আমাদের জাতীয় ফল কাঁঠালের গুনাগুন

Img

কাঁঠালের পুষ্টি ও ঔষধি গুণ: হাড় মজবুত ও শক্ত করে। রোগ-প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়ায়। চোখ ভালো রাখে। কোষ্ঠকাঠিন্য দূর করে। দেহের রক্তাল্পতা দূর করে। কাঁঠাল হজম শক্তি বাড়ায়। কাঁঠাল ত্বকের জন্য ভালো। কাঁঠালে চর্বির পরিমাণ নিতান্ত কম। এই ফল খাওয়ার কারণে ওজন বৃদ্ধির আশঙ্কা খুবই কম। কাঁঠাল ক্যান্সার প্রতিরোধ এবং ক্যান্সারের ঝুঁকি কমায়। উচ্চ রক্তচাপ স্বাভাবিক রাখে এবং

হার্ট অ্যাটাক ও স্ট্রোকের ঝুঁকি কমায়। কাঁঠাল হাঁপানি প্রতিরোধ করে। কাঁঠাল থাইরয়েড নিয়ন্ত্রণে রাখতে সাহায্য করে। পাইলসের ঝুঁকি কমাতে সাহায্য করে। রাতকানা রোগ প্রতিরোধ করে। সর্দি-কাশি রোগের সংক্রমণ থেকে রক্ষা করে। টেনশন এবং নার্ভাসনেস কমাতে কাঁঠাল বেশ কার্যকরী।

দুগ্ধদানকারী মা তাজা পাকা কাঁঠাল খেলে দুধের পরিমাণ বৃদ্ধি পায়। প্রতিদিন ২০০ গ্রাম তাজা পাকা কাঁঠাল খেলে গর্ভবতী মহিলা ও তার গর্ভধারণকৃত শিশুর সব ধরনের পুষ্টির অভাব দূর হয়।

গর্ভবতী মহিলারা কাঁঠাল খেলে তার স্বাস্থ্য স্বাভাবিক থাকে এবং গর্ভস্থসন্তানের বৃদ্ধি স্বাভাবিক হয়। দাঁতের মাড়িকে শক্তিশালী করে। আলসার এবং বার্ধক্য প্রতিরোধে সক্ষম।
 বদহজম রোধ করে কাঁঠাল। কাঁঠাল রক্তে শর্করা বা চিনির পরিমাণ নিয়ন্ত্রণে সাহায্য করে। রক্ত সংকোচন প্রক্রিয়া সমাধানেও ভূমিকা রাখে।

আসুন জাতীয় ফল কাঁঠাল খাই নিয়মিত এবং রোগ প্রতিরোধ করি। 

প্রতিক্রিয়া মন্তব্য শেয়ার