এবার বন্ধ হয়ে গেল ট্রাম্পের ইউটিউব চ্যানেলও

Img

মার্কিন বিদায়ী প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের চ্যানেল সাময়িকভাবে স্থগিত করেছে গুগল মালিকানাধীন ইউটিউব। নীতি লঙ্ঘন করে সন্ত্রাসবাদকে উস্কে দেয়ার অভিযোগে মঙ্গলবার তার একটি ভিডিও সরিয়ে নেয়ার পাশাপাশি চ্যানেলটিও স্থগিত করা হয়। এর ফলে আগামী সাত দিন পর্যন্ত ট্রাম্প ইউটিউবে নতুন ভিডিও আপলোড দিতে পারবেন না অথবা কোনো ভিডিও সরাসরি সম্প্রচারও করতে পারবেন না।

গুগল জানিয়েছে, এই নিষেধাজ্ঞার দিন আরো বাড়ানো হতে পারে। ক্যাপিটল ভবনে সহিংসতায় উসকানি দেয়ার মাধ্যমে ট্রাম্পের চ্যানেল ইউটিউবের নীতি ভঙ্গ করেছে বলে জানায় গুগল।

বুধবার এক বিবৃতিতে গুগল জানায়, ‘যাচাই করার পর এবং সহিংসতার সম্ভাবনার ব্যাপারে উদ্বেগ থাকায় আমাদের নীতি ভঙ্গের কারণে ডোনাল্ড ট্রাম্পের চ্যানেলে নতুন কনটেন্ট আপলোডের সুযোগ আমরা বন্ধ করে দিয়েছি।’

বিবৃতিতে আরো বলা হয়, ‘সহিংসতার ব্যাপারে উদ্বেগের কারণে আমরা অনির্দিষ্টভাবে প্রেসিডেন্ট ট্রাম্পের চ্যানেলে মন্তব্য করার সুযোগও বন্ধ করে দিতে পারি। মন্তব্য সেকশনে নিরাপত্তা নিয়ে উদ্বেগ থাকায় আমরা এরকম পদক্ষেপ আরো কিছু চ্যানেলের বিরুদ্ধেও নিয়েছি।’

এর আগে সহিংসতায় উসকানি দেয়ার অভিযোগে ট্রাম্পকে স্থায়ীভাবে নিষিদ্ধ করে টুইটার।

এছাড়া সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকও সাময়িকভাবে নিষিদ্ধ করেছে ট্রাম্পকে।

ট্রাম্প এমন উদ্যোগের বিরোধিতা করে বলেছেন, বিরোধী ডেমোক্র্যাট শিবিরের সঙ্গে মিলে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমগুলো তার কণ্ঠরোধ করার চেষ্টা করছে।

উল্লেখ্য, ট্রাম্পের সমাবেশ থেকে তার সমর্থকদের ক্যাপিটল হিলে কংগ্রেস ভবনে হামলায় দুই পুলিশসহ অন্তত পাঁচজনের মৃত্যু হয়। আরও ৬০ জনের বেশি মানুষ আহত হয়েছেন, যাদের মধ্যে পুলিশ সদস্যরাও রয়েছেন।

ওই ঘটনায় উসকানির অভিযোগ উঠে ট্রাম্পের বিরুদ্ধে। তিনি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ব্যবহার করে সমর্থকদের সমাবেশে আসার আহ্বান জানিয়েছিলেন এবং হামলার পর তাদের ‘দেশপ্রেমিক’ বলেও আখ্যায়িত করেন।

প্রতিক্রিয়া মন্তব্য শেয়ার