কপিলমুনিতে সচিবের শীতবস্ত্র বিতরণ ও মুজিববর্ষের ঘর পরিদর্শন

Img

বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ের সিনিয়র সচিব তপন কান্তি ঘোষ হরিঢালী ইউপির কয়েক শত অসহায়, শীতার্ত ও ছিন্নমূল মানুষের মাঝে শীত বস্ত্র কম্বল বিতরণ ও মুজিববর্ষের ঘর পরিদর্শন করেছেন।

এ কম্বল বিতরণ পর্বে শুক্রবার সকাল ১০ টায় হরিঢালী ইউনিয়ন মাধ্যমিক বিদ্যালয় মাঠ প্রাঙ্গণে রাধা শ্রীনিবাসের উদ্যোগে শীত বস্ত্র বিতরণ ও মতবিনিময় সভা অনুষ্ঠিত হয়।

উক্ত বিদ্যালয় পরিচালনা পরিষদের সভাপতি সরদার মোজাফ্ফর হোসেনের সভাপত্বিতে ও মামুদকাটী অর্ণিবাণ লাইব্রেরীর সাধারণ সম্পাদক প্রভাত দেবনাথের পরিচালনায় অনুষ্ঠিত সভায় প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন, বাংলাদেশ সরকারের বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ের সিনিয়র সচিব তপন কান্তি ঘোষ।

বিশেষ অতিথি ছিলেন, পাইকগাছা উপজেলা নির্বাহী অফিসার ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মমতাজ বেগম, উপজেলা পরিষদের সাবেক চেয়ারম্যান রশিদুজ্জামান মোড়ল, কপিলমুনি ইউপি চেয়ারম্যান কওছার আলী জোয়ার্দ্দার, খুলনা জেলা ওয়াকার্স পাটির নেতা মিজানুর রহমান, জাতীয় দৈনিক দিনকাল পত্রিকার পাইকগাছা উপজেলা প্রতিনিধি আমিনুল ইসলাম বজলু, পাইকগাছা থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) জিয়াউর রহমান, হরিঢালী মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক স্বপন বিশ্বাস, হরিঢালী পুলিশ ক্যাম্প ইনচার্জ আয়ুব হোসেন, উত্তম চক্রবর্তী, বিপ্লব সরকার, বাবুলাল দাশ, হরিঢালী ইউপির প্যানেল চেয়ারম্যান ও ওয়ার্ড সদস্য মুজাহিদ হাজরা, শহীদুল ইসলাম, আকু মোড়ল, হাবিবুর রহমান, শেখ আব্দুল গফুর, আজিজুল খাঁ, শংকর বিশ্বাস, বিষ্ণু কর্মকার, ফারুক হোসেন লাকী, সংরক্ষিত মহিলা সদস্য আঞ্জু আরা বেগম, স্মিতা মন্ডল, জয়ন্তী বিশ্বাসসহ হরিঢালী স্কুলের শিক্ষক ও শিক্ষিকাবৃন্দ। এদিকে কম্বল বিতরণ পরবর্তী কাশিমনগর, গলডাঙ্গা, গোলাবাটী নির্মিত মুজিববর্ষের আশ্রয়ণ প্রকল্পের ঘর পরিদর্শন ও সেখানে অশ্রয়রত পরিবারের সদস্যদের খোঁজ খবর নেন সচিব মহাদয়।

পূর্ববর্তী সংবাদ

এবার বিপিএলে দর্শক থাকবে কি?

নতুন ভ্যারিয়েন্ট ওমিক্রণ ছড়িয়ে পড়ায় বিশ্ব ব্যাপী করোনাভাইরাসের সংক্রমণ বেড়েছে। এমনকি বাংলাদেশেও সংক্রমণের হার ক্রমশ বাড়ছে। পরিস্থিতি আমলে নিয়ে স্বাস্থ্যবিধি মানার সঙ্গে কিছু বিধিনিষেধও আরোপ করেছে সরকার। ইতোমধ্যে উন্মুক্ত স্থানে জনসমাগম, সভা-সমাবেশ নিষিদ্ধ করা হয়েছে। পরিবহনে দুই সিটে এক যাত্রীর বেশি নেয়া যাবে না।

করোনা সংক্রমণের এই উর্ধ্বগতি বহাল থাকলেও বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লিগের (বিপিএল) অষ্টম আসর আয়োজন নিয়ে শঙ্কিত নয় বিসিবি। যথাসময়ে টুর্নামেন্ট মাঠে গড়াবে বলেই আশা করছে বিসিবি। তবে টুর্নামেন্টে দর্শকের উপস্থিতি অনিশ্চিত হয়ে পড়েছে। এখনও চূড়ান্ত হয়নি আদৌ দর্শক থাকবে কিনা গ্যালারিতে।

যদিও একমাস আগেও বিপিএলে দর্শক ফেরানোর বিষয়ে আশাবাদী ছিল বিসিবি। গ্যালারির ধারণ ক্ষমতার অন্তত ৫০ ভাগ টিকিট বিক্রির চিন্তা করা হয়েছিল। করোনার সংক্রমণ বেড়ে যাওয়ায় পরিস্থিতি বদলে যাচ্ছে।

বিপিএলে দর্শকের উপস্থিতি নিয়ে এখনও সিদ্ধান্ত হয়নি বলে জানিয়েছেন বিসিবির ক্রিকেট অপারেশন্স বিভাগের চেয়ারম্যান জালাল ইউনুস।

বৃহস্পতিবার সাংবাদিকদের তিনি বলেছেন, দর্শকদের প্রবেশ করানোর ব্যাপারে একটা শঙ্কা আছে। টুর্নামেন্ট হবে ইন শা আল্লাহ। কিন্তু দর্শক ভেতরে ঢোকানোর ক্ষেত্রে আমাদের চিন্তা করতে হচ্ছে। আদৌ আমরা দর্শক অনুমোদন দিতে পারবো কীনা এটা একটা প্রশ্ন।

উল্লেখ্য, বিপিএল শুরু হবে আগামী ২১ জানুয়ারি। শেষ হবে ১৮ ফেব্রুয়ারি। 

প্রতিক্রিয়া মন্তব্য শেয়ার