ডিসপ্লেতে নতুন প্রযুক্তি, ফোনের দাম নামবে অর্ধেকে

মোঃ সোহরাব হোসেন ভুইয়া (মিঠু) | ডেস্ক রিপোর্ট : ডিসেম্বর ১৮, ২০১৮

বিজ্ঞানীরা মোবাইল ডিসপ্লে নিয়ে প্রতিনিয়ত গবেষণা করে যাচ্ছেন। ডিসপ্লেকে আরও উন্নত করতে ইতোমধ্যে যোগ হয়েছে থ্রিডি ডিসপ্লে। এবার যুক্তরাষ্ট্রের বিজ্ঞানীরা এমন একটি যৌগ বানিয়েছেন যা একইসঙ্গে স্বচ্ছ এবং বিদ্যুৎ পরিবাহী। নতুন এই যৌগ দিয়ে বড় আকারের ডিসপ্লে, স্মার্ট উইন্ডো, টাচস্ক্রিন এবং সোলার সেল তৈরি করা যাবে যা হবে আরো সাশ্রয়ী এবং কার্যকরী।

বর্তমানে ৯০ শতাংশ মোবাইলের ডিসপ্লে ইন্ডিয়াম টিন অক্সাইড (আইটিও) নামের একটি স্বচ্ছ বস্তু থেকে তৈরি করা হয়। গত ৬০ বছর ধরে ডিসপ্লের দুনিয়ায় দাপটের সাথে টিকে আছে এটি। কিন্তু গত এক দশকে যোগানের তুলনায় চাহিদা অতিমাত্রায় বেড়ে যাওয়ায় ইন্ডিয়ামের দাম নাটকীয়ভাবে বৃদ্ধি পেয়েছে। এ কারণে কোম্পানিগুলো এর বিকল্প পদ্ধতি খুঁজছে শুরু করেছেন। কিন্তু স্বচ্ছতা একইসঙ্গে তড়িৎ পরিবাহি এবং সস্তা এমন কোনো উপাদান খুঁজে পাওয়া যাচ্ছিল না। অবশেষে পেনিসেলভানিয়া স্টেট ইউনিভার্সিটির সহকারী অধ্যাপক অ্যাঞ্জেল হার্বার্টের নেতৃত্বে একদল গবেষক উদ্ভাবন করলেন নতুন এক যৌগ।

এই যৌগ দিয়ে ১০ ন্যানোমিটার পাতলা ফিল্ম তৈরি করেছেন তিনি। এটি অত্যন্ত স্বচ্ছ এবং খুব ভালো বিদ্যুৎ পরিবাহী। একে বলছেন, ‘কো-রিলেটেড মেটালস’ বা সহসম্পর্কিত ধাতু। শুধু তা-ই নয়, কপার, সোনা, রুপা, অ্যালুমিনিয়ামসহ অধিকাংশ ধাতুর মধ্য দিয়ে ইলেকট্রন প্রবাহিত হয় গ্যাসের মতো সেখানে কো-রিলেটেড মেটাল যেমন : স্ট্রনটিয়াম ভেনাডেট এবং ক্যালসিয়াম ভেনাডেটের মধ্যে দিয়ে ইলেকট্রন প্রবাহিত হয় তরলের মতো। তাদের দাবি, বস্তুটি অতি উচ্চমাত্রায় স্বচ্ছ এব তড়িৎ পরিবাহী।বর্তমানে ইন্ডিয়ামের দাম প্রতি কিলোগ্রামে ৭৫০ ডলার। আর প্রতিগ্রাম ভেনাডিয়ামের দাম পড়ছে প্রতি কিলোগ্রামে ২৫ ডলার।

অর্থাৎ ইন্ডিয়ামের দামের ৫ শতাংশ মূল্যে ভেনাডিয়াম পাওয়া যাচ্ছে। আবার স্ট্রনটিয়াম ভেনাডিয়ামের চেয়েও সস্তা। গবেষকরা এই ধাতু সৌর কোষেও ব্যবহারের চেষ্টা করছেন।নতুন এই ধাতুটি যদি পরিপূর্ণভাবে কাজ করে ভবিষ্যৎ মোবাইল ফোনগুলোর দাম কমে আসবে অর্ধেকেরও নিচে।এই গবেষণাপত্রটি ‘ন্যাচার ম্যাটারিয়ালস’ সাময়িকীতে প্রকাশিত হয়েছে।

তথ্য:

বিভাগ:

প্রকাশ: ডিসেম্বর ১৮, ২০১৮

প্রতিবেদক: মোঃ সোহরাব হোসেন ভুইয়া (মিঠু)

পড়েছেন: 270 জন

মন্তব্য: 0 টি