কুষ্টিয়ায় সেপটিক ট্যাংকের বিষক্রিয়ায় নিহত ২

Img

কুষ্টিয়া শহরতলীর জুগিয়া পালপাড়ায় বোনের বাড়িতে কাজ করার সময় সেপটিক ট্যাংকের ভেতরে নেমে ভাই সাদেক বাচ্চু (৪০) ও তাঁর সহকারী মানিক হোসেন (৩২) নিহত হয়েছেন।

মিরপুর উপজেলার পশ্চিম গোবিন্দপুর গ্রামের সামেদ মল্লিকের ছেলে মিস্ত্রী সাদেক বাচ্চু কয়েকজন সহকর্মী নিয়ে ১০/১২ দিন আগে জুগিয়া পালপাড়ায় নিজের বোনের বাড়ির সেপটিক ট্যাংকের ঢালাই দিয়ে যান। আজ শুক্রবার সকালে পশ্চিম গোবিন্দপুরের বিভাগ গ্রামের মানিককে সঙ্গে নিয়ে সেপটিক ট্যাংকের সাটারিং খুলতে বোন ও ভগ্নিপতি আমিরুল ইসলামের বাড়িতে আসেন। ঢালাইয়ের সুবিধার্থে দেওয়া বাশঁখুটির সাটারিং খোলার জন্য প্রথমে সেপটিক ট্যাংকের ভেতরে নামেন হেলপার মানিক। মানিক কোনো সাড়াশব্দ না করলে মিস্ত্রী সাদেক বাচ্চুও ভেতরে নামেন। এরপর তারও কোনো সাড়া শব্দ না পেয়ে স্থানীয়দের খবর দেন ভগ্নিপতি আমিরুল। স্থানীয়রা এসে তাঁদের উদ্ধার করে কুষ্টিয়া জেনারেল হাসপাতালে নেন। সেখানে কর্তব্যরত চিকিৎসক দু’জনকে মৃত ঘোষণা করেন।

কুষ্টিয়া মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) শওকত কবির বলেন, ‘বৃষ্টিবাদলের কারণে বাড়ির লোকজন সেপটিক ট্যাংক বন্ধ রেখেছিল। দীর্ঘ সময় বন্ধ থাকায় সেখানে এক ধরনের গ্যাসের সৃষ্টি হয়। ধারণা করা হচ্ছে গ্যাস আর অক্সিজেন সংকটের কারণে তাদের মৃত্যু হতে পারে। ময়নাতদন্ত রিপোর্ট এলেই বিষয়টি পরিষ্কার হবে।

এদিকে, বোনের বাড়িতে ও নিহত দুইজনের বাড়িতে শোকের মাতম চলছে।

পূর্ববর্তী সংবাদ

পুষ্টিতে ভরপুর জাম্বুরা

জাম্বুরা আমাদের দেশীয় একটি ফল। ভিটামিন সি সমৃদ্ধ এই ফলটি আমাদের দেশের সব জায়গাতেই পাওয়া যায়। খুবই সহজলভ্য এই ফলটি কিন্তু অনেক উপকারী।অনেকেই একে বাতাবি লেবু বলে থাকেন। টক কিংবা মিষ্টি স্বাদের এই ফলের রয়েছে বেশ মিষ্টি একটা গন্ধ। জাম্বুরার ভেতরটা রসালো এবং কোষগুলো হলুদ, গোলাপী, লাল হয়ে থাকে। জাম্বুরার খোসা ছাড়িয়ে ভেতরের কোষগুলো খাওয়া হয়ে থাকে। এছাড়াও জুস, ফ্রুট সালাদ, মিষ্টি স্যুপ হিসেবেও খাওয়া যায়।

