আগামীকাল ডুমুরিয়ায় উপজেলা পরিষদ নির্বাচন

Img

আগামীকাল মঙ্গলবার ডুমুরিয়া উপজেলা পরিষদের নির্বাচন। এ নির্বাচনকে ঘিরে উপজেলায় ব্যাপক আইন শৃংখলা বাহিনী মোতায়েন করা হয়েছে। নির্বাচনী এলাকায় অব্যাহত রয়েছে ম্যাজিষ্ট্রেট, র‌্যাব, বিজিবি ও পুলিশের পদচারণা।

মাইকিংয়ের মাধ্যমে ভোটারদের নির্ভয়ে ভোট কেন্দ্রে গিয়ে ভোটাধিকার প্রয়োগে উৎসাহিত করা হচ্ছে। চলছে ভোটারদের চুলচিরা বিশ্লেষন। কে বসবে উপজেলা পরিষদের চেয়ারে ? এমন জল্পনা-কল্পনায় মেতে উঠেছে গোটা উপজেলাবাসি। তবে স্বতন্ত্র প্রার্থী ঘোড়া প্রতীকের পক্ষে প্রচার-প্রচারনায় অংশ নেয়া একাধিক ব্যক্তিদের প্রিজাইডিং অফিসার পদে নিয়োগ দেয়া হয়েছে এমন অভিযোগ রয়েছে আ’লীগ মনোনীত প্রার্থীর।

উপজেলা নির্বাচন অফিস সূত্রে জানা যায় আগামী কাল মঙ্গলবার সকাল ৯টা থেকে বিকেল ৫টা পর্যন্ত বিরামহীন ভাবে উপজেলা নির্বাচনের ভোট গ্রহন অনুষ্ঠিত হবে।

এ নির্বাচনে উপজেলা চেয়ারম্যান পদে আ‘লীগ মনোনীত নৌকা প্রতিকে মোঃ মোস্তফা সরোয়ার,স্বতন্ত্র বিদ্রোহী ঘোড়া প্রতিকে এজাজ আহমেদ,আনারস প্রতিক নিয়ে মোহাম্মাদ মাহাবুবুর রহমান,হাতুড়ী প্রতিক নিয়ে সেলিম আক্তার স্বপন ও দোয়াত কলম প্রতিক নিয়ে শাহনেওয়াজ হোসেন জোয়াদ্দারসহ মোট ৫জন অংশ নিচ্ছেন।

এছাড়াও পুরুষ  ভাইস চেয়ারম্যান পদে ৮ জন ও মহিলা  ভাইস চেয়ারম্যান পদে ৩ জন প্রার্থী নির্বাচনে অংশ নিচ্ছেন। পুরুষ  ভাইস চেয়ারম্যান প্রার্থী হচ্ছেন- আব্দুল লতিফ মোড়ল (বাই সাইকেল), এম এ এরশাদ (টিউবওয়েল), জামিল আক্তার লেলিন (মাইক), শেখ মুজিবুর রহমান (উড়োজাহাজ), গোবিন্দ কুমার ঘোষ (তালা চাবি), সুমন ভ্রম্য (বই) ও গাজী আব্দুল হালিম (টিয়া পাখি)। ৩ জন মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান প্রার্থী হচ্ছেন- শারমিন পারভীন রুমা (কলস), হাসনা হেনা (ফুটবল) ও মাকসুদা আক্তার রাখি (হাঁস)।

ইতোমধ্যে প্রার্থীদের প্রচার প্রচারনা শেষ হলেও শেষ হয়নি ভোটারদের চুলচিরা বিশ্লেষন। এ নির্বাচনকে ঘিরে কি পরিমান নিরাপত্তা ও আইন শৃংখলা বাহিনী মোতায়েন করা হয়েছে এমন প্রশ্নের উত্তর জানতে চেয়ে কথা হয় উপজেলা
নির্বাচন অফিসার ও সহকারী রিটানিং অফিসার শেখ জাহিদুর রহমানের সাথে।

তিনি জানান, উপজেলার ১৪টি ইউনিয়ন নিয়ে গঠিত বৃহত্তর এ উপজেলায় মোট ২ লাখ ৪১ হাজার ৪ শত ৭৬ জন ভোটার এবং ৯৪টি ভোট কেন্দ্র রয়েছে। নির্বাচন অবাধ, সুষ্ঠ ও নিরপেক্ষ করার লক্ষে ১ জন জুডিশিয়াল ম্যাজিষ্ট্রেট, ২৩ জন নির্বাহী ম্যাজিষ্ট্রেট, ৯ প্লাটুন অর্থ্যাৎ ১৮০ জন বিজিবি, ১ হাজার পুলিশ, ১ হাজার ১ শত ২৮ জন আনসার-ভিডিপি সদস্য মোতায়েন করা হয়েছে। এছাড়া ৯৪ জন প্রিজাইডিং অফিসার, ৬ শত ৫৭ জন সহকারী প্রিজাইডিং ও ১ হজার ৩ শত ১৪ জন পোলিং অফিসার নিয়োগ দেয়া হয়েছে।

নির্বাচন প্রসঙ্গে কথা হয় শোভনা এলাকার পিরআলী শেখ, আবু মোড়ল, রুদাঘরার রেজোয়ান হোসেন, আতাউর রহমান, মাগুরখালীর প্রমথ মন্ডল,সরজিত মন্ডলসহ একাধিক ভোটারের সাথে। তারা জানান ভোট যে কাকে দিব এ নিয়ে চলছে চুলচেরা হিসাব-নিকাশ।

তারা জানান ভোট কেন্দ্রে না গিয়েও তো ভোট হয়ে যায় তাই ভ্টো কেন্দ্রে যাবো কিনা ভাবছি। তবে কেন্দ্রে গেলে তাকেই ভোট দেয়া হবে যিনি সৎ, নির্ভিক ও যোগ্য ব্যক্তি।

এ দিকে নির্বাচন পক্ষ পাতিত্ব করতে প্রিজাইডিং অফিসার নিয়োগে ব্যাপক অনিয়ম করা হয়েছে উল্লেখ করে আ’লীগ মনোনীত নৌকা প্রতীকের প্রার্থী মোস্তফা সরোয়ার অভিযোগ করে বলেন, সরাসরি ঘোড়া প্রতীকের পক্ষে প্রচার-প্রচারনায় অংশ নেয়া ২৭ জনকে নিয়োগ দেয়া হয়েছে। যা সুষ্ঠ ও নিরপেক্ষ নির্বাচনের অন্তরায় বলে আমি মনে করি। অভিযুক্ত ব্যক্তিদের নাম উল্লেখ করে জেলা নির্বাচন অফিসার ও রিটার্নিং অফিসারের দপ্তরে একটি লিখিত অভিযোগ দায়ের করা হয়েছে এবং অভিযোগটি আমলে নিয়ে তিনি বিষয়টি দেখবেন বলে আশ্বস্ত করেছেন।

প্রতিক্রিয়া মন্তব্য শেয়ার