মালয়েশিয়ার কুয়ালা তেরেঙ্গানু (kuala terengganu) প্রদেশের নির্মাণ প্রকল্পে  ভিসার( ওয়ার্ক পারমিট) শর্ত লঙ্ঘন করে শ্রমিকদের নিয়োগ দেওয়ার অপরাধে স্থানীয় ৩ জন নিয়োগ দাতার বিরুদ্ধে শাস্তির জন্য চার্জ গঠন করেছে দেশটির ইমিগ্রেশন বিভাগের পুলিশ।

এসময় ১১ জন অভিবাসী শ্রমিক কে আটক করে কোভিড-১৯ পরীক্ষারয় তাদের ফলাফল নেগেটিভ আসায় অজিল(ajil) ডিটেনশন ক্যাম্পে রাখা হয়েছে। 

সোমবার (২৯ জুন)  দেশটির সংবাদ মাধ্যম সিনার হারিয়ান ( sinar Harian) এ এই তথ্য দিয়ে প্রতিবেদন প্রকাশ করেছে। 

পত্রিকার প্রতিবেদনে বিস্তারিত জানানো হয়, বিভিন্ন নির্মাণ প্রকল্প পরিদর্শন করার পর ভিসার শর্ত ভঙ্গ করে শ্রমিকরা কাজ করছে এ বিষয়টি শনাক্ত করার পর সংশ্লিষ্ট তিন নিয়োগ দাতা কে নোটিশ প্রদান করা হয়েছে এবং দেশটির অভিবাসন আইন ১৯৫৯/৬৩ এর ৫৫(খ) ধারায় তাদের বিরুদ্ধে চার্জ গঠন করে সাক্ষী তলব করা হয়েছে। 

মালয়েশিয়া কুয়ালা তেরেঙ্গানু অভিবাসন বিভাগের প্রধান উংকু জোহা উংকু মোহাম্মদ(Ungku Joha Ungku Mohamad) স্থানীয় সাংবাদিকদের জানান,সংশ্লিষ্ট নিয়োগ কর্তাদের বিরুদ্ধে অভিযোগ প্রমাণিত হলে প্রত্যেককে ১০ হাজার থেকে ৫০ হাজার মালয়েশিয়ান রিংগিত জরিমানা অনাদায়ে সর্বোচ্চ ১২ মাস পর্যন্ত কারাদণ্ড অথবা উভয় দন্ডে দন্ডিত হতে পারে। অভিযানের সময় দুটি জেলার চারটি নির্মাণ প্রকল্পে অভিযান চালিয়ে ১১ বিদেশি কর্মীকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে।

তিনি আরো বলেন,  কুয়াল তেরেংগানু (kuala terengganu) এবং কুয়ালা নেরাসের(kuala nerus) চারটি নির্মাণ স্থানে বিদেশি সহ  এগুলোর সব ইমিগ্রেশন রেগুলেশন ১৯  এর বিধি ৩৯ (খ)  ইমিগ্রেশন আইন ১৯৫৯/৬৩ এর ধারা ৬ (১), (গ) এবং একই আইনের ধারা ১৫ (১), (গ) এর অধীনে তদন্ত করা হচ্ছে। এই  ইন্টিগ্রেটেড অভিযানে ১৯ জন স্থানীয় শ্রমিক, মিয়ানমার (৬৩), বাংলাদেশ (১১), ইন্দোনেশিয়া (১২), কম্বোডিয়া (১) জন সহ মোট ১০৬ জন অভিবাসী শ্রমিককে পরীক্ষা করা হয়েছে।  

এই  সময় তেরেংগানু ( terrenganu)  রাজ্য স্বাস্থ্য বিভাগ, মালয়েশিয়ার সিভিল ডিফেন্স ফোর্স, জাতীয় নিবন্ধকরণ বিভাগ এবং রয়েল মালয়েশিয়ার পুলিশ সহ ৫১ জন সদস্যের সমন্বয়ে এই অভিযান পরিচালিত হয়েছে।