খুলনায় বঙ্গবন্ধুর জন্মবার্ষিকী পালন উপলক্ষে প্রস্তুতিমূলক সভা অনুষ্ঠিত

Img

আগামী ১৭ মার্চ জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান এঁর ৯৯তম জন্মবার্ষিকী ও জাতীয় শিশু দিবস, ২০১৯ উদযাপন উপলক্ষে প্রস্তুতিমূলক সভা আজ (বুধবার) বিকেলে খুলনা জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ হেলাল হোসেনের সভাপতিত্বে তাঁর সম্মেলন কক্ষে অনুষ্ঠিত হয়।

সভায় দিবসটি উদযাপন উপলক্ষে নানামূখী কার্যক্রম গ্রহণের সিদ্বান্ত গৃহীত হয়। সকাল আটটায় খুলনার নিউমার্কেট চত্ত্বর থেকে র‌্যালি বের হয়ে খুলনা বেতার কেন্দ্রে গিয়ে শেষ হবে। সেখানে বঙ্গবন্ধুর ভাস্কর্যে পুষ্পস্তবক অর্পণ করা হবে।

সকাল নয়টায় শহীদ হাদিস পার্কে শিশু সমাবেশ, আলোচনা অনুষ্ঠান এবং সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের আয়োজন থাকবে। এছাড়া খুলনা সিটি কর্পোরেশন ও শিশু একাডেমির উদ্যোগে চিত্রাংকন প্রতিযোগিতা, রচনা প্রতিযোগিতা অনুষ্ঠিত হবে। এতিমখানায় দুস্থ শিশুদের উন্নতমানের খাবার পরিবেশন করা হবে।

প্রস্তুতিমূলক সভায় বিভিন্ন সরকারি দপ্তরের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তা, বিভিন্ন শিল্প সাংস্কৃতিক সংগঠনের প্রতিনিধিরা উপস্থিত ছিলেন। সভাটি সঞ্চালন করেন অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (সার্বিক) জিয়াউর রহমান।

পূর্ববর্তী সংবাদ

কোচিং সেন্টার বন্ধে অভিযান অব্যাহত থাকবে, টাঙ্গাইলে শিক্ষামন্ত্রী

শিক্ষামন্ত্রী ডা. দীপু মনি বলেছেন, কোচিং সেন্টার বন্ধে অভিযান অব্যাহত থাকবে। যেখানে শিক্ষকেরা শ্রেণিতে পড়াশোনা না করিয়ে তাদের নিজেদের বাড়িতে কিংবা কোচিং সেন্টারে তাদের স্কুলের শিক্ষার্থীদের পড়তে বাধ্য করে এবং সেখানে না পড়লে তাদের ফেল করিয়ে দেয় এই ধরণের যারা অপরাধ করে সেই জায়গাগুলো আমাদের বন্ধ করতেই হবে এবং সেটার জন্যও আমাদের চেষ্টা আছে, ইতিমধ্যেই সারাদেশে আইনশৃঙ্খলাবাহিনীও এ বিষয়ে অভিযান চালাচ্ছে। বুধবার সকালে টাঙ্গাইলের মির্জাপুর সরকারি এস.কে. পাইলট উচ্চ বিদ্যালয়ে এসএসসি পরীক্ষার পূর্বে কেন্দ্র পরিদর্শন করে এসে সাংবাদিকদের তিনি এ কথা বলেন।

তিনি আরও বলেন, যে সকল শিক্ষা প্রতিষ্ঠান থেকে সরকারি বই যারা নোট গাইড বেআইনিভাবে বিক্রি করছেন আমরা সেই অভিযোগের ভিত্তিতে অভিযান পরিচালনা করে আসছি। শিক্ষা ব্যবস্থাকে আরও উন্নত করার কথাও উল্লেখ করেন মন্ত্রী। এ জন্য আমাদের অনেক দূর যেতে হবে এবং শিক্ষক অভিভাবকসহ সকলের সহযোগিতা কামনা করেন। যত্রতত্র কিন্ডার গার্টেনের ব্যাপারে সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে মন্ত্রী বলেন, যত্রতত্র শিক্ষা
প্রতিষ্ঠান গড়ে তোলা অনেকাংশেই দেখা যাচ্ছে শিক্ষার যে মূল উদ্দেশ্য তার বদলে কোথাও কোথাও শিক্ষার পেছনে ব্যবসাটি বড় হয়ে উঠে। শিক্ষা প্রতিষ্ঠান করার জন্য কোনো অনুমতি লাগে না যত্রতত্র যেনো শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান আর গড়ে না উঠে সে বিষয়েও আমাদের চিন্তাভাবনা রয়েছে।


এর আগে শিক্ষামন্ত্রী ডা. দিপু মনি সকাল নয়টায় মির্জাপুর উপজেলা পরিষদ চত্ত্বরে মুক্তির মঞ্চে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের প্রতিকৃতিতে মাল্যদান শেষে সদরের মির্জাপুর সরকারি এস কে পাইলট উচ্চ বিদ্যালয় পরীক্ষা কেন্দ্র পরিদর্শন করেন। পরে ভারতেশ্বরী হোমসের প্রিন্সিপাল প্রতিভা মুৎসুদ্দি হলে পুরস্কার বিতরনী অনুষ্ঠানে বক্তৃতা করেন, শিক্ষামন্ত্রী ডা. দীপু মনি, কুমুদিনী ওয়েল ফেরার ট্রাস্ট অব বেঙ্গল বিডি লি: এর ব্যবস্থাপনা পরিচালক রাজীব প্রসাদ সাহা, পরিচালক শ্রীমতি সাহা, পরিচালক (শিক্ষা) ভাষা সৈনিক একুশে পদকপ্রাপ্ত প্রতিভা মুৎসুদ্দি, টাঙ্গাইলের জেলা প্রশাসক মো. শহিদুল ইসলাম বক্তৃতা করেন।

এসময় সড়ক ও সেতু মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটির সভাপতি মো. একাব্বর হোসেন এমপি, মির্জাপুর সরকারি কলেজের অধ্যক্ষ সালাহ উদ্দিন আহমেদ, মির্জাপুর পৌরসভার মেয়র সাহাদত হোসেন সুমন, মির্জাপুর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা আব্দুল মালেক, উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক মীর শরীফ মাহমুদ, মির্জাপুর থানা ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা এ কে এম মিজানুল হক, উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা কর্মকর্তা হারুন অর রশিদ, উপজেলা শিক্ষা কর্মকর্তা আলমগীর হোসেন প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন। সকল বিষয়ে ভাল করে সর্বোচ্চ নম্বর পেয়ে যৌথভাবে ভারতেশ্বরী হোমসের ছাত্রী সংসদের সহসভানেত্রী মলিনা আক্তার ও সাধারণ সম্পাদিকা পেখম সাহাকে পুরস্কৃত করা হয়।

প্রতিক্রিয়া মন্তব্য শেয়ার