খুলনায় কম্পিউটার ব্যবসায়ীদের ধর্মঘট

Img

আমদানিকারকদের সেচ্ছাচারিতার প্রতিবাদে আইটি মার্কেট বন্ধ রেখে ধর্মঘট পালন করেছে খুলনার কম্পিউটার ব্যবসায়ীরা।

সোমবার (২৪ ফেব্রুয়ারি) দুপুর ১২টা থেকে অর্ধদিবস এ ধর্মঘট শুরু করেন তারা। ধর্মঘটের কারণে মহানগরীর জলিল মার্কেটের আড়াইশ কম্পিউটার দোকান বন্ধ রয়েছে। খুলনা কম্পিউটার ব্যবসায়ী সমিতি (কেসিবিএস), বাংলাদেশ কম্পিউটার সমিতি (বিসিএস) এবং আইটি ব্যবসায়ীরা এ ধর্মঘট পালন করছেন।

খুলনা কম্পিউটার ব্যবসায়ী সমিতির সভাপতি সরদার মনিরুল ইসলাম বলেন, আমদানিকারকরা কম্পিউটারের যন্ত্রাংশ খুচরা বিক্রি করতে পারে না। কিন্তু খুলনায় কিছু কিছু আমদানিকারক নিয়ম না মেনে খুচরা যন্ত্রাংশ বিক্রি করছেন। এটা বন্ধের ২৪ ঘন্টার আল্টিমেটাম দিয়ে অর্ধদিবস ধর্মঘট পালন করা হচ্ছে। এরপরও যদি দাবি না মানা হয় তাহলে পরবর্তীতে আরও কর্মসূচি গ্রহন করা হবে।

তিনি জানান, সকাল ১১টায় সভা করে ১২টা থেকে ধর্মঘট শুরু করা হয়েছে।

পূর্ববর্তী সংবাদ

বগুড়ার ৭ ইটভাটায় জরিমানা ২৬ লাখ টাকা জরিমানা আদায়

বগুড়ার শাজাহানপুরে ৭টি ইটভাটায় অভিযান চালিয়ে ২৬ লাখ টাকা জরিমানা আদায় করেছে ভ্রাম্যমাণ আদালত।

পরিবেশ অধিদপ্তর ঢাকা সদর দপ্তরের নির্বাহী ম্যাজিষ্ট্রেট মাকসুদুল ইসলাম এই ভ্রাম্যমান আদালত পরিচালনা করেন। এসময় র‌্যাব, পুলিশ ও ফায়ার সার্ভিস সদস্যরা উপস্থিত ছিলেন।

সোমবার বেলা ১১টা থেকে বিকেল পর্যন্ত এই অভিযান চলে।

নির্বাহী ম্যাজিষ্ট্রেট মাকসুদুল ইসলাম জানান, শাজাহানপুর উপজেলার নয়মাইল বামুনীয়া এলাকায় অবস্থিত এমএইচএফ ব্রিকস, এমএইচএফ (জিগজ্যাগ), খলিশাকান্দি এলাকার এলজিবি ব্রিকস, এলজিবি ব্রিকস-২, সুমি ব্রিকস, এসএসবি ব্রিকস ও বগুড়া পৌরসভার সুজাবাদ এলাকার মেসার্স আরএসবি ইটভাটায় অভিযান চালিয়ে মোট ২৬ লাখ টাকা জরিমানা আদায় করা হয়েছে। এছাড়া এমএইচএফ ব্রিকস, এলজিবি ব্রিকস-২ ও মেসার্স আরএসবি ইটভাটা ভেঙ্গে ফেলা হয়েছে।

সূত্র জানায়, ইটভাটাগুলোতে নানা অনিয়ম থাকায় অর্থদণ্ড দেয়া হয়। এমএইচএফ ব্রিকস (চিমনী) পাঁচ লাখ, এমএইচএফ (জিগজ্যাগ) এক লাখ, এলজিবি ব্রিকস আড়াই লাখ, এলজিবি ব্রিকস-২ পাঁচ লাখ, সুমি ব্রিকস চার লাখ, এসএসবি আড়াই লাখ ও আরএসবি ইটভাটার ছয় লাখ টাকা জরিমানা করা হয়।

ইট প্রস্তুত ও ভাটা স্থাপন নিয়ন্ত্রন আইন ২০১৩ (সংশোধিত আইন ২০১৯) অনুযায়ী অপরাধ প্রমানিত হওয়ায় তাদের সাজা দেয়া হয়।

এ ধরনের অভিযান অব্যাহত থাকবে বলে জানান সংশ্লিষ্টরা।  বন্ধ করে দেয়া ইটভাটা ফের চালু করলে কঠোর ব্যবস্থা নেয়া হবে বলে ইটভাটা মালিকদেরকে সতর্ক করা হয়েছে।

প্রতিক্রিয়া মন্তব্য শেয়ার