ক্রেতা: আপেলের কেজি কত?

বিক্রেতা: ১০ রিয়াল।

ক্রেতা: কলা?

বিক্রেতা: ৮ রিয়াল।

ক্রেতা: কমলা?

বিক্রেতা: ৬ রিয়াল।

ক্রেতা-বিক্রেতা দামাদামী চলছে এমন সময় জনৈক বয়স্ক মহিলা দোকানে ঢুকেই জিজ্ঞেস করলেন।

মহিলা: আপেলের কেজি কত?

বিক্রেতা: ৩ রিয়াল।

মহিলা: কলা?

বিক্রেতা: ২ রিয়াল।

মহিলা: কমলা?

বিক্রেতা: ২ রিয়াল।

মহিলাটি বললো; প্রতিটি ফল ১ কেজি করে আমাকে দিন।

ওদিকে পুরুষ ক্রেতাটি তো হতবাক। চোখ রাঙিয়ে দোকানদারকে কিছু বলতে যাবে, এমন সময় বিক্রেতা চোখের ইশারা দিয়ে বললো, একটু অপেক্ষা করুন! মহিলাটি দাম চুকিয়ে দোকান থেকে বিদায় নেয়ার পর দোকানদার বললেন;

ভাই! আমার উপর খারাপ ধারণা করবেন না। আমাকে অস‍‌ৎ ও ধোকাবাজ মনে করবেন না। আল্লাহর কসম আমি আপনার সাথে প্রতারণা করি নি। এই মহিলাটি কয়েকজন 'ইয়াতীম' বাচ্চার মা। আমি জানি তারা অভাবী পরিবার। ঐ ইয়াতীমগুলোর জন্য আমি মহিলাটিকে আমি বিভিন্নভাবে সহায়তার কথা বলেছি। কিন্তু, তিনি তা প্রত্যাখ্যান করেছেন। তিনি চান তার সন্তানরা যেনো কারো কাছে হাত বাড়াতে না হয়। তাই, আমি তাদেরকে সহযোগিতা করার জন্য অনেক ভেবে-চিন্তে আমি এই পন্থা অবলম্বন করেছি। যেনো বুঝতে পারেন যে, তিনি কারো মুখাপেক্ষী নন।

এর মাধ্যমে আমি আমার রবের সাথে মোঅামেলা করতে চেয়েছি। সামান্য কিছু হলেও এই অভাবী মহিলা এবং তার ইয়াতীমগুলোর খেদমত করতে চেয়েছি। এর উসিলায় যেন আল্লাহ তাঅালা আমার আমলনামায় কিছু সওয়াব লিখে দেন। আল্লাহর কসম! সপ্তাহে সে মাত্র ১বার আসেন। আর যেদিন তিনি আমার নিকট থেকে কিছু ক্রয় করে নিয়ে যান... সেদিন আমার প্রচুর ব্যবসা হয়। অনেক লাভবান হই। কিভাবে যে আমার রিযিকে এতো বরকত আসে আমি বুঝতে পারি না।

ঘটনা শুনে পুরুষ ক্রেতাটির চক্ষু দুটি অশ্রুসিক্ত হয়ে উঠলো। দোকানদারের মাথায় চুম্বন করে বললেন; আল্লাহ তোমাকে উত্তম বিনিময় দান করুন। কালকে থেকেই পবিত্র রমজান শুরু হয়েছে, কোন ভাল কাজ করলে তো এমনি সওয়াব আর তা রমজানে করলে হাজারগুণ বেড়ে যায়! একটা মাসই তো! আমরাও যেন ভাল কিছু করতে পারি এই পবিত্র মাসে, আমিন।