ঝিকরগাছায় ট্রাকের ধাক্কায় মোটরসাইকেল আরোহী নিহত

Img

যশোরের ঝিকরগাছায় মাটির ট্রাকের ধাক্কায় মোটরসাইকেল আরোহী আব্দুর রহমান (৩০) নিহত হয়েছে।

রোববার সকালে ঝিকরগাছা-ছুটিপুর সড়কের মোল্লা বিক্সের সামনে এদুর্ঘটনা ঘটে।

জানাগেছে, সকাল সাড়ে ১০ টার দিকে বিকাশ কোম্পানীর কর্মচারী আব্দুর রহমান ঝিকরগাছা থেকে ছুটিপুর যাচ্ছিলেন। ঘটনাস্থলে পৌছলে মোটরসাইকেল আরোহী আব্দুর রহমান একটি মাছের ট্রাক ওভারটেক করতে গেলে বিপরীত দিক থেকে আসা দ্রুতগামীর একটি ইটভাটার ট্রাক সজোরে ধাক্কা দিলে আব্দুর রহমান মারাত্বকভাবে জখম হয়। স্থানীয়রা দ্রুত তাকে ঝিকরগাছা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাঁর মৃত ঘোষনা করে।

উল্লেক্ষ্য, আব্দুর রহমান মনিরামপুর উপজেলার মশ্মিমনগর ইউনিয়নের রামপুর গ্রামের জগোবন্ধু রায় এর ছেলে। সে বেশ কয়েকবছর পূর্বে মুসলমান ধর্ম গ্রহণ করেছিল বলে জানাগেছে।

পূর্ববর্তী সংবাদ

মধু, চুইঝাল ও বাগদা চিংড়ি খুলনার ভৌগোলিক নির্দেশক পণ্য

খুলনার বাগদা চিংড়ির যেমন বিশ্বব্যাপী সুনাম আছে তেমনি এ এলাকার চুইঝালের রয়েছে ব্যাপক কদর। আবার দেশের সর্বত্র সুন্দরবনের মধুর বিস্তর চাহিদা আছে। এই তিনটি পণ্যকে খুলনার ভৌগোলিক নির্দেশক (জিআই) পণ্য হিসেবে নিবন্ধনের উদ্যোগ দেওয়া হবে।

রোববার বিকেলে খুলনা সার্কিট হাউস সম্মেলনকক্ষে আয়োজিত ‘ভৌগোলিক নির্দেশক পণ্য নিবন্ধনঃ সম্ভাবনা ও চ্যালেঞ্জ’ শীর্ষক সেমিনারে এ প্রস্তাব দেন অংশগ্রহণকারীরা।

শিল্প মন্ত্রণালয়ের পেটেন্ট, ডিজাইন ও ট্রেডমার্কস অধিদপ্তর (ডিপিডিটি) ও খুলনা জেলা প্রশাসন আয়োজিত এ সম্মেলনে প্রধান অতিথি ছিলেন জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ হেলাল হোসেন। সভাপতিত্ব করেন ডিপিডিটির ডেপুটি রেজিস্ট্রার মো. ওবায়দুর রহমান। জিআই পণ্য নিবন্ধনের সমস্যা ও সম্ভাবনা বিষয়ে উপস্থাপনা করেন ডিপিডিটির উপ-রেজিস্ট্রার মো. আজিম উদ্দিন।

সেমিনারে জানানো হয়, কৃষি, প্রাকৃতিক এবং তৈরি করা পণ্যকে একটি নির্দিষ্ট অঞ্চলের জিআই পণ্য হিসেবে নিবন্ধনের সুযোগ আছে। জিআই পণ্য হিসেবে নিবন্ধিত পণ্য কেবল নিবন্ধিত ব্যক্তি, সমিতি বা প্রতিষ্ঠান সরবরাহ করতে পারবে। ফলে পণ্যের গুণগতমান নিশ্চিত হবে। কেউ ভেজাল বা নকল পণ্য উৎপাদন করতে পারবেন না। নকল করলে আইন অনুয়ায়ী শাস্তি পেতে হবে। এছাড়া নিবন্ধিত পণ্য এলাকার অর্থনৈতিক কর্মকাণ্ডকে বেগবান করবে, বিনিয়োগ বাড়াবে, বিদেশেও রপ্তানি করা যাবে।

সভায় সিভিল সার্জন ডা. সুজাত আহমেদ, জেলা পরিষদের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা মো. আছাদুজ্জামান, অতিক্তি জেলা প্রশাসক মো. জিয়াউর রহমানসহ জেলার বিভিন্ন সরকারি দপ্তরের কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।

 

প্রতিক্রিয়া মন্তব্য শেয়ার