টেনশনে রাতে ঘুমাতে পারেননি মমিনুল হক

Img
ফাইল ছবি

স্বাগতিক নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে প্রথমবারের মতো জয় তুলে নিয়েছে বাংলাদেশ দল। টেস্টের পুরো পাঁচ দিনেই আধিপত্য বিস্তার করে ঐতিহাসিক এ তুলে নিয়েছেন মমিনুলরা।

টাইগাররা এ জয়ের পথ রচনা হয়েছিল মূলত চতুর্থ দিনেই। ইবাদতে চার উইকেট তুলে নেওয়ায় জয়ের সুবাস পাচ্ছিল বাংলাদেশ। নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে প্রথম জয়ের উত্তেজনায় আগের রাতে ঘুমাতে পারেননি টাইগার অধিনায়ক মমিনুল হক।

প্রথম ইনিংসে দুর্দান্ত ব্যাটিং করায় চতুর্থ দিন শেষে ১৩০ রানে লিড পায় বাংলাদেশ। বড় রানের লিডের বিপরীতে চতুর্থ দিন শেষে ৫ উইকেট হারিয়ে ব্যাকফুটে চলে যায় নিউজিল্যান্ড। তবে জয় পাওয়া নিয়ে টেনশনে ছিলেন টাইগার অধিনায়ক।

ম্যাচ শেষে সংবাদ সম্মেলনে মমিনুল বলেন, “সত্যি কথা, কালকে (মঙ্গলবার) রাতে রুমে যাওয়ার পরে আমি ঘুমাতে পারি নাই। কারণ, যখনি দল পাঁচটা উইকেট পরে গেল, তখন আমার মনে হচ্ছিল ওরা (নিউজিল্যান্ড) বেশি রানও করতে পারে, আবার কম রানও করতে পারে। তো এই টেনশনে আমার ঘুম-টুম কম ছিল।”

এর আগে ক্রিকেটে সব ফরম্যাট মিলে নিউজিল্যান্ডের মাটিতে ৩২টি ম্যাচ খেললেও কোন জয় ছিল না বাংলাদেশের। যার মধ্যে ৯টি টেস্ট ছিল। সর্বশেষ ১০তম টেস্ট ম্যাচে কাঙ্ক্ষিত জয়ের দেখা পেলেন টাইগাররা। কিউইদের মাটিতে প্রথম জয়ের পাশাপাশি দুই ম্যাচ সিরিজে ১-০ ব্যবধানে এগিয়ে গেল টাইগাররা।

নিজে টেনশনে রাতে ঘুমাতে না পারলেও মাঠে তার ছিটেফোটাও পড়তে দেননি মমিনুল হক। নিজের মাথা ঠান্ডা রেখে দলের বাকিদের মাঝেও যেন উত্তেজনা বিরাজ না সে বিষয়ে খেয়াল রেখেছেন তিনি।

মমিনুল হক বলেন, ‍“প্রথম পাঁচদিন আমরা রেজাল্ট নিয়ে চিন্তা করি নাই। নিউজিল্যান্ডের মতো জিতবো, এটা আসলে আগেই চিন্তা করে না কেউ। আমি বললে হয়তো বলবে, পাগল হয়ে গেছে লোকটা। আমাদের সবার ভিতরে একটা বিষয় ছিল যে, আমরা ভালো একটা প্রিপারেশন নেই এবং আমাদের প্রেসেস অনুযায়ী খেলি।”

তিনি বলেন, “বোলারদের প্রতি মেজেজ ছিল, আমরা সর্বশেষ চারদিন যে ওয়েতে বল করেছিলাম, কোন উইকেটের দিকে যাব না, আমাদের প্রেসেস অনুযায়ী বল করবো। আমাদের প্ল্যান ছিল গত চারদিনের মতো বল করা, উইকেটে না গিয়ে রান চেক করা। এর ভেতর রেজাল্ট আসলে আসবে, না আসলে নেই।”

“আমরা অনেক বেশি প্রোসেসের উপর ফোকাস ছিলাম, রেজাল্টের উপর ছিলাম না। আমি সব সময় প্রোসেসে বিশ্বাস করি, প্রোসেস যদি ঠিক থাকে তাহলে ৭০-৮০ পারসেন্ট সলভড হয়ে যায়।” যোগ করেন তিনি।

মাঠের বেশি এক্সপেক্টেশন না থাকায় জয় পেতে হেল্প হয়েছে বলে জানান টাইগার অধিনায়ক। তিনি বলেন, “এটা (এক্সপেক্টেশন) আমাকে বিরাট হেল্প করেছে। এখন আবার আপনারা (সাংবাদিক) এটা এক্সপেক্টেশন কইরেন না যে, আমার দ্বিতীয় টেস্টও জিতবো।”

তিনি বলেন “আমার কাছে মনে হয় যে, এতো এক্সপেক্টেশন না করাই ভালো। আমার কাছে সবচেয়ে ভালো যে, আপনাদেরও কোন এক্সপেক্টেশন ছিল না। এটা আলহামুদুলিল্লাহ, আল্লাহ কাছে অনেক শুকরিয়া যে, আপনারা এতো বেশি আশা করবেন না আমাদের কাছে। আবার এটা আশা কইরেন না যে, দুই বছরের মধ্যে আমরা পাঁচ নম্বর দল (টেস্টে) হয়ে যাব।”

প্রতিক্রিয়া মন্তব্য শেয়ার