খুলনা জেলা প্রশাসককে চিঠি দিয়ে হুমকি

Img

খুলনা জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ হেলাল হোসেনকে চিঠি দিয়ে হুমকি প্রদান করা হয়েছে। গতকাল সোমবার ডাকযোগে ওই চিঠিটি জেলা প্রশাসকের দপ্তরে পৌঁছায়। চিঠি দিয়ে হুমকির বিষয়টি স্বীকার করেছেন জেলা প্রশাসক। চিঠির শেষাংশে সাধারণত প্রেরকের নাম থাকে, তবে এ চিঠিতে কারও নাম উল্লেখ নেই।

হুমকি দিয়ে জেলা প্রশাসককে পাঠানো ওই চিঠির প্রথম প্যারায় লেখা রয়েছে, যদি দেশকে বাঁচাতে চান, মানুষকে বাঁচাতে চান তাহলে কোন রূপ চালাকি বা পক্ষপাতিত্বমূলক আচরণ করবেন না। আর এর যদি কোন ব্যতিক্রম হয় বা সরকারের আজ্ঞাবহ হিসেবে কাজ করেন, খোদার কসম করে বলছি দেশ শ্মশানে পরিণত হবে। আপনারা কেউ বাঁচাতে পারবেন না। জনগণই আপনাদের তুলাধুনা করবে। আমরা স্বাধীনতা যুদ্ধ করেছি, দেশ স্বাধীন করেছি। দেশে কোন  বেঈমান মীরজাফর থাকতে দেওয়া হবে না। প্রয়োজনে আরও একটি মুক্তিযুদ্ধ হবে, মাইন্ড ইট।

চিঠির দ্বিতীয় প্যারায় লেখা রয়েছে, এখন দেখছি আপনারা বড় রাজাকার। এই দশ বছর হাসিনা আপনাদের লালন পালন করে রেখেছে একাদশ সংসদ নির্বাচনে বেঈমানী করার জন্য তাই না? জনগণ তা হতে দেবে না। এর খেসারত আপনাদের পেতেই হবে। কথাটা মনে রাখবেন।  ’৭১ এর যুদ্ধ তো দেখেন নাই, তা হলে কেমন করে বুঝবেন স্বজন হারানোর জ্বালা। প্রশাসক সাহেব আপনারও ছেলে মেয়ে আছে, তাদের কথা ভাবুন। স্বজন হারার জ্বালা যে কত নির্মম, কত ভয়াবহ তা ৩০ ডিসেম্বরের পর হাড়ে হাড়ে টের পাবেন। আশা করি বুঝতে পেরেছেন। আল্লাহ আপনাদের বঝবার শক্তি দেন। দেশ থাকবে আপনি থাকবেন না, আমিও থাকবো না, তাহলে কেন পরবর্তী প্রজন্মের গ্লানি নিয়ে বেঁচে থাকবেন। চিঠির শেষে সর্বনীচে ডান দিকে আল্লাহ হাফেজ ধন্যবাদ লিখে শেষ করা হয়েছে।

হুমকি দিয়ে চিঠি প্রদানের বিষয়টি নিয়ে কোনো জিডি করেননি বলে জানান জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ হেলাল হোসেন। তবে খুলনা মেট্রোপলিটন পুলিশকে বিষয়টি মৌখিকভাবে তিনি জানিয়েছেন বলে জানান।

পূর্ববর্তী সংবাদ

ইভিএম পদ্ধতিতে জালভোটের সুযোগ নেই: খুলনা জেলা প্রশাসক

ইলেক্ট্রনিক ভোটিং মেশিন (ইভিএম) হচ্ছে ডিজিটাল বাংলাদেশে এক ডিজিটাল প্রযুক্তি। এই পদ্বতিতে ভোট গ্রহণ শতভাগ স্বচ্ছ হবে। ভোট জালিয়াতির কোন সুযোগ এই পদ্বতিতে নেই। ইভিএম এ ভোট গ্রহণ: তরুণদের প্রত্যাশা শীর্ষক মতবিনিময় অনুষ্ঠানে সভাপতির বক্তৃতায় এসকল কথা বলেন খুলনার জেলা প্রশাসক ও রিটার্নিং অফিসার মোহাম্মদ হেলাল হোসেন।

খুলনা জেলা প্রশাসনের উদ্যোগে সোমবার বিকেলে খুলনা সার্কিট হাউস মিলনায়তনে এই মতবিনিময় সভা অনুষ্ঠিত হয়। জেলা প্রশাসক ইভিএম বিষয়ে তরুণদের বিভিন্ন প্রশ্নের জবাব দেন।

রিটার্নিং অফিসার বলেন, ইভিএম নিয়ে একসময় জনমনে ভীতি থাকলেও এখন সেটি আর নেই। বিগত দুই সপ্তাহ যাবত খুলনার বিভিন্ন স্থানে ইভিএম প্রদর্শিত হচ্ছে যা ভোটের আগের দিন পর্যন্ত অব্যাহত থাকবে। জনগণের মধ্যে ইভিএম বিষয়ে সচেতনতা সৃষ্টি হয়েছে। জেলা প্রশাসক জানান ইভিএম সংক্রান্ত কারিগরি সহায়তা প্রদানের জন্য প্রত্যেকটি কেন্দ্রে সেনাবাহিনীর একাধিক সদস্য থাকবেন।

মতবিনিময় অনুষ্ঠানে অন্যান্যের মধ্যে বক্তৃতা করেন খুলনা মেট্টোপলিটন পুলিশের ভারপ্রাপ্ত কমিশনার সরদার রকিবুল ইসলাম, অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (সার্বিক) জিয়াউর রহমান, খুলনা প্রেসক্লাবের সভাপতি ফারুক আহমেদ এবং সাধারণ সম্পাদক মল্লিক সুধাংশু।

প্রতিক্রিয়া মন্তব্য শেয়ার