খুলনা আঞ্চলিক তথ্য অফিসে শুদ্ধাচার বিষয়ক কর্মশালা অনুষ্ঠিত

Img

জাতীয় শুদ্ধাচার কৌশল, ইনোভেশন, সিটিজেন চার্টার ও বার্ষিক কর্মসম্পাদান চুক্তি (এপিএ) বিষয়ে এক প্রশিক্ষণ কর্মশালা আজ (বুধবার) খুলনা আঞ্চলিক তথ্য অফিসে অনুষ্ঠিত হয়। প্রশিক্ষণ কর্মশালায় প্রধান অতিথি ছিলেন তথ্য অধিদফতরের সিনিয়র উপপ্রধান তথ্য অফিসার ফায়জুল হক।

প্রধান অতিথি তাঁর বক্তৃতায় বলেন, শুদ্ধাচার কৌশলের মূল উদ্দেশ্য হচ্ছে সেবাগ্রহীতাদের সন্তুষ্টি অর্জন। কেবল আর্থিক স্বচ্ছতা নিশ্চিতকরা নয়, একই সাথে সময়মতো অফিসে আসা, উর্দ্ধতন কর্তৃপক্ষের আদেশ বাস্তবায়ন করা এবং চাকরীর বিধানাবলী যথাযথভাবে মেনে চলাও শুদ্ধাচারের অংশ। বার্ষিক কর্মসম্পাদন চুক্তি মোতাবেক সকল কাজ সম্পাদন করতে হবে এবং অফিসের প্রতিটি কাজে স্বচ্ছতা ও জবাবদিহিতা নিশ্চিত করতে হবে। 

খুলনা আঞ্চলিক তথ্য অফিসের উপপ্রধান তথ্য অফিসার ম. জাভেদ ইকবালের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত এই কর্মশালায় অফিসের কর্মকর্তা-কর্মচারীরা অংশগ্রহণ করেন। এসময় তথ্য অধিদফতরের সিনিয়র তথ্য অফিসার আসাদুজ্জামান খান, ফিচার রাইটার মো. রেজাউল করিম সিদ্দিক ও ক্রয় কর্মকর্তা মো. শাহ আলম সরকার উপস্থিত ছিলেন।

পূর্ববর্তী সংবাদ

শ্রীমঙ্গলে পুলিশের অভিযানে জুয়া খেলার সরঞ্জামাদিসহ আটক ৮

মৌলভীবাজারের শ্রীমঙ্গল থানা পুলিশ অভিযান চালিয়ে একটি গেষ্ট হাউজ থেকে আট জুয়ারিকে আটক করেছে।

বুধবার বিকেলে শহরতলীর হাউজিং এস্টেট এলাকার “চা কন্যা গেষ্ট হাউস” নামের গেষ্ট হাউজে অভিযান চালিয়ে জুয়া খেলাবস্থায় তাদেরকে আটক করে। এরপর কোমরে রশি দিয়ে বেঁধে থানায় নিয়ে আসা হয়।

আটককৃতরা হলো- পেশাদার জুয়ারী মন্নান মিয়া, উমেদ মিয়া, রনি দেব, আজম আলী, মো. খলিল মিয়া, তারেক মিয়া, সৌরভ রায় ও শফিক মিয়া।

শ্রীমঙ্গল থানার নবাগত অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মোঃআব্দুস ছালেক জানান, তিনিসহ সার্কেল এএসপি আশরাফুজ্জামান এর নেতৃত্বে শহরের মৌলভীবাজার সড়কের হাউজিং এষ্টেট আবাসিক এলাকায় “চা কন্যা গেষ্ট হাউজ” থেকে তাদের আটক করা হয়। এরা সবাই পেশাদার জুয়ারী বলেও তিনি জানান। এ সময় তাদের কাছ থেকে জুয়া খেলার সরঞ্জমাদি উদ্ধার করা হয়।

প্রতিক্রিয়া মন্তব্য শেয়ার