অবৈধভাবে বালু উত্তোলন: নদীতে বিলীন হচ্ছে সড়ক

Img

সাতকানিয়ার ডলু নদী থেকে অবৈধভাবে বালু উত্তোলনের ফলে উপজেলার গারাংগিয়া-আলুরঘাট সড়কে যোগাযোগ হুমকির মুখে পড়েছে। সড়কপথে জীবনের ঝুঁকি নিয়ে চলাচলে জনভোগান্তি চরমে পৌঁছেছে। যে কোনো মুহূর্তে সড়কটি পুরোপুরি খালে বিলীন হতে পারে। আতংকিত হয়ে পড়ছে ওই এলাকায় বসবাসকারী ৫ গ্রামের লোকজন।

অবৈধ বালু উত্তোলন বন্ধ করে ভাঙন রোধে যথাযথ ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের নিকট আবেদন করলেও কোন ব্যবস্থা নেয়া হয়নি। গারাংগিয়া-আলুরঘাট দৃষ্টিনন্দন সড়কটি উপজেলার সোনাকানিয়া ইউনিয়নে অবস্থিত। এটির দৈর্ঘ্য প্রায় ৪ কিলোমিটার। এ সড়কের পাশ দিয়ে বয়ে গেছে ডলু নদী।

স্থানীয় প্রভাবশালী মহল নিজেদের আখের গোছাতে ড্রেজার মেশিন বসিয়ে অবৈধভাবে বালু উত্তোলন করছে। দীর্ঘ এ সড়কটির গারাংগিয়া ৮ নং ওয়ার্ডের মনির মেম্বারের ঘাটা, হালদার মুখ, সামশু মেম্বার পাড়া, আব্দুল আলিম চৌধুরী পাড়া, আলুরঘাট ও গারাংগিয়া উচ্চ বিদ্যালয় এলাকা থেকে উত্তোলন করা হচ্ছে এ বালু। ফলে হুমকির মুখে পড়েছে গারাংগিয়া আলীয়া মাদ্রাসা, দক্ষিণ গারাংগিয়া মহিলা দাখিল মাদ্রাসা, দক্ষিণ গারাংগিয়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়, মধ্য গারাংগিয়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়, গারাংগিয়া উচ্চ বিদ্যালয়, আলুরঘাট এবতেদায়ী মাদ্রাসা ও হাতিয়ার পুল এবতেদায়ী মাদ্রাসাসহ বিভিন্ন ধর্মাবলম্বীদের মসজিদ ও মন্দির।

এ সড়ক দিয়ে প্রতিদিন যাতায়াতকারী গারাংগিয়া মাদ্রাসার ছাত্র কফিল উদ্দীন বলেন, আমরা শুষ্ক মৌসুমে কোনরকমে চলাচল করতে পারলেও বর্ষা মৌসুমে খুবই ঝুঁকির মধ্যে দিয়ে চলাচল করতে হয়। বারদোনা হক মেমোরিয়াল উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক হেলাল উদ্দীন বলেন, এভাবে ভাঙতে থাকলে একসময় দৃষ্টিনন্দন সড়কটি ডলু নদীতে বিলীন হয়ে যাবে।

দ্রুত অবৈধ বালু উত্তোলন বন্ধ এবং ভাঙন রোধে পদক্ষেপ গ্রহণ জরুরি। সোনাকানিয়া ইউনিয়নের ৮ নং ওয়ার্ডের ইউপি সদস্য মো. মনিউল আলম মনির ও ৯ নং ওয়ার্ডের ইউপি সদস্য মো. জাহাঙ্গীর আলম বলেন, অবৈধভাবে ডলু নদী থেকে ড্রেজার মেশিন বসিয়ে বালু উত্তোলনের ফলে গারাংগিয়া- আলুরঘাট দৃষ্টিনন্দন সড়কটি ভাঙনের কবলে পড়েছে।

অবৈধ বালু উত্তোলন বন্ধ ও ভাঙন প্রতিরোধে ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য উপরে লেখালেখি করেও কোন কাজ হয়নি। অতি সহসা বালু উত্তোলন বন্ধ করে সড়কটি মেরামতের ব্যবস্থা না করলে আগামী বর্ষায় তলিয়ে যাবে ৫ গ্রামের অন্ততঃ ৫ সহস্রাধিক লোকের বসতঘর। সাতকানিয়া উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মো. মোবারক হোসেন বলেন, অবৈধভাবে বালু উত্তোলনকারীদের বিরুদ্ধে দ্রুত ব্যবস্থা নিয়ে সড়কের ভাঙন রোধ করা হবে।

প্রতিক্রিয়া মন্তব্য শেয়ার