আসুন জেনে নিই জাম্বুরার পুষ্টিগুণ এবং উপকারীতা সম্পর্কে।

পুষ্টিগুণ: জাম্বুরা ভিটামিন সমৃদ্ধ একটি ফল । খুবই সহজলভ্য এবং কম দামে পাওয়া এই ফল কিন্তু অনেক পুষ্টি সমৃদ্ধ । প্রতি ১০০ গ্রাম জাম্বুরাতে আছে খাদ্যশক্তি ৩৮ কিলোক্যালরি, প্রোটিন ০.৫ গ্রাম, স্নেহ ০.৩ গ্রাম, শর্করা ৮.৫ গ্রাম, খাদ্যআঁশ ৫ গ্রাম, খনিজ লবন ০.২০ গ্রাম, ভিটামিন বি ২০.০৪ মিলিগ্রাম, ভিটামিন সি ১০৫ মিলিগ্রাম।

এছাড়াও এতে আছে রিবোফ্লাবিন, নিয়াসিন, ক্যারোটিন, ভিটামিন বি৬, আয়রন, ম্যাগনেসিয়াম, ম্যাংগানিজ, ফসফরাস, পটাসিয়াম, সোডিয়ামের মত উপকারী সব খনিজ উপাদান। যা আমাদের শরীরের অনেক উপকার করে থাকে।

উপকারীতা: 

১। জাম্বুরাতে ভিতামিন সি ও বি থাকায় এটি আমাদের হাড়, দাঁত, ত্বক ও চুলের পুষ্টি যোগায় এবং ভালো রাখতে সাহায্য করে। স্ক্যাভি, জ্বর, মুখের ঘা ইত্যাদি সমস্যার জন্য জাম্বুরা বেশ উপকারী। এছাড়াও এতে থাকা ভিটামিন সি আমাদের শরীরের রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বৃদ্ধি করে।

২। এতে থাকা পটাসিয়াম এবং ম্যাগনেসিয়ামের মত উপকারী খনিজ উপাদান আমাদের রক্তচাপ নিয়ন্ত্রণ করে থাকে। এছাড়াও এতে থাকা ভিটামিন সি আমাদের রক্তনালীর সংকোচন প্রসারণ ক্ষমতা বৃদ্ধি করে থাকে।

৩। জাম্বুরাতে ক্যালরি এবং ফ্যাট কম থাকায় ডায়াবেটিস রোগীদের জন্য এটি ভীষণ রকমের উপকারী। এ ফলটি ওজন কমাতে সাহায্য করে। তাই যারা একটু মোটা বা অতিরিক্ত ওজন নিয়ে ভাবনায় আছেন তাদের জন্য জাম্বুরা অনেক উপকারী।

৪। জাম্বুরা আমাদের ক্যান্সারে আক্রান্ত হওয়ার আশঙ্কা অনেক কমায় । কারণ জাম্বুরাতে আছে প্রচুর পরিমাণে বায়োফ্লভনয়েড। যা আমাদের ব্রেস্ট ক্যান্সারের হাত থেকে রক্ষা করে থাকে।

৫। জাম্বুরা আমাদের শরীরে থাকা খারাপ কোলেস্টরল নিয়ন্ত্রণ করে থাকে। এর ফলে বিভিন্ন ধরনের হৃদরোগের হাত থেকে রক্ষা করে জাম্বুরা। তাই অনেকেই একে কোলেস্টরল নিয়ন্ত্রক ফল হিসেবে বলে থাকেন।

৬। আমাদের শরীরের যেকোন ধরনের কাটা বা ক্ষত সারাতে জাম্বুরার জুড়ি নেই। যকৃত, পাকস্থলী, দাঁত এবং দাঁতের মাড়ির সুরক্ষায় জাম্বুরা অতুলনীয়। এছাড়াও এতে থাকা অ্যান্টি অক্সিডেন্ট আমাদের বয়স ধরে রাখতে সাহায্য করে এবং অল্প বয়েসে ত্বক বুড়িয়ে যাওয়া থেকে বাঁচায়।

প্রতিক্রিয়া মন্তব্য শেয়ার