ছাগলের সাথে বিকৃত যৌনাচারের দায়ে পুলিশ কনস্টেবল ক্লোজ

Img

মাঠে বেধে রাখা ছাগীর সাথে বিকৃত যৌনাচার করার অভিযোগে ঝিনাইদহ সদর উপজেলার ডাকবাংলা পুলিশ ক্যাম্পের কনস্টেবল মিজানুর রহমানকে প্রত্যাহার করা হয়েছে। গতকাল দুপুরে তার বিরুদ্ধে ছাগল বলাৎকার করার অভিযোগ ওঠে।

ছাগল মালিক ঝিনাইদহ ডাকবাংলা আব্দুর রউফ ডিগ্রি কলেজ সংলগ্ন মাগুরা পাড়ার মোঃ রুবেলের স্ত্রী মোছাঃ ইয়াসমিন অভিযোগ করেন, “আমি প্রতিদিনের ন্যায় ছাগল খুটি মেরে এসেছিলাম। দুপুর ২ টার দিকে হঠাৎ ছাগলের চিৎকার শুনে আমি ছুটে যায়। গিয়ে দেখি ক্যাম্পের এক পুলিশ আমার ছাগলের সাথে খারাপ কাজে লিপ্ত। সে আমাকে দেখে খুব তাড়াতাড়ি পকেট থেকে মোবাইল ফোন বের করে কানে ধরে কথা বলার ভান করে ক্যাম্পের ভেতর ডুকে পড়ে। সাথে সাথে আমরা ক্যাম্পে যেয়ে বিষয়টা তাদের কাছে জানালে তারা সবাই আমাদের চুপ থাকতে বলে এবং জানান যে, আমরা এর বিচার করবো।

এ বিষয়ে ক্যাম্প ইনচার্জ মোঃ তৌহিদুল ইসলাম বলেন, মিজানকে পুলিশ লাইনে ক্লোজ করা হয়েছে। তবে কি কারণে হয়েছে তা জানি না। ওসি মিজানুর রহমান খান বিষয়টি সম্পর্কে এড়িয়ে যান। অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মিলু মিয়া বিশ্বাসও এ বিষয়ে বলতে বলতে রাজি হননি। এ ব্যাপারে কনস্টেবল মিজানুর রহমানের মুঠোফোনে একাধিকবার ফোন করেও তিনি ফোন রিসিভ করেন নি। তবে এলাকার চেয়ারম্যান কাজী নাজির উদ্দীন ঘটনাটি লোকমুখে শুনেছেন বলে জানান।

 

পূর্ববর্তী সংবাদ

মাদ্রিদে বাঙালি-অবাঙালির মেলবন্ধনে ‘পরবাসে আনন্দের একদিন’

স্পেনের মাদ্রিদে বাংলাদেশসহ বিভিন্ন দেশের প্রবাসীদের অংশগ্রহণে অনুষ্ঠিত হয়েছে পরবাসে আনন্দের একদিন শীর্ষক বিনোদনমূলক এক উৎসব। মাদ্রিদের রানি সুফিয়া জাদুঘর পরিচালনা কমিটির আমন্ত্রণে দ্বিতীয়বারের মতো বাংলাদেশসহ ২৫টি দেশের প্রবাসীরা এ উৎসবে অংশগ্রহণ করেন।

গতকাল শনিবার (২৯ জুন) স্থানীয় সময় বিকেলে জাদুঘরের পার্কে এ উৎসব আয়োজন করা হয়। বিভিন্ন দেশের কয়েক শ প্রবাসী এতে অংশ নেন।

উৎসব চলাকালে প্রবাসীদের শুভেচ্ছা জানিয়ে বক্তব্য দেন জাদুঘরের প্রধান পরিচালক ম্যানুয়েল বোরজ ভিল্লে, পরিচালক মারিয়া , রাফায়েল পিমেণ্টেল, রেড ইন্টার লাভাপিয়েসের সভাপতি মারিয়া খসে তররেস পেরেজ পেপা, ও ভালিয়েন্তে বাংলার সভাপতি মো. ফজলে এলাহী প্রমুখ।

আয়োজনটি উপস্থিত সকলকে কিছুটা সময়ের জন্য হলেও আপ্লুত করে। উৎসবে রানী সুফিয়া মিউজিয়ামের কর্মকর্তাসহ প্রবাসী বাংলাদেশিরা স্বতঃস্ফূর্তভাবে অংশগ্রহণ করেন।

এতে বাংলাদেশের প্রতিনিধিত্ব করে স্পেন সরকারের নথিভুক্ত বাংলাদেশী মানবাধিকার সংগঠন ভালিয়েন্তে বাংলা। বাংলাদেশি কমিউনিটির বিশিষ্টদের মধ্যে ছিলেন ভালিয়েন্তে বাংলার সাধারণ সম্পাদক রমিজ উদ্দিন সরকার, অল ইউরোপ বাংলাদেশ প্রেসক্লাবের যুগ্ম সম্পাদক কবির আল মাহমুদ, লোকমান হাকিম, জুলহাস উদ্দিন,কাওসার আহমদ, সেলিম পারভেজ, নারী নেত্রী বনি নূর ফাতেমা,সাদিয়া তাসনিম তন্নী,তাহমিনা আক্তার,ফারজানা ইয়াসমিন, তানিয়া সুলতানা,সেবানা রহমান নিশাত,রাফিয়া প্রমুখ।

ম্যানুয়েল বোরজ ভিল্লে স্পেনের অর্থনীতিতে প্রবাসীদের অবদানের প্রশংসা ও স্থানীয় আইনের প্রতি শ্রদ্ধা রেখে নিজ নিজ দেশের সম্মান বজায় রাখতে তাদের প্রতি আহ্বান জানান। তিনি প্রতিবছর এরকম আনন্দ আয়োজন করার ইচ্ছে প্রকাশ করেন; যাতে বিভিন্ন দেশের অভিবাসীরা নিজেদের সংস্কৃতি একে অপরের সাথে আদান প্রদান করতে পারেন।

ভালিয়েন্তে বাংলার সভাপতি মো. ফজলে এলাহী বলেন, ভিনদেশিদের কাছে বাঙালির সংস্কৃতির ঐতিহ্য পৌঁছে দেওয়া ও পরিবার পরিজন নিয়ে সবাই একসঙ্গে হওয়ার আনন্দটা সব সময় অন্যরকম।

উৎসবে আফ্রিকান ,এশিয়ান ,আরাবী ও স্প্যানিশ খাবার ও পরিবেশন করা হয়। খাবারের পাশাপাশি ছিল বিভিন্ন দেশের সাংস্কৃতিক পরিবেশনা। বাংলাদেশী সংগীত পরিবেশন করেন শিল্পী লোকমান হাকিম ও তার দল।

প্রতিক্রিয়া মন্তব্য শেয়ার