আলোচিত বহু বিয়ের নায়ক 'জিয়া'র বিরুদ্ধে গ্রেফতারী পরোয়ানা

Img

বহু বিয়ে করে লক্ষ লক্ষ টাকা হাতিয়ে নিয়ে সর্বশান্তকারী জিয়াউর রহমান জিয়ার বিরুদ্ধে যৌতুকের মামলায় গ্রেফতারি পরোয়ানা জারী করেছে আদালত। সে তালা উপজেলার বারইহাটী গ্রামের নুর আলী সরদারের ছেলে। ওই প্রতারক বিভিন্ন নারীদের ফাঁদে ফেলে ৪২ বছর বয়সে ১১ বিয়ে করেছে।

তার এক স্ত্রী রাজশাহীর ফৌরদৌসী বেগম ৪ জনকে আসামী করে সাতক্ষীরা আদালতে যৌতুকের মামলা করে। তারই প্রেক্ষিতে গত ৩০ শে জুন আদালত তার ভাই কবীর রহমান ও সরদার মশিয়ার রহমান,এবং বোন তাছলিমা বিবিকে জামিন প্রদান করেন। কিন্তু আদালতে হাজির না থাকায় অভিযুক্ত প্রধান আসামী জিয়াকে গ্রেফতারী পরোয়ানাজারী করে আদালত।

বর্তমানে সে যশোর সদরে সুমি আক্তার নামের এক মেয়েকে বিয়ে করে সংসার করছে বলে জানান স্থানীয়রা। এলকাবাসীর তথ্য মতে জিয়ার সাত বউয়ের নাম ঠিকানা পাইকগাছা জেলায় বিয়ে করেছে ছনিয়া পারভীনকে,যশোর শালিকায় মনিরা পারভীন ও সুমি আক্তার, তালা বারইহাটী রোজিনা বিবি,মুড়াগাছা গ্রামে নাসরীন বিবি ও মহিনদি গ্রামের সুমি আক্তার,রাজশাহীতে ফেরদৌসী নামের এক প্রবাসীর স্ত্রীকে বিয়ে করেন।

এছাড়া ৪ বছর আগে তালা উপজেলার বারইহাটী গ্রামের ৮ম শ্রেণীর এক ছাত্রীকে ধর্ষণ করায় আদালতে মামলা হয় তার নামে। কিন্তু এলাকায় তারা প্রভাবশালী হওয়ায় চাপের মুখে মামলা তুলে নিতে বাধ্য হয় ওই কিশোরীর পরিবার। এলাকায় তাদের পরিবার প্রভাবশালী হওয়ায় ভয়ে কেউ মুখ খুলতে সাহস পায়না। এজন্য সকল অপকর্ম করেও পার পেয়ে যাচ্ছে ওই প্রতারক।

এসকল বিষয় জানার জন্য তার ব্যবহৃত মোবাইল নাম্বারে ফোন দিলে বন্ধ থাকায় বক্তব্য নেওয়া সম্ভব হয়নি। এসকল বিষয়ে স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যান সরদার জাকির হোসেন বলেন,সে কয়েকটি বিয়ে করেছে এটা সত্য। তবে দীর্ঘদিন যাবৎ সে বাড়ীতে থাকেনা বর্তমানে সে কোন অবস্থায় সে সর্ম্পকে তিনি অবগত নন।

প্রতিক্রিয়া মন্তব্য শেয়ার