এবার করোনা রোগী শনাক্ত করতে ব্যবহার হচ্ছে 'স্মার্ট হেলমেট'

বিষয়: করোনাভাইরাস
Img

গোটা বিশ্বে লাফিয়ে লাফিয়ে বাড়ছে করোনা আক্রান্তের সংখ্যা। এই পরিস্থিতিতে দ্রুত করোনা আক্রান্তকে শনাক্ত করতে নয়া উদ্যোগ নিল চিন। এক ধরনের স্মার্ট হেলমেট ব্যবহার করতে দেখা গেল চিনের পুলিসদের, যে হেলমেটের মাধ্যমে সহজেই শনাক্ত করা যাবে কোনও ব্যক্তির শরীরে ভাইরাস রয়েছে কিনা। ব্যক্তির শরীরের তাপমাত্রা সম্পর্কে স্পষ্ট ধারণা বা ছবি তুলে ধরবে এই বিশেষ হেলমেট।

সম্প্রতি ভাইরাল হয়েছে একটি ভিডিয়ো যেখানে দেখা যাচ্ছে এক পুলিসকর্মী জনবহুল রাস্তায় পথ চলতি ব্যক্তিদের শারীরিক তাপমাত্রা যাচাই করছেন তাঁর হেলমেটের মাধ্যমেই। জানা গিয়েছে, অত্যাধুনিক এই হেলমেটে থাকছে দুর্দান্ত সব ফিচার, থাকছে থার্মাল ইমেজ দেখার সুবিধা। শুধু তাই নয় যে কোনও গাড়ির রেজিস্ট্রেশন শনাক্ত করার ক্ষেত্রেও এর ব্যবহার করা যাবে। তাই এই হেলমেটের মাধ্যমে COVID-19-এর পাশাপাশি অপরাধ দমনেও বিশেষ সুবিধা পাওয়া যাবে বলে মনে করা হচ্ছে।

আর পাঁচটা সাধারণ হেলমেটের মতোই দেখতে এই স্মার্ট হেলমেটের পিছনে থাকছে এক ধরনের ক্যামেরা যা পাঁচ মিটারের মধ্যে জ্বরে আক্রান্ত কোনও ব্যক্তি থাকলে তা শনাক্ত করে সঙ্কেত দেবে। তাপমাত্রা মাপার পাশাপাশি ‘ফেসিয়াল রিকগনিশন’-এর মতো প্রযুক্তিগত সুবিধাও পাওয়া যাবে এই হেলমেট থেকে।

সাম্প্রতিক ভারতের মুম্বাইয়ে করোনা সংক্রমণ ঠেকাতে দ্রুত রোগী শনাক্তকরণে উচ্চ প্রযুক্তির ‘স্মার্ট হেলমেট’ ব্যবহার করা হচ্ছে। প্রায় দুই কোটি মানুষের শহরে বহনযোগ্য থার্মোস্ক্যানার করোনা প্রতিরোধে গুরুত্বপূর্ণ অস্ত্র হিসেবে ব্যবহার করা হবে। জানা গেছে, মিনিটেই ১২ থেকে ১৫ জনের শরীরের তাপমাত্রা নির্ণয়ে সক্ষম এটি।

মুম্বাইয়ের করোনাকালীন স্বেচ্ছাসেবদের একজন নিলু জেইন। তিনি বলেন, চলমান পদ্ধতিতে মানুষের দেহে করোনা শনাক্তে বেশ সময় লাগে। ৩০০ মানুষের পরীক্ষা করতে কমপক্ষে  তিন ঘণ্টা ব্যয় করতে হয়। কিন্তু এই হেলমেট ব্যবহার করে আপনি শুধু মানুষের মুখোমুখি হবেন তাদের। আড়াই ঘণ্টায় ৬ হাজার মানুষের অসুস্থতা বুঝতে পারবেন এটি ব্যবহার করে।

এরইমধ্যে মুম্বাই নগর কর্তৃপক্ষের কাছেও হেলমেট হস্তান্তর করা হয়েছে। আমদানি করা এই হেলমেটের দাম প্রায় ৬ লাখ ভারতয়ি রুপি বলে বার্তা সংস্থা এএফপিকে জানান জেইন।

প্রতিক্রিয়া (১৯) মন্তব্য (০) শেয়ার (২)