চলন্ত বাসে ছাত্রীর সামনে পর্নো ভিডিও দেখছিলেন যুবক

Img

সৌদিয়া পরিবহনের চলন্ত একটি বাসে বিশ্ববিদ্যালয় পড়ুয়া এক ছাত্রীর সামনে পর্নো ভিডিও দেখার অপরাধে এক যুবককে ৩ মাসের বিনাশ্রম কারাদণ্ড দিয়েছেন ভ্রাম্যমাণ আদালত। এ ছাড়া তাকে ১০ হাজার টাকা জরিমানা, অনাদায়ে আরও ১ মাসের কারাদণ্ড প্রদান করা হয়।

দণ্ডপ্রাপ্ত ব্যক্তি সুনামগঞ্জের জগন্নাথপুর উপজেলার স্বজনশ্রী গ্রামের মো. আব্দুর রউফের ছেলে মো. মাহবুবুর রহমান (২৬)। তিনি পেশায় একজন রাজমিস্ত্রি।

মঙ্গলবার (১৬ নভেম্বর) সকালে মৌলভীবাজার সদর উপজেলার সহকারী কমিশনার (ভূমি) ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মোস্তাফিজুর রহমান ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনা করে এ দণ্ড দেন।

এ ঘটনায় তরুণী প্রতিবাদ করে তাকে ভিডিও বন্ধ করতে অনুরোধ করেন। তবুও ওই যুবক তা বন্ধ করেননি।

পরে বিষয়টি ওই তরুণী গাড়ির চালকের সহযোগীকে অবগত করেন। তরুণী আসন পায় আরেকজন নারীর পাশে। মাহবুবুর রহমান নামের ওই যুবক ভিডিও দেখে যেতে থাকেন। ওই ছাত্রী সিলেটের শাহজালাল বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের চতুর্থ বর্ষে পড়ছেন। ঘটনা সোমবার রাতের। চট্টগ্রাম থেকে সিলেটে আসছিলেন তরুণী।

পরে মৌলভীবাজারের শেরপুর এলাকায় গাড়িটি আসার পর মাহবুবুর গাড়ি থেকে নামতে চাইলে তরুণী বাধা দেন। একপর্যায়ে হইহুল্লোড় শুনে মহাসড়কে দায়িত্বরত শেরপুর হাইওয়ে থানার মো. শিবলু মিয়া এগিয়ে আসেন। তিনি ঘটনাটি উর্ধ্বতন কর্মকর্তাদের জানান। পুলিশ সুপার তাৎক্ষণিকভাবে আইনগত ব্যবস্থা নেয়ার নির্দেশ দেন।

শেরপুর হাইওয়ে থানার ওসি মো. নবীর হোসেন জানান, ঘটনাটি মৌলভীবাজার সদর উপজেলার ইউএনওকে জানানো হয়। এরপর মঙ্গলবার সকাল ৭টা ২০ মিনিটে শেরপুরে উপজেলার সহকারী কমিশনার (ভূমি) মোস্তাফিজুর রহমান আসেন। তিনি ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনা করে মাহবুবুরকে ৩ মাসের কারাদণ্ড দেন। সেই সাথে ১০ হাজার টাকা জরিমানা এবং অনাদায়ে আরো ১ মাসের কারাদণ্ড দেন। পরে কারাদণ্ডপ্রাপ্ত যুবককে জেলা কারাগারে পাঠানো হয়েছে।

প্রতিক্রিয়া মন্তব্য শেয়ার