ট্রেনের নিচে মাথা দেওয়া যুবকের চিরকুটের লেখাগুলো যে কারো চোখে জল আনবে

Img

চিরকুটে জীবনের সব কষ্টের কথা লিখে ট্রেনের নিচে প্রাণ দিলেন এমরুল হাসান নামে এক যুবক। সম্প্রতি রাজশাহী নগরীর বিলশিমলা বন্ধগেট এলাকা থেকে তার খণ্ডিত মরদেহ উদ্ধার করে রেলওয়ে পুলিশ।

এমরুল হাসান চাঁপাইনবাবগঞ্জের গোমস্তাপুর উপজেলার বোয়ালিয়া ইউপির ঘাটনগর ফিটু মিয়ার ছেলে।

এমরুলের পকেট থেকে সুইসাইড নোট উদ্ধার করেছে পুলিশ। সুইসাইড নোটে এমরুল লিখেছেন, জালাল, কালাম ও তাদের ছেলে রানা আমার হাত ও পা ভেঙেছে। এই কষ্টে আমি জ্বলে পুড়ে যাচ্ছিলাম।

এই চিরকুটে তিনি উল্লেখ করেছেন কে তার কাছে কত টাকা পাবে। মৃত্যুর পর কোন মোবাইল নম্বরে ফোন করে খবর দেয়া যাবে সে কথাও চিরকুটে লেখা আছে। তার মরদেহ কোন কবরস্থানে দাফন করা হবে সেটিও লেখা হয়েছে।

দুটি চিরকুটের একটিতে এমরুল লিখেছেন, আমার জীবনে আমার আপনজন আমার বেটি (মেয়ে) ও স্ত্রী। তিনজন আমার প্রিয়। আমাকে আর ভালো লাগছে না। আমার লেখা কাগজ দুইটা আমার স্ত্রীকে দেবেন। কাগজের ফটোকপি পুলিশকে দেবেন। কাগজের মেইন কপি দুইটা আমার স্ত্রীকে দেবেন।

প্রতিক্রিয়া মন্তব্য শেয়ার