নগরীতে চাঁদাবাজি ও ভাঙচুরের মামলায় রাজশাহী কলেজ শাখা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক নাইমুল হাসান নাঈম ও সিটি কলেজ ছাত্রলীগের সাবেক নেতা আসাদকে গ্রেফতার করে কারাগারে পাঠিয়েছে পুলিশ।

বুধবার পৃথক অভিযানে নগরীর বোয়ালিয়া মডেল থানা পুলিশ তাদের গ্রেফতার করে।

নাইমুল হাসান নাঈমকে সিএনবির মোড় এবং আসাদকে সিটি কলেজ এলাকা থেকে গ্রেফতার করা হয়।

বোয়ালিয়া থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) নিবারণ চন্দ্র বর্মন বিষয়টি নিশ্চিত করে বলেন, ভুক্তভোগী ইউনিকেয়ার কোচিং পরিচালক রায়হান গত রবিবার জিডি এবং মঙ্গলবার দুপুরে থানায় মামলা করেন।
কোচিংয়ের পরিচালক রায়হান হোসেন।

পুলিশ জানায়, ছাত্রলীগ নাঈম, আসাদ ও মারুফসহ বেশ কয়েকজন কোচিং পরিচালকের কাছে মোটা অঙ্কের টাকা চাঁদা দাবি করে আসছিলেন।

গত বৃহস্পতিবার আসাদ ও মারুফ তিন হাজার টাকা চাঁদা নিয়ে যায়। এরপর রবিবার আবারও তারা ৩০ হাজার টাকা চাঁদা দাবি করে।

কিন্তু পরিচালক উক্ত চাঁদা দিতে অস্বীকার করায় গত রবিবার রাত ৮ টায় নাইম ও তার সহযোগীরা কোচিং সেন্টারে ভাঙচুর করে।

উল্লেখ্য, ছাত্রলীগ নেতা নাঈমের বিরুদ্ধে ইতোপূর্বে ছাত্রদের অপহরণ করে চাঁদা দাবি, রাজশাহী কলেজের কেটে রাখা গাছের গুড়ি চুরি করে বিক্রিসহ মাদক সেবন ও ব্যবসা করার অভিযোগ রয়েছে।