করোনাভাইরাস সচেতনতা বৃদ্ধিতে কাজ করে যাচ্ছে বুড়িগোয়ালিনী নৌপুলিশ

Img

করোনাভাইরাস সচেতনতা বৃদ্ধিতে উপকূলীয় অঞ্চলে নিরলসভাবে কাজ করে যাচ্ছে বুড়িগোয়ালিনী নৌ থানা। পাশাপাশি জীবাণুনাশক স্প্রে, বহিরাগতদের আসা ঠেকাতে সচেতন মূলক লিফলেট বিতরণ করছেন।  নীলডুমুর, কলবাড়ি, মুন্সিগঞ্জ বাজারসহ জনসমাগম এড়াতে ধারাবাহিকভাবে অভিযান অব্যাহত রেখেছে। শনিবার সকালে বুড়িগোয়ালিনী ইউনিয়ন পরিষদ কর্তৃক নদীর চরে পুকুর খননে ৮০ জন শ্রমিক কাজ করলে নৌ-পুলিশের ঐকান্তিক প্রচেষ্টায় কাজটি বন্ধ করে দিয়ে নিরাপদ স্থানে পাঠিয়ে দেন শ্রমিকদের।

এ সময় শ্রমিকদের উদ্দেশ্যে বুড়িগোয়ালিনী নৌ থানার দায়িত্বে থাকা এ এস আই আব্দুল গফুর বলেন, বাংলাদেশ সরকারের মাননীয় প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনা সবাইকে বাড়িতে নিরাপদ থাকার কথা বলেছেন।আপনারা আইনের তোয়াক্কা না করে একত্রে এতগুলো লোক কাজ করছেন এটা আইনত দণ্ডনীয় অপরাধ।তিনি কাজের স্থানে থেকে সবাইকে বাড়িতে পাঠিয়ে দেন,পরবর্তী বিধিমালা না আসা পর্যন্ত জনসমাগম এড়িয়ে চলার পরামর্শ দেন। নৌ পুলিশের নিয়মিত টহল হিসেবে কলবাড়ি ও মুন্সিগঞ্জ বাজার গণসচেতনতামূলক কথা বলেন এবং লিফলেট বিতরণ করেন।
পূর্ববর্তী সংবাদ

৩০ ঘন্টা পর বাড়ি ফিরলেন ১৬ নার্স ও স্বাস্থ্যকর্মী

খুলনা মেডিকেল কলেজ (খুমেক) হাসপাতালে প্রাতিষ্ঠানিক কোয়ারেন্টাইনে থাকা সেই ১৬ জন নার্স ও স্বাস্থ্যকর্মী বাড়ি ফিরেছেন।

প্রায় ৩০ ঘন্টা পর শুক্রবার রাতে তাদের বাড়িতে যেতে দেওয়া হয়।

এর আগে জ্বর ও শ্বাসকষ্টে মারা যাওয়া রোগী মোস্তাহিদুর রহমান রুবেল (৪৫) করোনা আক্রান্ত হতে পারে আশঙ্কায় বৃহস্পতিবার (২৬ মার্চ) দুপুর থেকে তাদেরকে প্রাতিষ্ঠানিক কোয়ারেন্টাইনে রাখা হয়। আইইডিসিআর থেকে ওই রোগীর করোনা পরীক্ষার ফলাফল নেগেটিভ আসায় তারা মুক্ত হন। এসব স্বাস্থ্যকর্মী রুবেলের চিকিৎসা সেবায় নিয়োজিত ছিলেন।

শনিবার (২৮ মার্চ) খুমেক হাসপাতালের করোনা ইউনিটের চিকিৎসক ডা. শৈলেন্দ্রনাথ বিশ্বাস বিষয়টি নিশ্চিত করে বলেন, ‘ওই নার্স ও স্বাস্থ্যকর্মীরা এখন থেকে তাদের বাড়িতে দুই সপ্তাহ সতর্কতামূলক হোম কোয়ারেন্টাইনে থাকবেন।’

তিনি বলেন, ‘মারা যাওয়া ব্যক্তির নমুনা সংগ্রহ করতে সরকারের স্বাস্থ্য বিভাগের একটি টিম বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় খুলনায় এসেছিলেন। করোনা ভাইরাস শনাক্তে উপাদান সংগ্রহ করে অগ্রাধিকার ভিত্তিতে পরীক্ষা সম্পন্ন করার পর নিশ্চিত হওয়া গেছে যে তিনি করোনায় আক্রান্ত নন।’

উল্লেখ্য, বৃহস্পতিবার (২৬ মার্চ) দুপুর দেড়টায় খুমেক হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় জ্বর ও শ্বাসকষ্টে আক্রান্ত রুবেল মারা যান। তার বাড়ি মহানগরীর হেলাতলা এলাকায়।

প্রতিক্রিয়া মন্তব্য শেয়ার