এপ্রিলের প্রথম সপ্তাহে সিরিজের দ্বিতীয় টেস্ট ও একমাত্র ওয়ানডে খেলতে পাকিস্তান সফর করবে বাংলাদেশ। ম্যাচগুলো হবে পাকিস্তানের সিন্ধ প্রদেশের রাজধানী করাচিতে। কিন্তু এই করাচি শহরে শনাক্ত হয়েছে প্রাণঘাতী করোনাভাইরাসের উপস্থিতি। তাই এখন থেকেই বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড (বিসিবি) চিন্তিত এই সফর নিয়ে।

এই সিরিজ ঘিরে এখন বিরাজ করছে করোনাভাইরাস আতঙ্ক। করাচির স্কুল-কলেজ এখন বন্ধ রয়েছে। এই ভাইরাসে আক্রান্ত হওয়ার ভয়ে সিটিয়ে গেছেন করাচিবাসী। এমন দুর্যোগের মধ্যেই বাংলাদেশ ক্রিকেট দল সফরে যাবে কী না প্রশ্ন উঠছে। ইতিমধ্যে করোনাভাইরাসের আতঙ্কে বাধার মুখে পড়ার আশঙ্কা রয়েছে ফুটবলের ইউরো ও টোকিও অলিম্পিক আসরের।

বিসিবির মিডিয়া কমিটির চেয়ারম্যান মুঠোফোনে জানিয়েছেন খুব শীঘ্রই পাকিস্তান ক্রিকেট বোর্ডের সঙ্গে কথা বলবেন।

তিনি বলেন, ‘আমরা খুব শিগগিরই তাদের সঙ্গে কথা বলব। ক্রিকেটারদের নিরাপত্তা ও সুস্থতা সবার আগে। দেখা যাক আলোচনার পর কী হয়।’

ফেব্রুয়ারির শেষ দিকে বাংলাদেশ রাওয়ালপিনন্ডিতে প্রথম ধাপে গিয়ে তিন ম্যাচের টি-টোয়েন্টি সিরিজ খেলে এসেছে। টি-টোয়েন্টিতে ধবল ধোলাই হয়ে ফিরেছেন মাহমুদউল্লাহরা। দ্বিতীয় ধাপে ফেব্রিয়ারির শুরুতে সিরিজের প্রথম টেস্ট খেলা অনুষ্ঠিত হয় ইসলামাবাদে। ওই ম্যাচে টাইগাররা হেরেছে ইনিংস ব্যবধানে।