চট্টগ্রামের সাতকানিয়ার ঐতিহ্যবাহী মক্কার বলীখেলায় কক্সবাজারের রামুর দিদার বলী চ্যাম্পিয়ন হয়েছেন। রানার্স আপ হয়েছেন চকরিয়ার বাদশা বলী।

শনিবার (২০ এপ্রিল) বিকেলে সাতকানিয়া উপজেলার মাদার্শা ইউনিয়নের বাবুনগর গ্রামের পাহাড়বেষ্টিত মক্কার মাঠে ১৪০তম এ বলী খেলা অনুষ্ঠিত হয়। এ উপলক্ষে বাবুনগর গ্রামের দেড় কিলোমিটারজুড়ে বসে মেলা।

বলীখেলার মাঠ ও আশপাশের এলাকা ঘুরে দেখা গেছে, বাবুনগর প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সামনের সড়ক থেকে শুরু করে খেলার স্থানের চারপাশে নানা ধরনের হস্ত ও কুটিরশিল্পের সামগ্রী নিয়ে দোকানিরা পসরা সাজিয়ে বসে আছেন। প্রতিটি দোকানেই নারী-পুরুষের ভিড়।

কেউ তালপাতার পাখা কিনছেন আবার কেউ বা কিনছেন ঘরের নিত্যপ্রয়োজনীয় পণ্য। সব মানুষের হাতে কোনো না কোনো পণ্য দেখা গেছে। মেলার আয়োজকেরা জানান, নামে মক্কার বলীখেলা হলেও মূলত এটি চট্টগ্রাম দক্ষিণ অঞ্চলের প্রধান বৈশাখী মেলা। মেলায় দক্ষিণ চট্টগ্রামসহ বান্দরবান ও কক্সবাজারের দর্শকেরা খেলা উপভোগ করতে আসে। এবারও এসেছে। খেলায় এবার কক্সবাজারের রামুর দিদার বলী, উখিয়ার শামসু বলী, টেকনাফের আলম বলী, খুলনার শিপন বলী, যশোরের কামাল বলীসহ দেশের বিভিন্ন স্থান থেকে নামকরা বলীরা অংশ নেন।

স্থানীয় লোকজনের সঙ্গে কথা বলে জানা গেছে, মাদার্শা এলাকার তৎকালীন জমিদার মো. আবদুল কাদের বক্স চৌধুরী দীর্ঘকাল আগে বাঙালির ইতিহাস ও ঐতিহ্য তুলে ধরতে প্রতি বাংলা সনের ৭ বৈশাখ এ বলীখেলার আয়োজন করেছিলেন। আবদুল কাদের বক্স চৌধুরীর মৃত্যুর পর তাঁর উত্তরাধিকারীরা প্রতিবছর বৈশাখ মাসের ৭ তারিখেই এ বলীখেলার আয়োজন করে যাচ্ছেন। মাদার্শা ইউনিয়ন পরিষদের (ইউপি) চেয়ারম্যান আ ন ম সেলিম উদ্দিন বলেন, বলীখেলা উপলক্ষে পুরো মাদার্শা ইউনিয়নের ঘরে ঘরে উৎসব চলে। দূরের আত্মীয়স্বজন বেড়াতে আসে। অনেকের সঙ্গেই বলীখেলা উপলক্ষে বছরে একবার দেখা হয়। সে হিসেবে মক্কার বলীখেলা এলাকাবাসীর মিলনমেলা।

আয়োজক কমিটির সভাপতি মাদার্শা ইউনিয়নের সাবেক চেয়ারম্যান নাজমুল আলম চৌধুরী বলেন, পূর্বপূরুষের ঐতিহ্য ধরে রাখার পাশাপাশি এলাকার লোকজনকে বিনোদন দেওয়ার আশায় মক্কার বলীখেলার আয়োজন করতে হচ্ছে।

খেলায় চ্যাম্পিয়ন, রানার্স আপসহ প্রতিযোগিতায় অংশ নেওয়া বলীদের পুরস্কার দেওয়া হয়েছে। খেলায় প্রধান অতিথি ছিলেন সাতকানিয়া সার্কেলের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার হাসানুজ্জামান মোল্যা। বিশেষ অতিথি ছিলেন সাতকানিয়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) শফিউল কবির, মাদর্শার চেয়ারম্যান আ ন ম সেলিম চৌধুরী, সাবেক চেয়ারম্যান নাজমুল আলম চৌধুরী, কাইসার উল আলম চৌধুরী, মাহফুজুর রহমান চৌধুরী, জিল্লু রহমান চৌধুরী, চৌধুরী হিমেল শাহরিয়া প্রমুখ।