কুমিল্লার পদুয়ার বাজারে ৯৯৯’এ কল দেয়ায় যাত্রীকে রড দিয়ে পিটুনি

Img

কুমিল্লায় অতিরিক্ত বাস ভাড়া নেওয়ার বিষয়ে জরুরি নম্বর ৯৯৯ এ কল দেওয়ায় যাত্রীর স্বজনকে রড দিয়ে পিটুনির অভিযোগ উঠেছে। পদুয়ারবাজার বিশ্বরোড এলাকায় তিশা প্লাস কাউন্টারে এ ঘটনা ঘটে।

অভিযোগকারী ওমর ফারুক বলেন, মা-বাবাকে কুমিল্লা থেকে চট্টগ্রাম অলঙ্কারের বাস টিকিট ক্রয় করতে যান। তিশা প্লাস প্রাইভেট লিমিটেড কাউন্টারে ২০০ টাকার ভাড়ার স্থলে ২৫০ টাকা নেয়, কারণ জানতে চাইলে তারা বলে ঈদে ভাড়া বেশি। বিষয়টি নিয়ে ৯৯৯ নম্বরে কল দেওয়াতে বাস কাউন্টার কর্তৃপক্ষ রেগে যায়। কাউন্টার ও বাসের লোকজন রড দিয়ে তার ওপর হামলা করে। দুটি টিকিট ক্রয়ের জন্য এক হাজার টাকা দিলে তারা ৫০০ টাকা ফেরত দেয়।

অভিযোগের বিষয়ে তিশা বাস কর্তৃপক্ষের সঙ্গে যোগাযোগ করা যায়নি। যাত্রীদের অভিযোগের জন্য তিশা প্লাস প্রাইভেট লিমিটেডের টিকিট ও ব্যানারে প্রদত্ত নম্বর কল দিলে গতকাল সারাদিন বন্ধ পাওয়া যায়।

জাতীয় ভোক্তা অধিদফতর কুমিল্লা জেলার সহকারী পরিচালক মো. আছাদুল ইসলাম জানান, ঈদের আগে পরিবহন মালিকদের সঙ্গে মতবিনিময় করেছি। তারা জানিয়েছে, অতিরিক্ত ভাড়া নেওয়া হবে না। ঘটনার বিষয়ে তিনি বলেন, অভিযোগের সত্যতা যাচাই করে, তাদের বিষয়ে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

পূর্ববর্তী সংবাদ

ফেনীতে বাড়ছে ডেঙ্গু রোগী

ফেনীতে ডেঙ্গু রোগীর সংখ্যা ক্রমেই বাড়ছে। গত ২৪ ঘন্টায় জেলা সদর সহ তিনটি হাসপাতালে নতুন করে আরো ১৬ জন ডেঙ্গু রোগী ভর্তি হয়েছে।

স্বাস্থ্য বিভাগ সূত্র জানায়, ফেনীতে ডেঙ্গুতে আক্রান্ত হওয়া রোগীর সংখ্যা ১০ জন। জেলার বিভিন্ন হাসপাতালে ৯৫ রোগী চিকিৎসাধীন রয়েছেন। এর মধ্যে জেলা সদর হাসপাতালে ৮১ জন, ছাগলনাইয়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ২ জন, ফেনী ডায়াবেটিক হাসপাতালে ৬ জন, আল-কেমী হাসপাতালে ৫ জন ও উপশম হাসপাতালে ১ জন ভর্তি রয়েছেন।

২৫০শয্যার ফেনী জেনারেল হাসপাতালে গিয়ে জানা গেছে, তিনতলার মেডিসিন ওয়ার্ডে পৃথকভাবে ডেঙ্গু রোগীদের চিকিৎসাসেবা দেয়া হচ্ছে। ডেঙ্গু রোগীদের জন্য মশারিসহ প্রয়োজনীয় সব ব্যবস্থা নিশ্চিত রয়েছে। তাদের দিকে আলাদা নজর রাখছেন হাসপাতালের চিকিৎসক ও নার্সরা। রোগীদের জন্য ব্যক্তিগত তহবিল থেকে আরো ৫শ ব্যাগ স্যালাইন সরবরাহ করেছেন সদর আসনের সংসদ সদস্য নিজাম উদ্দিন হাজারী। এর আগেও তিনি দুইবার প্রয়োজনীয় সেবাসামগ্রী সরবরাহ করেছেন।

হাসপাতাল সূত্র জানায়, চলতি বছরের জানুয়ারি থেকে গতকাল শনিবার পর্যন্ত ৪শ ৫ জন ডেঙ্গু আক্রান্ত রোগী চিকিৎসা নিয়েছেন। আগস্ট মাসে হাসপাতালে ডেঙ্গু রোগীর সংখ্যা বাড়তে থাকে। গত ১৭ দিনেই ৩শ ৬ জন রোগী ভর্তি হয়েছেন। গত ২৪ ঘন্টায় আরো ১২ জন রোগী ডেঙ্গু নিয়ে ভর্তি হয়েছেন। এছাড়া ফেনী ডায়াবেটিক হাসপাতালে ৩ জন ও ছাগলনাইয়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ১ জন ভর্তি হয়েছেন বলে জানা গেছে।

জানতে চাইলে হাসপাতালের আবাসিক মেডিকেল অফিসার (আরএমও) ডা. আবু তাহের পাটোয়ারি জানান, ফেনীতে ডেঙ্গুর উপস্থিতি না থাকলেও ঢাকা সহ অন্যান্য স্থান থেকে ডেঙ্গু আক্রান্ত রোগীরা ফেনীতে ফিরে আসায় রোগীর সংখ্যা বাড়ছে। আক্রান্তের সংখ্যা বাড়লেও স্বাভাবিকতা বজায় রয়েছে। এতে আতঙ্কিত হওয়ার কিছু নেই বলেও তিনি জানান।

প্রতিক্রিয়া মন্তব্য শেয়ার