বিশ্বকাপের পর থেকে পরাজয়ের ঘূর্ণাবর্তে ছিল বাংলাদেশ। ত্রিদেশীয় সিরিজের প্রথম ম্যাচে জিম্বাবুয়েকে হারিয়ে হারের বৃত্ত ভাঙেন টাইগাররা। ঠিক পরের ম্যাচেই ফিরে আসেন আগের চিত্রে। আফগানিস্তানের সামনে পড়তেই অসহায় আত্মসমর্পণ করেন সাকিবরা।

গেল রোববার আফগানদের কাছে ২৫ রানে হেরেছেন তারা। ত্রিদেশীয় সিরিজের তিন ম্যাচশেষে দুই জয়ে পয়েন্ট টেবিলে শীর্ষে আফগানিস্তান। বাংলাদেশের জয় একটি, জিম্বাবুয়ে এখনও জয়শূন্য।

এখনও সিরিজের ফাইনালে খেলা সম্ভব বলে মনে করেন স্বাগতিক অধিনায়ক সাকিব আল হাসান। তিনি জানান, সার্বিক বিবেচনায় ফাইনাল খেলা উচিত বাংলাদেশের।

বুধবার থেকে শুরু হবে চট্টগ্রাম পর্ব। এদিন ফিরতি ম্যাচে জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে মাঠে নামবে বাংলাদেশ। সোমবার বিকালেই চট্টগ্রামে পৌঁছে গেছে বাংলাদেশ ও আফগানিস্তান। জিম্বাবুয়ে বন্দরনগরীতে নোঙর ভিড়িয়েছে রোববারই।

ফাইনালে খেলার সম্ভাবনা নিয়ে সাকিব বলেন, এখনও দুটি ম্যাচ আছে। দুই ম্যাচ খেলে দুটিতেই হেরেছে জিম্বাবুয়ে। শিরোপা নির্ধারণী ম্যাচে খেলা তাদের জন্য কঠিন। তিন দলের দুটি ফাইনালি লড়াইয়ে লড়বে। তাই এখনও ফাইনালে খেলার সম্ভাবনা আছে আমাদের এবং সেটি উচিত।

আমি মনে করি, আমাদের সেই সক্ষমতা আছে। টানা ব্যর্থতায় ক্রিকেটারদের আত্মবিশ্বাস এখন ঝুড়ির তলানিতে। অকপটে তা স্বীকার করেছেন লাল-সবুজ জার্সিধারীদের অধিনায়ক।

তিনি বলেন, দলের খেলোয়াড়দের আত্মবিশ্বাস নিচুতে। স্বভাবতই মাইন্ডসেটটা ক্লিয়ার না। কারণ একটা আরেকটার পরিপূরক।

সাকিবের মতে, আফগানিস্তানের সঙ্গে স্কিল ও মানসিক দিকে বাংলাদেশের দারুণ ব্যবধান রয়েছে।