জর্ডানে ডাস্টবিনে বাংলাদেশি গৃহকর্মীর লাশ

Img

শ্রমিক ভিসায় সৌদি যাওয়া এক বাংলাদেশী নারীর মরদেহ মিলেছে জর্ডানের ডাস্টবিনে। ওই নারী শ্রমিকের চুক্তিতে একজন গৃহকর্মী হিসেবে কাজ করতেন সৌদি এক পরিবারে। ওই সৌদি পরিবার তাকে জর্ডানে নিয়ে যাবার পর তার মরদেহ ডাস্টবিনে পাওয়া গেছে।

এ ঘটনায় গভীর উদ্বেগ প্রকাশ করেছেন জাতীয় মানবাধিকার কমিশনের চেয়ারম্যান নাছিমা বেগম। তিনি বলেন, ‘একজন প্রবাসী গৃহকর্মীর এই ধরনের মৃত্যু মানবাধিকারের চরম লঙ্ঘন।’

জাতীয় মানবাধিকার কমিশনের জনসংযোগ কর্মকর্তা ফারহানা সাঈদ স্বাক্ষরিত এক বার্তায় এ তথ্য জানানো হয়েছে।

একটি বেসরকারি টেলিভিশনে প্রকাশিত খবরের বরাতে সংবাদ বার্তায় বলা হয়, জর্ডানে একজন গৃহকর্মীর লাশ ডাস্টবিনে পাওয়া সংক্রান্ত একটি সংবাদের প্রতি জাতীয় মানবাধিকার কমিশনের দৃষ্টি আকৃষ্ট হয়। প্রকাশিত সংবাদে রাষ্ট্রদূত নাহিদা সোবহানের উদ্ধৃতি দিয়ে উল্লেখ করা হয় যে, ‘ডাস্টবিনে যে মেয়েটির মরদেহ পাওয়া গেছে তিনি একজন গৃহকর্মী। ওই নারীর শ্রমিকের চুক্তি ছিল সৌদি আরবে কাজ করার। তিনি যে সৌদি পরিবারে কাজ করতেন, তারা তাকে জর্ডানে নিয়ে এসেছে। স্থানীয় পুলিশ ঘটনার তদন্ত করছে এবং আমরা পুলিশের কাছে তদন্তের অগ্রগতি সম্পর্কে জানতে চেয়েছি।’

এ ঘটনায় কমিশন গভীর উদ্বেগ প্রকাশ করেছে। এ বিষয়ে দোষী ব্যক্তির বিরুদ্ধে যথাযথ আইনি ব্যবস্থা গ্রহণ ও ভিকটিমের পরিবারকে যথাযথ ক্ষতিপূরণের ব্যবস্থা নিতে সচিব, প্রবাসী কল্যাণ ও বৈদেশিক কর্মসংস্থান মন্ত্রণালয়কে পত্র এবং পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের সচিবকে পত্রের অনুলিপি প্রেরণ করা হচ্ছে বলে সংবাদ বার্তায় জানানো হয়।

প্রতিক্রিয়া মন্তব্য শেয়ার