গফরগাঁওয়ের ব্রহ্মপুত্র পাড়ের নিভৃত গ্রামে অনন্য বইমেলা

Img

স্বাধীন সুলতানদের আমলের প্রায় ছয়শ বছরের পুরানো ময়মনসিংহ-গফরগাঁও-টোক সড়ক। এই সড়কের কোল ঘেঁষে বয়ে চলেছে পুরনো ব্রহ্মপুত্র নদ। তলা দিয়ে বয়ে চলেছে জলের ক্ষীন ধারা। কিন্ত এই পুরনো ব্রহ্মপুত্রের পাড়ে সড়কের অপর পাশে গফরগাঁও উপজেলার শাঁখচড়া নামক নিভৃত গ্রামে আলোকিত মানুষ গড়ার প্রতিষ্ঠান মুসলেহ উদ্দিন ফাউন্ডেশন ও পাঠাগার।

প্রতিষ্ঠানটির রজত জয়স্ততীতে আগামী ৫ মার্চ শুক্রবার সারাদিনব্যাপী স্থানীয় শাঁখচড়া উচ্চ বিদ্যালয় মাঠে আয়োজন করা হয়েছে এক অনন্য ও ব্যতিক্রমধর্মী বইমেলা।

শুক্রবার সকাল ১০ টায় স্থানীয় সংসদ সদস্য ফাহমী গোলন্দাজ বাবেল আনুষ্ঠানিকভাবে এই বইমেলার উদ্বোধন করবেন।

মুজিব বর্ষের অঙ্গীকার, পড়বো বই, বাড়ি হবে পাঠাগার-এ প্রতিপাদ্যকে সামনে রেখে এই অনন্য ও ব্যতিক্রমধর্মী বইমেলায় শতকরা ৮০ থেকে ৫০ শতাংশ ছাড়ে বই বিক্রি করা হবে। শিশুতোষ কিংবা কিশোরদের উপযোগী কোন কোন বই বিক্রি করা হবে ৯০ শতাংশ পর্যন্ত ছাড়ে।

মুসলেহ উদ্দিন ফাউন্ডেশন ও পাঠাগার উদ্যোগে আয়োজিত এই বইমেলায় ১১টি ষ্টলে বিক্রির জন্য প্রায় ৭ হাজার বই ক্রয় করা হয়েছে। এছাড়াও দেশসেরা অনেক লেখক, কবি, সাহিত্যিক ব্যতিকমধর্মী এই বই মেলায় উৎসাহী হয়ে বই অনুদান হিসেবে দিয়েছেন। মেলার ১১ টি ষ্টলের মধ্যে বঙ্গবন্ধু কর্নারে বঙ্গবন্ধুর লেখা সব বইসহ বাংলাদেশ প্রতিষ্ঠায় বঙ্গবন্ধুর দীর্ঘ আন্দোলন, সংগ্রাম, ইতিহাস ও জীবনী নিয়ে অরো ছয় শতাধিক বই থাকছে।

মেলায় বাকি ষ্টলগুলোতে থাকছে মুক্তিযুদ্ধের বই, চিরায়ত বই, শিশু-কিশোরদের বই, ধর্মীয় বই। একই সঙ্গে হুমায়ূন আহমেদ, ড. জাফর ইকবালসহ দেশের এবং পশ্চিমবঙ্গের জনপ্রিয় লেখকদের বইও মেলায় থাকছে। এসব বই মেলায় আগত পাঠকদের হাতে তুলে দেওয়া হবে হ্রাসকৃত মূল্যে। যে বইয়ের মোড়ক মূল্য হয়ত ১০০ টাকা সে বই ক্রেতার হাতে তুলে দেওয়া হবে ২০ টাকায় কিংবা ২০০ টাকার বই তুলে দেওয়া হবে ৩০ টাকায়।

নিভূত পল্লীর কৃষি অধ্যুষিত এই গ্রামে এমন বইমেলার আয়োজকদের একজন ওই গ্রাম থেকে উচ্চ শিক্ষায় বেরিয়ে আসা ড. আহমেদ মুনিরুছ সালেহীন। তিনি প্রবাসী কল্যাণ ও বৈদশিক কর্মসংস্থান মন্ত্রণালয়ের সচিব।

তিনি জানান, মুক্তিযুদ্ধের চেতনায় আলোকিত মানুষ গড়ার প্রত্যয়ে শিক্ষাবিদ এবি মুসলেহ উদ্দিনের নামে মুসলেহ উদ্দিন ফাইন্ডেশন ও পাঠাগারের প্রতিষ্ঠা। আর গ্রামের মানুষের সঙ্গে, গ্রামের মেধাবীদের সঙ্গে বইয়ের নিবিড় সর্ম্পক স্থাপনের জন্য এ বই মেলায় আয়োজন। মুজিববর্ষে আমাদের গ্রামসহ আশেপাশের গ্রামের বাড়ি বাড়ি পাঠাগার স্থাপনে এলাকাবাসীকে উদ্বুদ্ধ করা এই বইমেলা আয়োজনের মূল উদ্দেশ্য।

মুসলেহ উদ্দিন ফাউন্ডেশন ও পাঠাগার রজতজয়ন্তী অনুষ্ঠানের আহবায়ক সাদেকুর রহমান বলেন, এ বইমেলাকে কেন্দ্র করে উপজেলার নিভৃত গ্রাম শাখচূড়া এবং আশেপাশের গ্রামগুলোতে উৎসব মুখর পরিবেশ তৈরি হয়েছে। এলাকার ছাত্র-ছাত্রী ও যুব সমাজের মধ্যে ব্যাপক উৎসাহ উদ্দীপনা।

প্রতিক্রিয়া মন্তব্য শেয়ার