জামের যত গুণ

Img

সাধারণত জ্যৈষ্ঠ-আষাঢ় মাস জামের মৌসুম। এই সময়টাতেই গাছে গাছে জাম পাকতে শুরু করে। গ্রীষ্মকালীন এই ফল পুরো বর্ষাজুড়েই পাওয়া যায় বাজারে। গ্রামাঞ্চলে তো কথাই নেই। সহজলভ্য এই ফলটিতে রয়েছে প্রচুর পুষ্টিগুণ। 

জামে শর্করার পরিমাণ ১৫ দশমিক ৫৬ গ্রাম, পটাশিয়াম ৭৯ মিলিগ্রাম, ফসফরাস ১৭ মিলিগ্রাম, ম্যাগনেশিয়াম ১৫ মিলিগ্রাম, ক্যালসিয়াম ১৯ মিলিগ্রাম ও সোডিয়াম ১৪ গ্রাম পুষ্টি উপাদান রয়েছে। এছাড়াও জামে থাকে বিভিন্ন রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা।  

জাম খাওয়ার নানা উপকারিতা সম্পর্কে চলুন জেনে নিই একনজরে-
১. জামে প্রচুর পরিমাণ ভিটামিন ‘সি’ থাকায় জ্বর, সর্দি ও কাশি থেকে সুরক্ষা দিতে পারে।
২. জাম দাঁত, চুল, ত্বক ও মুখ সুন্দর করে। 
৩. জামে থাকা ক্যালসিয়াম, আয়রন, পটাশিয়াম ও ভিটামিনগুলো শরীরের রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়ায়।
৪. জামে থাকা গ্লুকোজ, ডেক্সট্রোজ ও ফ্রুকটোজ কর্মক্ষমতা বাড়ায় ও শরীর চাঙ্গা রাখে।
৫. জামে থাকা ভিটামিন ‘এ’ চোখ ভালো রাখতে সাহায্য করে।
৬. জাম ক্যান্সারের জীবাণুর বিরুদ্ধে বিশেষত মুখের ক্যান্সার প্রতিরোধে অত্যন্ত কার্যকর।
৭. বর্ষা মৌসুমে প্রতিদিন জাম খেলে রক্তচাপ নিয়ন্ত্রণে থাকে।
৮. জাম খেলে রক্তে হিমোগ্লোবিনের মাত্রা বাড়ে।
৯. জামে থাকা ডায়াটরি ফাইবার কোষ্ঠকাঠিন্য প্রতিরোধ করে।
 

পূর্ববর্তী সংবাদ

প্রেমের সুযোগে একাধিকবার ধর্ষণ ও ভিডিও ধারণ, যুবক গ্রেফতার

প্রথম বার ধর্ষণের পর ভিডিও ধারণ করে সেই ভিডিও দেখিয়ে ব্ল্যাকমেইল করে দ্বিতীয়বার এবং তৃতীয়বার ধষণের চেষ্টা চালিয়েছিল সিরাজুল ইসলাম (৩০)নামে এক প্রেমিক। তৃতীয়বার ধর্ষণ করতে না পেরে সেই ভিডিও সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম ফেসবুকে পোস্ট করে সে। এই ঘটনায় প্রেমিকার মা ফুলবাড়ী থানায় ধর্ষণের মামলা করলে পুলিশ সিরাজুলকে গ্রেফতার করে।

গ্রেফতার সিরাজুল ইসলাম দিনাজপুরের ফুলবাড়ী উপজেলার ৭নং শিবনগর ইউনিয়নের লক্ষণপুর পাঠকপাড়া গ্রামের আফজাল মন্ডলের ছেলে। সে পেশায় একজন মুদি দোকানি।

শনিবার (২৭ জুন) ভোরে ধর্ষক সিরাজুল ইসলামকে নিজ বাড়ি থেকে গ্রেফতার করে ফুলবাড়ী থানা পুলিশ। দুপুরে তাকে কোর্টে চালান দেয়া হয়েছে।

পুলিশ জানায়, প্রেমের সুযোগ নিয়ে লক্ষণপুর পাঠকপাড়ার নবম শ্রেণির একছাত্রীর বাড়িতে যায় সিরাজুল ইসলাম। এ সময় তাকে বাড়িতে একা পেয়ে ধষর্ণ করে কৌশলে ভিডিও ধারণ করে। ওই ভিডিও দেখিয়ে সিরাজুল ইসলাম দ্বিতীয়বারও তাকে ধষর্ণ করে। তৃতীয়বার ধর্ষণ করতে গেলে মেয়েটি বুঝতে পারে ভিডিও দেখিয়ে তাকে ব্ল্যাকমেইল করা হচ্ছে। ফলে সে বাধা দেয়। এতে সিরাজুল ইসলাম ক্ষুব্ধ হয়ে ধর্ষণের ভিডিও ফেসবুকে ছেড়ে দেয়।

বিষয়টি জানতে পেরে ওই ছাত্রীর মা শুক্রবার রাতে ফুলবাড়ী থানা পুলিশকে অবগত করেন। পরে পুলিশ অভিযান চালিয়ে ধর্ষক সিরাজুল ইসলামকে গ্রেফতার করে।

ফুলবাড়ী থানার ওসি মো. ফখরুল ইসলাম বিষয়টি নিশ্চিত করে বলেন, শনিবার গ্রেফতারকৃত সিরাজুল ইসলামকে কোটে পাঠানো হয়। বিচারক জামিন না মঞ্জুর করে জেল হাজতে পাঠিয়েছেন। ভিকটিমকে পরীক্ষার জন্য দিনাজপুরের এম আব্দুর রহিম মেডিকেল কলেজের ফরেন্সিক বিভাগে পাঠানো হবে।

প্রতিক্রিয়া মন্তব্য শেয়ার