেক্সফেরোমন ফাঁদ ব্যাবহার অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ। তাছাড়া বর্গাচাষী কৃষক সুরেশ্বর একজন সফল কৃষক। কৃষি ক্ষেত্রে বিশেষ অবদান রাখায় তিনি ২০১৬ সালে বঙ্গবন্ধু জাতীয় কৃষি পুরস্কারে ভূষিত হয়েছেন।

প্রতিক্রিয়া মন্তব্য শেয়ার