গর্ভাবস্থায় কতদিন সেক্স করা নিরাপদ?

Img

গর্ভাবস্থায় সহবাস করার নিয়ম আমরা অনেকেই জানি না। আবার অনেকে জানা থাকলেও হয়তো সঠিক নিয়ম জানা নেই। আজকে আমি আপনাদের জানাবো গর্ভাবস্থায় কতদিন সেক্স করা নিরাপদ? ইসলাম কী বলে?

দৈনিন্দ জীবনে আমাদের চলারপথে অনেক প্রশ্ন মাথায় আসতে পারে। কিছু প্রশ্নর উত্তর খুব সহজে সঠিকভাবে জানার উপায় থাকলেও কিছু প্রশ্নর উত্তর জানা কঠিন হয়ে যায়। অনেক সময় লোক লজ্জার ভয়েও জানার আগ্রহ হারিয়ে ফেলেন।

অনেকের মনেই প্রশ্ন জাগে অন্তঃসত্বা স্ত্রীর সঙ্গে সহবাস বা সেক্স করলে অনাগত সন্তানের কোনো ক্ষতি হবে কি না। বিশেষ করে নারীদের মনেই বেশি সন্দেহ জাগে যে গর্ভবতী অবস্থায় মিলন করা যায় কিনা। উত্তর প্রায় সবসময় বা বেশিরভাগ নারীর জন্য 'হ্যাঁ'।

পবিত্র কুরআনা আল্লাহ তায়ালা বলেন,

তোমাদের স্ত্রীগণ তোমাদের শস্যক্ষেত্র। সুতরাং তোমরা তোমাদের শস্যক্ষেত্রে যেভাবে ইচ্ছে সেভাবে বিচরণ করো। (সুরা বাকারা – ২২৩)

এই আয়াত থেকে বুঝা যায় মুসলিম দম্পতিরা যখন ইচ্ছে তখন যে ভাবে ইচ্ছে সেভাবে যৌনসম্ভোগ করতে পারবে। কাজেই যদি গর্ভাবস্থায় তারা সহবাস করতে চায় তাহলে সেটাও জায়েজ। কোনো অসুবিধে নেই। গর্ভাবস্থায় সহবাসের ক্ষেত্রে কেবল দুটি বিষয় লক্ষ্য রাখা আবশ্যক।

তাহলো-

  • স্ত্রীর সাথে পায়ুকাম বা অ্যানাল সেক্স করা যাবে না।
  • স্ত্রীর মাসিক ঋতুস্রাব চলাকালে সহবাস করা যাবে না।

এই দুটি ক্রিয়াকে নিষেধ ঘোষণা করে রাসুলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম বলেন,

‘যে ব্যক্তি ঋতুস্রাবগ্রস্ত স্ত্রীর সাথে বা স্ত্রীর পায়ুপথে সহবাস করলো বা গণকের কাছে এসে তার কথা বিশ্বাস করে নিলো, সে প্রকৃত পক্ষে মুহাম্মাদের উপর অবর্তীণ সবকিছু অস্বীকার করলো।’ ( তিরিমিযি – ১৩৫ )

একইভাবে ইহরাম ও রোজা অবস্থায় সহবাস নিষিদ্ধ। তাছাড়া অন্য সকল সময় সকল পন্থায় সহবাস বৈধ রয়েছে।

তাই গর্ভাবস্থায় সবহবাস করতে কোনো আপত্তি নেই। এটা জায়েজ হিসাবে পরিগণিত।

গর্ভাবস্থায় সহবাস করার নিয়ম :

গর্ভাবস্থায় সহবাস করার নির্দিষ্ট কোন নিয়ম সম্পর্কে বলা হয়নি বা গর্ভাবস্থায় সহবাস করা থেকে বিরত থাকার জন্য কোন হুকুম নেই কিন্তু গর্ভাবস্থায় সহবাসের সময় আপনাকে একটু বাড়তি সতর্কতা অবলম্বন করতে হবে।

