প্রথমে ধর্ষণ চেষ্টা, মামলা করায় ধর্ষণ করে আপত্তিকর ছবি ফেসবুকে দিল যুবক

Img

ব্রাহ্মণবাড়িয়ার আখাউড়া উপজেলায় কলেজছাত্রীকে ধর্ষণের পর ছবি সামাজিকমাধ্যম ফেসবুকে ছড়িয়ে দেয়ার অভিযোগ পাওয়া গেছে। এঘটনায় শুক্রবার রাতে আশরাফুল ইসলাম স্বাধীন (২২) নামে এক যুবকের বিরুদ্ধে ওই ভুক্তভোগী কলেজছাত্রীর বাবা বাদী হয়ে প্রর্নোগ্রাফি আইনে আখাউড়া থানায় মামলা দায়ের করেছেন।

অভিযুক্ত আশরাফুল ইসলাম ব্রাহ্মণবাড়িয়ার বিজয়নগর উপজেলার লক্ষীপুর গ্রামের বাসিন্দা শামীম মিয়ার ছেলে। এদিকে পৌরশহরের দেবগ্রামের এ ঘটনায় আখাউড়াজুড়ে চাঞ্চল্যের সৃষ্টি হয়েছে।

মামলার এজাহার সূত্রে জানা গেছে, বিজয়নগর উপজেলার আশরাফুল ইসলাম পৌরশহরের রাধানগর এলাকার বণিকপাড়ায় তার বোনের বাড়ি থেকে আখাউড়া ডিজিটাল কম্পিউটার প্রশিক্ষণ কেন্দ্রে কম্পিউটার শিখতে যান ওই ছাত্রী।

সেখানে ওই কলেজ ছাত্রীর সঙ্গে আশরাফুল ইসলাম স্বাধীনের পরিচয় হয়। পরে আশরাফুল ইসলাম স্বাধীন ওই কলেজছাত্রীকে প্রায়ই উত্যক্ত করতে থাকে।গত ১৩ অক্টোবর বিকাল বেলায় পৌরশহরের রাধানগর হিন্দু সম্প্রদায়ের আখড়া মন্দিরের পাশে ওই কলেজছাত্রীকে একা পেয়ে যৌন নিপীড়ন চালায়।

এ ঘটনায় নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনাল নং- ৩, ব্রাহ্মণবাড়িয়া আদালতে মামলা দায়ের করা হয়। যার তদন্ত চলছে।

মামলায় আরও উল্লেখ করা হয়, আদালতে মামলার বিষয়টি আশরাফুল ইসলাম স্বাধীন জানতে পেরে ক্ষিপ্ত হয়ে ওঠে। সম্প্রতি ওই কলেজছাত্রীকে ফুসলিয়ে প্রলোভন দেখিয়ে আবাসিক হোটেলে নিয়ে যায়। সেখানে আশরাফুল মেয়েটির ইচ্ছার বিরুদ্ধে ধর্ষণচেষ্টা চালিয়ে মোবাইল ফোনে অশ্লীল (আপত্তিকর) ছবি ধারণ করে। পরে ওই ছবি ফেসবুক মেসেঞ্জার, ইমুতে ওই কলেজছাত্রীর পরিবার ও আত্মীয়স্বজনদের কাছে পাঠায়। ওই কলেজছাত্রীর আপত্তিকর ছবি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে ভাইরাল করে দেয় আশরাফুল ইসলাম স্বাধীন।

আখাউড়া থানার ওসি রসুল আহম্মদ নিজামী বলেন, এ ঘটনায় ভুক্তভোগী ছাত্রীর বাবা বাদী হয়ে প্রর্ণোগ্রাফী আইনে আখাউড়া থানায় মামলা দায়ের করেছেন। ওই যুবককে গ্রেফতারের অভিযান অব্যাহত রয়েছে।

প্রতিক্রিয়া মন্তব্য শেয়ার