খুলনায় ব্যাংকের টাকা আত্মসাত: ব্যবসায়ীর বিরুদ্ধে দুদকের মামলা

Img

প্রিমিয়ার ব্যাংক লিঃ খুলনা শাখা থেকে ঋণ গ্রহণের পর প্রতারণার মাধ্যমে আত্মসাতের অভিযোগে খুলনার মেসার্স গাফফার ফুড প্রোডাক্টস’র ব্যবস্থাপনা পরিচালক এম.ডি আরিফ গাফফারের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করেছে দুর্নীতি দমন কমিশন দুদক।

দুদকের সমন্বিত জেলা কার্যালয় যশোর’র সহকারি পরিচালক মোহা: মোশররফ হোসেন বাদি হয়ে মামলাটি দায়ের করেছেন। গত ১৯আগস্ট দুদক সজেকা খুলনায় এ মামলা রেকর্ড করা হয়েছে (নং-০৫/১৯)। অভিযুক্ত এম.ডি আরিফ গাফফার খুলনা নগরীর ২৭,শের-ই বাংলা রোডের মৃত আব্দুল গাফফার ইসমাইলের ছেলে।

মামলার এজাহারে বলা হয়, ২০০৫ সালের ৭এপ্রিল থেকে ২২আগস্ট পর্যন্ত সময়ের মধ্যে খুলনার মেসার্স গাফফার ফুড প্রোডাক্টস’র ব্যবস্থাপনা পরিচালক এম.ডি আরিফ গাফফার তার প্রতিষ্ঠানের নামে প্রিমিয়ার ব্যাংক খুলনা শাখা থেকে ৭কোটি ৪১লাখ ২৮হাজার ৫৪৯টাকা ঋণ গ্রহণ করেন। এরপর একই বছরের ১২সেপ্টেম্বর পর্যন্ত তিনি ব্যাংকের আংশিক টাকা জমা দিয়ে ২০১৭ সালের ১৮নভেম্বর পর্যন্ত আরকোন টাকা পরিশোধ করেননি। বর্তমানের ব্যাংকের উক্ত ঋণের টাকা সুদাসলে ২৩কোটি ৯৪ লাখ ৪৯হাজার ৫৬৪টাকায় এসে দাড়িয়েছে।

এ ঘটনায় দুর্নীতি দমন কমিশন দুদকের সমন্বিত খুলনা জেলা কার্যালয়ের ই/আর নং ১৮/২০১৬’র অভিযোগ অনুসন্ধান চালানো হয়। দুদকের অনুসন্ধানে দেখা যায়, খুলনার প্রিমিয়ার ব্যাকের শাখা থেকে মেসার্স গাফফার ফুড প্রোডাক্টস’র ব্যবস্থাপনা পরিচালক এম.ডি আরিফ গাফফার তার প্রতিষ্ঠানের বিপরীতে ৬টি এলটিআর ঋণের মাধ্যমে ৭কোটি ৪১লাখ ২৮হাজার ৫৪৯টাকা ঋণ প্রদান করা হয়। ঋণ গ্রহণকালে এম.ডি আরিফ গাফফারের মক্কা পোল্ট্রি ফিড লিঃ’র স্থায়ী ও ভাসমান সম্পদসহ কোম্পানীর সকল পরিচালকদের ব্যক্তিগত গ্যারান্টি নেয়া হয়। কিন্তু ব্যাংকের তৎকালনি ম্যানেজার আবু সাঈদের সাথে যোগসাজসের মাধ্যমে ঋনের টাকা আত্মসাত করেন তিনি। দুদকের তদন্তে ব্যাংকের তৎকালীন ম্যানেজার আবু সাঈদ অভিযুক্তের তালিকায় চলে আসেন। কিন্তু তার মৃত্যুর কারণে তাকে বাদ দিয়ে মেসার্স গাফফার ফুড প্রোডাক্টস’র ব্যবস্থাপনা পরিচালক এম.ডি আরিফ গাফফারের বিরুদ্ধে মামলা করে দুদক।

এবিষয়ে মামলার বাদি সহকারি পরিচালক মোহা: মোশররফ হোসেন মামলার বিষয়টি নিশ্চিত করে বলেন, মামলার তদন্ত কর্মকর্তা আসামিকে গ্রেফতারের বিষয়ে ব্যবস্থা নিবেন।

প্রতিক্রিয়া মন্তব্য শেয়ার