কিমের নির্দেশ উত্তর কোরিয়ায় প্রথম করোনা রোগীকে গুলি করে হত্যা

বিষয়: করোনাভাইরাস
Img

উত্তর কোরিয়ার শাসক কিম জং উন তার দেশে করোনাভাইরাস (কোভিড ১৯) ছড়িয়ে পড়া নিয়ে আশঙ্কা প্রকাশ করেছিলেন। তিনি বলেছিলেন, এই প্রাণঘাতী ভাইরাস তার দেশে ছড়িয়ে পড়লে পরিস্থিতি মোটেও ভালো হবে না। সেই খবর প্রকাশিত হয়েছিল ‘কোরিয়ান সেন্ট্রাল নিউজ় এজেন্সি’তে। সম্প্রতি সোশ্যাল মিডিয়ায় আরেকটি খবর ছড়িয়ে পড়েছে। তা হলো, কিমের নির্দেশে দেশের প্রথম করোনাভাইরাসে আক্রান্ত রোগীকে গুলি করে হত্যা করা হয়েছে।  

এ খবরটি প্রকাশ করেছে সিঙ্গাপুরের একটি সংবাদ সংস্থা। তাদের রিপোর্টে একটি টুইটার অ্যাকাউন্টের কথা উল্লেখ করে জানানো হয়, ওই অ্যাকাউন্ট থেকে তথ্যটি প্রকাশ পেয়েছে। কিন্তু অ্যাকাউন্টের সত্যাতা সম্পর্কে কিছু জানানো হয়নি। টুইটার অ্যাকাউন্টটির নাম ‘সিক্রেট বেইজিং’। অ্যাকাউন্টের মালিক নিজের পরিচয় হিসেবে চীন সংশ্লিষ্ট সামাজিক পর্যবেক্ষক ও বিশ্লেষক বলেন। তিনি অবশ্য তার খবরের সূত্র কী তা বিশ্লেষণ করেননি। তার এই টুইটটি ভাইরাল হয়ে গেছে।  

সিঙ্গাপুরের ওই সংস্থাটি ছাড়াও দক্ষিণ কোরিয়ার একটি মিডিয়া রিপোর্টে করোনা-রোগীকে হত্যার দাবি করা হয়েছে। তারা জানিয়েছে, নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক একটি সূত্র থেকে তারা জানতে পেরেছে, করোনাভাইরাস সংক্রমণ সন্দেহে এক ব্যবসায়ীকে কোয়ারেন্টাইন করে রাখা হয়েছিল। কিন্তু তিনি নিয়ম মানেননি। তখন ওই ব্যবসায়ীকে গুলি করে মারা হয়। 

গত সপ্তাহের প্রথম দিকে এক প্রতিবেদনে বলা হয়, করোনাভাইরাসে আক্রান্ত ওই ব্যক্তি পাবলিক গোসলখানায় গিয়েছিলেন। এতে অন্যরা সংক্রমণের ঝুঁকিতে পড়ে যান। ফলে ঝুঁকি মোকাবেলায় তাকে গুলি করে মারা হয়।  

তবে বিবিসি জানায়, উত্তর কোরিয়ায় এক করোনাভাইরাসকে গুলি করে হত্যার যে খবর ছড়িয়েছে তা নিশ্চিত করা যায়নি। খবরটি 'ইন্টারন্যাশনাল বিজনেস টাইমস' এর সিঙ্গাপুর সংস্করণে প্রকাশ করা হয়েছে। এ খবর করা হয়েছে '@সিক্রেট_বেইজিং' নামের টুইটার অ্যাকাউন্টের টুইট থেকে। তবে এ তথ্যের সত্যতা যাচাই করা সম্ভব হয়নি। 

সূত্র: বিবিসি, আইবি টাইমস  
 

প্রতিক্রিয়া মন্তব্য শেয়ার