কিভাবে সহবাস করলে আপনার স্ত্রী আঘাতপ্রাপ্ত না হবে কারণ গর্ভাবস্থায় স্ত্রী আঘাতপ্রাপ্ত হলে গর্ভের সন্তান ক্ষতিগ্রস্ত হওয়ার সম্ভাবনা থাকে তাই গর্ভাবস্থায় স্ত্রী সহবাসের সময় কিভাবে সহবাস করা উচিত আপনি সহজেই বুঝে যেতে পারবেন।
 
তবে গর্ভাবস্থায় হোক কিংবা গর্ভ অবস্থায় হোক স্ত্রীর পিছনের অংশ দিয়ে সহবাস করা যাবে না এসব ক্ষেত্রে সকল সময় প্রযোজ্য

গর্ভাবস্থায় সহবাসের সঠিক নিয়ম :

গর্ভাবস্থায় সহবাস করার কোনো বিধিনিষেধ বা নিষেধাজ্ঞা নেই তবে গর্ভাবস্থায় প্রথম তিন মাস সহবাস না করা ভালো সময় সহবাস করলে সাবধানতা অবলম্বন করতে হবে আর যদি সাবধানতা অবলম্বন করে সহবাস করতে পারেন তাহলে কোনো ক্ষতি নেই।

গর্ভাবস্থায় সহবাসের পূর্বে কিছু কথা জেনে নিন :

  • যদি আপনার গর্ভকালীন সময় স্বাভাবিক ভাবে থাকে তাহলে আপনি সন্তান গর্ভে থাকা অবস্থায়, প্রসব বেদনা শুরু হওয়ার আগে  পর্যন্ত সহবাস করতে পারেন।
  • এ ক্ষেত্রে কিছু নিয়ম অনুসরণ করলে কোনো প্রকার বিপত্তির সম্ভাবনা থাকে না।  
  • সহবাসের সময়ের স্বাভাবিক নড়াচড়া গর্ভের শিশুর কোনো ক্ষতি করে না। গর্ভের শিশু তলপেট এবং জরায়ুর শক্ত পেশী দিয়ে সুরক্ষিত থাকে।
  • আপনার শিশু অ্যামিনিওটিক স্যাকের মধ্যে অবস্থান করে যা তাকে সুরক্ষিত রাখে।  
  • জরায়ুর মুখ মিউকাস প্লাগ দ্বারা সিল করা থাকে, যা শিশুকে ইনফেকশনের হাত থেকে রক্ষা করে।
  • সহবাসের সময় পুরুষেরে গোপনাঙ্গ নারীর গোপনাঙ্গ পর্যন্তই প্রবেশ করে।  তা গর্ভের শিশু পর্যন্ত পৌঁছাতে পারেনা। তাই গর্ভের শিশুর ক্ষতির আশঙ্কা থাকেনা।।
  • সহবাসের পর অর্গাজম হলে বাচ্চার নড়াচড়া বৃদ্ধি পেতে পারে। এটা হয় অর্গাজমের পর আপনার হার্টবিট বেড়ে যাওয়ার কারণে, সহবাসের ফলে বাচ্চার কোন অসুবিধার কারণে নয়।
  • অর্গাজমের কারণে জরায়ুর পেশীতে মৃদু সংকোচন (কন্ট্রাকশন) হতে পারে।  
  • তা ক্ষণস্থায়ী এবং ক্ষতিকর নয়। যদি গর্ভধারণের সবকিছু স্বাভাবিক থাকে তবে অর্গাজমের কারণে হওয়া সংকোচনের ফলে গর্ভপাত বা প্রসব বেদনা শুর হয়না। সুতরাং নিচের সমস্যাগুলি না থাকলে গর্ভাবস্থায় সহবাস করলে কোনো সমস্যা নেই।
প্রতিক্রিয়া মন্তব্য শেয়ার