স্বামীকে বেঁধে স্ত্রীকে গণধর্ষণ: ধর্ষকের রুম থেকে অস্ত্র উদ্ধার

Img

সিলেটের ঐতিহ্যবাহী শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান এমসি কলেজের হোস্টেলে এক তরুণীকে ধর্ষণের ঘটনায় অভিযুক্ত ছাত্রলীগ কর্মীর হোস্টেলের রুম থেকে বিপুল পরিমাণ অস্ত্র উদ্ধার করেছে পুলিশ। অভিযুক্তদের গ্রেফতার করতে সাড়াশি অভিযান পরিচালনা করেছে বলে পুলিশ জানিয়েছে। 

তবে এ রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত কাউকে গ্রেফতার করতে পারে নি পুলিশ। 

শুক্রবার দিবাগত রাত ২ টার দিকে পুলিশ অভিযুক্ত ধর্ষক ছাত্রলীগ কর্মী সাইফুরের বাসা থেকে দেশি-বিদেশি অস্ত্র উদ্ধার করা হয়।

অভিযানে একটি বিদেশি পিস্তল, চারটি রামদা, দুটি লোহার পাইপ উদ্ধার করা হয়।

এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন শাহপরাণ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আবদুল কাইয়ুম। তিনি জানান, আমরা রাতে এমসি কলেজের হোস্টেলে অভিযান পরিচালনা করি। এসময় অভিযুক্ত ছাত্রলীগ কর্মী সাইফুর রহমানের রুম থেকে একটি বিদেশি পিস্তল, চারটি রামদা, দুটি লোহার পাইপ উদ্ধার করা হয়। তাদের বিরুদ্ধে অস্ত্র মামলা প্রক্রিয়াধীন।

এর আগে শুক্রবার (২৫ সেপ্টেম্বর) রাত সাড়ে ৯ টার দিকে সিলেট এমসি কলেজের হোস্টেলে এক তরুণীকে গণধর্ষণ করেছে ছাত্রলীগের কয়েকজন কর্মী।

স্থানীয়রা জানান, শুক্রবার (২৫ সেপ্টেম্বর) ধর্ষিত তরুণী তার স্বামীকে নিয়ে সিলেটের এমসি কলেজের ঘুরতে আসেন। ঘুরার এক পর্যায়ে রাত ৮ টার দিকে তরুণীর স্বামী সিগারেট খাওয়ার জন্য এমসি কলেজের গেইটের বাইরে বের হন। এসময় কয়েকজন যুবক তরুণীকে জোরপূর্বক তুলে নিয়ে যেতে চান। এতে তরুণীর স্বামী প্রতিবাদ করলে তাকে মারধোর শুরু করেন ছাত্রলীগের কর্মীরা। এক পর্যায়ে তরুণী ও তার স্বামীকে ছাত্রলীগের কর্মীরা এমসি কলেজের হোস্টেলে নিয়ে যান। সেখানে স্বামীকে বেঁধে ছাত্রলীগের তিন-চারজন নেতাকর্মী তরুণীকে পালাক্রমে ধর্ষণ করেন।

এসময় তাদের সাথে থাকা ৯০ টি মডেলের একটি কারও ছিনিয়ে নিয়ে যান ছাত্রলীগের নেতাকর্মীরা। পরে খবর পেয়ে পুলিশ এসে কারটি তাদের জিম্মায় নেয়। এবং তরুণীকে সিলেট এমএজি ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের ওসিসি সেন্টারে প্রেরণ করে।

প্রতিক্রিয়া মন্তব্য শেয়ার